এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > এবার রাজ্য সরকার সমেত তৃণমূলের বিরুদ্ধে কার্যত বিদ্রোহ ঘোষণা করলো তৃণমূল

এবার রাজ্য সরকার সমেত তৃণমূলের বিরুদ্ধে কার্যত বিদ্রোহ ঘোষণা করলো তৃণমূল

Priyo Bandhu Media


তৃণমূল নেতা খুনে ফুঁসছে তৃণমূল কর্মীরা,২০১৬ সালে বাঁকুড়ার রাইপুরের দাপুটে তৃণমূল নেতা অনিল মাহাতো দলীয় কার্যালয় থেকে বাড়ি যাওয়ার সময় দুষ্কৃতীদের করা গুলিতে খুন হন। এরপর অনিল মাহাতোর স্ত্রী সুলেখা মাহাতো রাইপুর পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ শান্তিনাথ মণ্ডল সহ ছ’জনের নাম থানায় অভিযোগ করেন এবং তার ভিত্তিতে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে কিন্তু কোনো প্রমান না মেলায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে আবার রাইপুরের যুব তৃণমূল নেতা সনত্‍ সিং, অনিল মাহাতোর গাড়ির চালক জগন্নাথ নামাতা ও এক সিপিআই(এম) নেতাকে পুলিশ গ্রেফতার করে। কিন্তু তারাও আবার জামিনে ছাড়া পেয়ে যায়। যদিও অনিল মাহাতো খুনের পর তাঁর বাড়িতে মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও দলত্যগী মুকুল রায় এসে অপরাধীদের শাস্তির কথা বলে গিয়েছিলেন। কিন্তু আজও অপরাধীরা শাস্তি পায়নি। তছাড়া স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন যে অপরাধীরারা দ্রুত শাস্তি পাবে তার পরেও অবস্থার কিছু পরিবর্তন হয় নি বলেই অভিযোগ উঠেছে। আর তাই ‘খুনিদের ফাঁসি’র দাবীতে জোরদার আন্দোলনে নামল ‘অনিল মাহাতো স্মৃতি রক্ষা কমিটি’। তৃণমূল সমর্থিত স্মৃতি রক্ষা কমিটির সদস্যরা রবিবার রাইপুর বাসস্ট্যাণ্ডে নেতাজী মূর্তি পাদদেশে ধর্ণায় বসেন।তাদের নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, ‘অনিল মাহাতোর খুনীরা রাজনৈতিক শেল্টার পাচ্ছে’।তারা আরো অভিযোগ করেন যে খুনিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে কিন্তু তাদের কোনো শাস্তি হচ্ছে না। জঙ্গলমহলের তৃণমূল নেতা পরিমল মাহাতো বলেন, অনিল মাহাতো ছিলেন জঙ্গল মহলের মানুষের নয়নের মণি। তাই তাঁর খুনীদের দ্রুত শাস্তির জন্য এই জঙ্গল মহলের মানুষ আজ একজোট হয়েছে।তিনি আরো দাবি করেন যে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরও কেন অপরাধীরা শাস্তি পাচ্ছে না। তিনি হুঁশিয়ারি দেন যে অপরাধীরা দ্রুত শাস্তি না পেলে আন্দোলন আরো জোরদার হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!