এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রীর আদর্শে অনুপ্রামিত হয়ে দলের জন্য কাজ করার নিদান টিএমসিপির সভানেত্রীর

মুখ্যমন্ত্রীর আদর্শে অনুপ্রামিত হয়ে দলের জন্য কাজ করার নিদান টিএমসিপির সভানেত্রীর

Priyo Bandhu Media


গত বছরের মতো এবছরও কলেজে কলেজে টাকার বিনিময়ে ছাত্র ভর্তি প্রক্রিয়া চালানোর অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ টিএমসিপির বিরুদ্ধে। শিক্ষামন্ত্রী এমনকি খোদ মুখ্যমন্ত্রীর নিষেধকে আগ্রাহ্য করে অবাধে চলছে এ দুর্নীতিমূলক কাজ। দিন দিন এই প্রতারণার কাজ বেড়েই চলেছে একরকম। যার ফলে রীতিমতো প্রভাবিত হচ্ছে শাসকদলের ভাবমূর্তি। তাই এ ব্যাপারে কড়া পদক্ষেপ নিতে টিএমসিপির সভানেত্রী জয়া দত্ত ছাত্র ইউনিয়নের শীর্ষ নেতাদের আহ্বান জানালেন একটি বৈঠকে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জানা যাচ্ছে,সভানেত্রীর ডাকে সোমবার মধ্য কোলকাতার মোট ২৮ টি কলেজের ছাত্রনেতারা যোগ দিয়েছিলেন কোর কমিটির বৈঠকে। সভানেত্রী এদিন সাফ কথায় জানিয়ে দিলেন যে,তৃণমূলে থেকে দুর্নীতিমূলক কাজ করা যাবে না। দলীয় ভাবমূর্তি নষ্ট হয় এমন কোনো কাজ করা যাবে না। এরপরও যদি করার ইচ্ছে থাকে তাহলে তাঁরা যেন অবিলম্বে অন্য রাজনৈতিক দল বেছে নেন। শুধু এই বৈঠকই শেষ নয়, দক্ষিণ কোলকাতার কলেজগুলোর সঙ্গেও বৈঠক হয়ে গেলো এদিন। এতে কলেজে ছাত্র পরিষদের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সমস্ত কলেজের ইউনিয়নরাও। এছাড়া ৪ জুলাই উত্তরবঙ্গের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে বসবেন নেত্রী। এদিনের বৈঠকে সভানেত্রী আরো স্পষ্ট করে জানান যে দলীয় পতাকা কারোর ব্যক্তিগত সম্পত্তি নয়। দলের স্বার্থকেই আগে গুরুত্ব দিতে হবে দলে থাকতে গেলে। কারণ খোদ মুখ্যমন্ত্রীও ছাত্র সমাজকে বেশি গুরুত্ব দেন। তাই জোড়াফুল দলের কার্যভার যাদের যাদের উপর রয়েছে তাঁদের সকলেরই উচিৎ মুখ্যমন্ত্রীর আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে দলের জন্যে কাজ করা।

উল্লেখ্য, ভর্তিপ্রক্রিয়া নিয়ে তোলাবাজি করার জন্য বেশ কয়েকজন গ্রেফতারও হয়েছেন ইতিমধ্যেই। দুদিন আগেই জয়পুরিয়ার কলেজের তৃণমূল তরফের ছাত্রনেতা তিতান সাহাকে তোলাবাজির অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। এখনো তিনি পুলিশি হেফাজতে রয়েছেন। এসব ঠকবাজ,প্রতারককে উদ্দেশ্যে সভানেত্রী পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন যে এঁদের দলে আর কোনো ঠাঁই মিলবে না। দল থেকেই ইতিমধ্যেই বহিষ্কার করা হয়েছে তাঁদের। এছাড়া আরো জানালেন যে, আগামী দিনে তোলাবাজির সঙ্গে টিএমসিপি যেসব সদস্যের নাম জড়াবে তাঁদের জন্য কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে দলের তরফ থেকে।

এদিকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও উক্ত দুর্নীতিমূলক কাজের ক্রমবর্ধমান অবস্থা দেখে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। মুখ্যমন্ত্রীর বারবার বারণ সত্ত্বেও তোলাবাজি নিয়ে অভিযোগ হ্রাস না পাওয়াতেও অসন্তোষে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এদিন নবান্নে যাওয়ার পথে একরকম সারপ্রাইজ ভিজিট করে গেলেন  তিনি আশুতোষ কলেজে। ওদিকে, পার্থবাবুও সকাল থেকেই কলেজে কলেজে ঘুরে ছাত্রছাত্রী এমনকি অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলেছেন,খোঁজ নিয়েছেন দুর্নীতিমূলক কাজের। প্রশাসনের তরফ থেকে এতোকিছু করার পরও কলেজে কলেজে তোলাবাজি কমবে কিনা তা আপাতত প্রশ্নচিহ্নের মুখে। তবে এ ব্যাপারে ইতিবাচক কোনো পরিবর্তন না পাওয়া অব্দি বেশ চাপের মুখেই আছে টিএমসিপি সহ খোদ নবান্ন কর্তারা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!