এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রাখিবন্ধনে রবীন্দ্রসংগীত বন্ধ করে দুই তৃনমূল নেত্রীর চটুল নাচ, তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

রাখিবন্ধনে রবীন্দ্রসংগীত বন্ধ করে দুই তৃনমূল নেত্রীর চটুল নাচ, তীব্র অস্বস্তিতে শাসকদল

রাখিবন্ধন উৎসব পালন করতে গিয়ে এবার ‘অপসংস্কৃতির’ অভিযোগে অভিযুক্ত রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। এই উৎসব পালনের অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যে শাসকদলের দুই নেত্রীর সিনেমার কায়দায় ‘চটুল’ নাচের অভিযোগ উঠলো। প্রসঙ্গত রবিবার সন্ধ্যায় রাখি পূর্ণিমার দিন হাওড়ার দাশনগরের বেলগাছিয়ার রথতলা এলাকায় স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

সেই অনুষ্ঠানে নাচ-গান সহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অভিযোগ এই অনুষ্ঠান চলাকালীনই সেখানে হঠাৎ করে মাইকে চলতে থাকা রবীন্দ্রসঙ্গীত বন্ধ করে বাণিজ্যিক হিন্দি ছবির গান বাজানো শুরু হয়। আর মাইকে ‘সরগম’ ছবির গান ‘ডাফলিওয়ালে’ শুরু হতেই হাওড়ার ন’নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল নেত্রী কাবেরী ঘোষ ও ওয়ার্ডের ভাইস প্রেসিডেন্ট মালা বন্দ্যোপাধ্যায় মঞ্চে উঠে পড়েন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

শুধু মঞ্চে উঠলেনই না এই দুই স্থানীয় জনপ্রতিনিধি গানের তালে তালে বিভিন্ন শরীরী ভঙ্গিমায় নাচও শুরু করে দিলেন বলে অভিযোগ। এই অনুষ্ঠাণে উপস্থিত কোনো দর্শক জনপ্রতিনিধিদের নাচের দৃশ্যের ভিডিও করে নেন এবং অল্প সময়ের মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায় এই ভিডিও ক্লিপিং। এই বিষয়টি স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের নজরে আসতেই তাঁরা জেলা সভাপতি অরূপ রায়কে এদিনের ঘটনার বিশদে বর্ণনা করেন।

দুই নেত্রীর এই কীর্তির খবর পেয়ে কার্যতই ক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠেন দলের জেলা সভাপতি। অরূপ রায় জানালেন, এই রাখি বন্ধনের অনুষ্ঠাণ একটি সামজিক অনুষ্ঠান। সেখানে দলের তরফে সাংস্কৃতিক অনু্ষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়েছে। দলনেত্রী তথা মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং রাজ্যের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জনসংযোগ বাড়াতে বলেছেন। সেই মঞ্চে কখনই স্থানীয় দুই জনপ্রতিনিধির এই চটুল নাচ দল অনুমোদন করেনা। তাই অবিলম্বেই এই দুই নেত্রীকে অপসারনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!