এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলের সাধের সংখ্যালঘু ভোটেও বড়সড়থাবা বসলো গেরুয়া শিবির – জানুন বিস্তারিত

তৃণমূলের সাধের সংখ্যালঘু ভোটেও বড়সড়থাবা বসলো গেরুয়া শিবির – জানুন বিস্তারিত

লোকসভার ভোটে এরাজ্যে অভূতপূর্ব ফল করার পর বিজেপির লক্ষ্য বিধানসভা ভোট৷ তার জন্য রীতিমতো এরাজ্যে সাজো সাজো রব ৷ এতদিন পর্যন্ত তৃণমূলের ভোট বাক্সের অন্যতম অংশ ছিল সংখ্যালঘু ভোট৷ বিজেপি এবার সেখানেও ভাগ বসালো৷

এ রাজ্যে বিজেপি সদস্য সংখ্যা 80 লাখ ছাড়িয়ে গেছে৷ পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি সদস্য সংখ্যা বাড়ানো এখনো পর্যন্ত সবথেকে বেশি এগিয়ে৷ এবার তারা নজর দিয়েছে সংখ্যালঘু ভোটারদের দিকে৷ বিজেপির দাবি পশ্চিমবঙ্গ থেকে এখনো পর্যন্ত প্রায় দু’লাখ সংখ্যালঘু সম্প্রদায় ভুক্ত মানুষ বিজেপিতে যোগদান করেছে৷

যদিও লোকসভা ভোটে সংখ্যালঘুদের প্রাপ্ত ভোট সংখ্যার নিরিখে বিজেপি বেশ কিছুটা পিছিয়ে৷ কিন্তু বর্তমানে নরেন্দ্র মোদির ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’ নীতি কে মাথায় নিয়ে বিজেপি এরাজ্যে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মোট 30 শতাংশ তাদের দিকে চাইছে৷ আগামী শুক্রবার এ ব্যাপারে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নিয়ে এক বৈঠকে বসতে চলেছেন বিজেপির পর্যবেক্ষক শিবপ্রকাশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আগামী শুক্রবার বৈঠকের গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি হল সংখ্যালঘু সংগঠন তৈরি এবং কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে আলোচনা৷ আপাতত বিজেপি তাদের সংখ্যালঘু সদস্যদের দিয়ে বাংলার মুসলমান সমাজকে কাশ্মীর ইস্যুর ইতিবাচক দিক বোঝাতে৷ আগামী শুক্রবারের বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন বিজেপি সংখ্যালঘু মোর্চার সভাপতি আলী হাসান যিনি 2016 সালের নাটাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন এবং সাথে থাকবেন বিজেপির বাকি নেতারাও৷এদিন সংখ্যালঘু মোর্চার সভাপতি আলী হোসেন জানান ‘রাজ্যের দু’লাখ সংখ্যালঘু সদস্য হয়েছে শুক্রবার বৈঠক হবে৷’

এ রাজ্যে বিজেপির সদস্য সংগ্রহের অভিযান শেষ হয়েছে 22 আগস্ট৷ এখনো পর্যন্ত বিজেপিতে যোগদান কারী সদস্যের সংখ্যা 77 লাখের বেশি বিজেপির লক্ষ্যমাত্রা অনেকাংশে পূরণ করতে পেরেছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ এখনো পর্যন্ত পর্যন্ত বিজেপি সদস্য সংগ্রহে জলপাইগুড়ি জেলাকে প্রথম বলা হচ্ছে।পশ্চিমবঙ্গে পাঁচটি জেলা লক্ষ্যমাত্রার 50 শতাংশের বেশি সদস্য জোগাড় করেছে। দেশের মধ্যে সর্ব সংখ্যক সদস্য সংগ্রহ হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ থেকে।

তবে কেন্দ্রীয় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের নির্দেশ মতো বিজেপি সদস্য সংখ্যা বাড়ানোর কাজ আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে পশ্চিমবঙ্গের সাথে সাথে কেরল, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, উড়িষ্যা, অসম, ত্রিপুরা এবং অন্যান্য রাজ্যেও চলবে।

তবে এবার বিজেপি 2021 এর বিধানসভা ভোট কে মাথায় রেখে যেভাবে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে কাজে লাগাতে চলেছে, তাতে এরাজ্যে তৃণমূল সরকার বিপাকে পড়বে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!