এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের মন্ত্রী, বিধায়কদের টাকা নেওয়ার ভিডিও, জোর চাঞ্চল্য!

ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের মন্ত্রী, বিধায়কদের টাকা নেওয়ার ভিডিও, জোর চাঞ্চল্য!

এবার পৌরসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের শাসকদলের অস্বস্তি চরমমাত্রায় বাড়িয়ে দিল ভারতীয় জনতা পার্টি। ফের প্রকাশিত হলো স্টিং অপারেশনের ভিডিও। যেখানে আবার প্রকাশ্যে টাকা নিতে দেখা গেল শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বেশকিছু মন্ত্রী এবং বিধায়ককে। আর বিজেপির সদর দপ্তরে সাংবাদিক বৈঠক থেকে এই ভিডিও প্রকাশ হওয়ার পরেই রীতিমত তোলপাড় পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে রাজ্য রাজনীতির অন্দরমহলে। তবে বিজেপির তরফে এই ভিডিও প্রকাশ করা হলেও, প্রিয়বন্ধু মিডিয়া তার সত্যতা যাচাই করে দেখেনি‌।

সূত্রের খবর, বুধবার রাজ্য বিজেপির সদর দপ্তরে একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং মুকুল রায়। আর সেখানেই প্রজেক্টরে একটি ভিডিও দেখান কেন্দ্রের ওই বিজেপি নেতা। যেখানে দেখা যায়, রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের হেভিওয়েট মন্ত্রী এবং বিধায়করা প্রকাশ্যে টাকা নিচ্ছেন। যার মধ্যে নাম রয়েছে চন্দ্রনাথ সিংহ, তাপস রায়, অরুপ রায়, উজ্জ্বল বিশ্বাস, স্বপন দেবনাথ, মলয় ঘটক, ইকবাল আহমেদ এবং স্মিতা বক্সীর মত হেভিওয়েট মন্ত্রী বিধায়কদের।

গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, তৃণমূলের এই সমস্ত মন্ত্রী বিধায়কদের কাছে টিভি চ্যানেলের কর্মীরা ব্রোকারদের ধরে পৌঁছে গিয়েছেন। যেখানে গিয়ে এই সংস্থার প্রতিনিধিদের পক্ষ থেকে সেই তৃণমূলের নেতা, মন্ত্রী, বিধায়কদের বলা হয়েছে, আপনাদের আশীর্বাদ চাই।” যার পরেই তাদের টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। যে ঘটনায় তৃণমূলের নেতা, মন্ত্রী, বিধায়কদের সাথে সেই সংস্থার কর্মীদের কথোপকথনের ভিডিও বিজেপির রাজ্য দপ্তরের প্রজেক্টরে দেখানো হয়। আর এরপরই দেখা যায় যে তৃণমূলের বেশ কিছু নেতা, মন্ত্রী প্রকাশ্যেই তাদের কাছে টাকা নিচ্ছেন।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অতীতে নারদ কান্ডের সময়েও এভাবে বিজেপি তাদের রাজ্য দপ্তর থেকে ভিডিও দেখিয়ে তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রীদের বিপাকে ফেলেছিল। আর এবার পৌরসভা নির্বাচনের মুখে আবার একটি স্টিং অপারেশনের ভিডিও ফাঁস করে বিজেপি তৃণমূলকে চরম বেকায়দায় ফেলে দিল বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের। তবে ভিডিওতে সবাই যে প্রকাশ্যে টাকা নিতে চেয়েছেন, এমনটা নয়। যেমন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ এবং তাপস রায় প্রথমে টাকা না নিলেও, অডিওতে শোনা গেছে, তাপসবাবু সেই টাকা অন্য একজনকে দেওয়ার কথা বলেছেন।

একইভাবে মন্ত্রী মলয় ঘটকও টাকার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু পরবর্তীতে বিজেপির সেই ভিডিওতে দেখা গেছে যে, মলয় ঘটকের বাড়িতে সেই টিম পৌঁছে যাচ্ছে। ফলে অনেকেই ব্যাপারটি আঁচ করে প্রথমে টাকা নিতে না চাইলেও, পরবর্তীতে তারা যে টাকা নিয়েছেন, তা বিজেপি তাদের এই ভিডিওর মধ্য দিয়ে প্রমাণিত করার চেষ্টা করেছে বলে দাবি একাংশের। এদিন এই ভিডিও ফাঁস করে তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

তিনি বলেন, “এত বড় দূর্নীতি সামনে আসার পরে মন্ত্রী, বিধায়কদের বিরুদ্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ব্যবস্থা নিতেই হবে। অভিযুক্ত মন্ত্রীদের পদ থেকে সরানোর দাবি আমরা জানাচ্ছি। এক সপ্তাহ সময় দিচ্ছি। তার মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদি কোনো পদক্ষেপ না করেন, তাহলে আমরা রাস্তায় নামব। রাজ্যপালের কাছে যাব। সেখানে গিয়ে মন্ত্রী বিধায়কদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাব। এই ভিডিও ফুটেজ নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যদি কোনো সন্দেহ থাকে, তাহলে সিবিআইকে দিয়ে তদন্ত করান।” তবে বিজেপির তরফ থেকে তৃণমূলের নেতা, মন্ত্রী, বিধায়কদের টাকা নেওয়ার ভিডিও ফাঁস করলেও, তৃণমূলের তরফে এখনও পর্যন্ত এই ব্যাপারে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

কিন্তু ভিডিওতে তাপস রায়কে দেখতে পেলেও, টাকা নেওয়ার কথা সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করেছেন তৃণমূলের এই হেভিওয়েট মন্ত্রী। এদিন তিনি বলেন, “যদি টাকা নেওয়া প্রমাণ করতে পারে, তাহলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব।” তবে যে যাই বলুন না কেন, পৌরসভা নির্বাচনের আগে এখন বিজেপির তরফ থেকে প্রকাশিত শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীদের প্রকাশ্যে টাকা নেওয়ার ভিডিও কতটা সত্যি এবং এই ভিডিও তৃণমূলকে কতটা অস্বস্তিতে ফেলে, সেদিকেই তাকিয়ে গোটা রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!