এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > আর দেরি করতে রাজি নয় – তৃণমূল কংগ্রেসের লোকসভার লক্ষ্যে কর্মসূচি শুরু হয়ে যাচ্ছে আগামী সপ্তাহ থেকেই

আর দেরি করতে রাজি নয় – তৃণমূল কংগ্রেসের লোকসভার লক্ষ্যে কর্মসূচি শুরু হয়ে যাচ্ছে আগামী সপ্তাহ থেকেই

নতুন বছরের শুরু থেকেই লোকসভা ভোটের প্রস্তুতিতে নড়েচড়ে বসেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল। আগামী ১২ জানুয়ারি থেকেই বালুরঘাটের থানা মোড়ে প্রকাশ্যে জনসভার মঞ্চ থেকেই ১৯’এর নির্বাচনের দামামা বাড়াতে শুরু করবে তাঁরা। ওই সংশ্লিষ্ট সভায় রেকর্ড পরিমান লোক জমায়েত করার লক্ষ্যমাত্রা আগেই নির্ধারণ করে দিয়েছেন তৃণমূল জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র।

আপাতত ১৯’এর ব্রিগেডের এই প্রস্তুতি সভা নিয়ে কর্মতৎপরতা তুঙ্গে রয়েছে দলের উপরতলার কর্মীদের মধ্যে। একযোগে কাজে নেমেছেন জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র সহ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা, শঙ্কর চক্রবর্তী, প্রশান্ত মিত্রের মতো জেলার প্রথম সারির নেতারা।

তৃণমূলের ওই সভায় পুরমন্ত্রী তথা দলের দক্ষিণ দিনাজপুরের পর্যবেক্ষক ফিরহাদ হাকিম সহ রাজ্য স্তরের একঝাঁক নেতানেত্রীদের উপস্থিত হওয়ার কথা রয়েছে। লোকসভা ভোটের আগে জেলার দলীয় কর্মী সমর্থকদের কী বার্তা দিয়ে যান তৃণমূলের রাজ্যস্তরের নেতা-মন্ত্রীরা, সেটা শোনার জন্যেই মুখিয়ে রয়েছেন জেলাবাসী।

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, ব্রিগেড সমাবেশকে সামনে রেখে জেলা থেকে লক্ষাধিক লোক কোলকাতা নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে চূড়ান্ত ব্যস্ততা কয়েক মাস ধরেই রয়েছে দক্ষিণ দিনাজপুর। তার উপর ১২ জানুয়ারির তৃণমূলের সভাতেই কাতারে কাতারে লোক জমায়েত করে বিরোধীদের তাক লাগিয়ে দিতে চায় শাসকশিবির।

এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সভাপতি বিপ্লব মিত্র দাবী করেন,উত্তরবঙ্গের আটটি জেলার মধ্যে এই জেলা থেকেই সবথেকে বেশি লোক নিয়ে যাওয়া হবে ব্রিগেডে। আর সেজন্যে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিকে সফল করতে ১২ জানুয়ারি জেলায় মিনি ব্রিগেড সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। এই সমাবেশে রাজ্যস্তরের হেভিওয়েট দলীয় মন্ত্রীদের উপস্থিতিতে কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে উৎখাত করার ডাক দেওয়া হবে।

তবে এই সভার প্রস্তুতিকে কেন্দ্র করে বেশ কিছু জায়গায় তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে এসেছে। এ নিয়ে রীতিমতো উদ্বিগ্ন রয়েছেন জেলার শীর্ষনেতারা৷ তাই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে রোখার কারণে এবং সংগঠনকে পোক্ত করার বার্তা দিতে থানা মোড়ে সভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা তৃণমূল কংগ্রেস।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত,দলীয় সূত্রের খবর, লোকসভা ভোটের পার্থী হওয়া নিয়ে দক্ষিণ দিনাজপুরের বর্তমান সংসদ সদস্য অর্পিতা ঘোষ এবং জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্রের শিবিরের মধ্যে মন কষাকষি চলছে। কেউ অর্পিতা ঘোষকে সমর্থন করছে,কেউ আবার দাবী করছে বিপ্লব মিত্রের হাত ধরেই এলাকায় উন্নয়ন আসবে। এই ইস্যুতে কেন্দ্র করে জেলা তৃণমূল সংগঠন দুটি শিবিরে ভাগ হয়ো গিয়েছে।

সম্প্রতি,বালুরঘাট শহরের বিভিন্ন জায়গায় নতুন বছরের শুভেচ্ছা বার্তা সহ ব্যান্যারকে ঘিরেও গোষ্ঠী কোন্দল সামনে এসেছে। ওইসব ফ্লেক্সের কয়েকটিতে অর্পিতা ঘোষ, বাচ্চু হাঁসদা ও শঙ্কর চক্রবর্তী ছবি একসঙ্গে দেখা গিয়েছে। কয়েকটিতে আবার বিপ্লব মিত্রে একার ছবিও ফ্লেক্সে রয়েছে।

এর জেরে লোকসভা ভোটে কাকে প্রার্থী করা হবে,তা নিয়ে নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে জেলাবাসীর মধ্যে। এই প্রেক্ষিতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের মুখে ছাই দিতে তৃণমূলের রাজ্যস্তরের নেতা-মন্ত্রীরা ১২ জানুয়ারির মঞ্চ থেকে কী বার্তা দেন,তা শোনার জন্যে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। ১২ জানুয়ারির সভা সফল হলেই ১৯’ ব্রিগেড সমাবেশ সফল হওয়ার ইঙ্গিতও হাতেনাতে পাওয়া যাবে,এমনটাই মনে করছেন তৃণমূলের অভিজ্ঞমহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!