এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ‘মুকুলদার বয়স হয়েছে, ভুলভাল বলে’, সামনে এল বিস্ফোরক অভিযোগ

‘মুকুলদার বয়স হয়েছে, ভুলভাল বলে’, সামনে এল বিস্ফোরক অভিযোগ

রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে একসময়ের অঘোষিত দুনম্বর নেতা তথা বর্তমানে দাপুটে বিজেপি নেতা মুকুল রায় প্রসঙ্গে গতকাল তাঁর একসময়ের ‘ভাবশিষ্য’ জলপাইগুড়ি সদর ব্লকের প্রভাবশালী তৃণমূল নেতা তথা বারোপেটিয়ার বিদায়ী প্রধান কৃষ্ণ দাস বলেন, মুকুলদার বয়স হয়ে গেছে, বয়স হলে যা হয়, একটু ভুলভাল বলে। মুকুলদার হাত ধরে ২০১৪ সালের ৪ জানুয়ারি তৃণমূলে আসি। কিন্তু, সিপিআইএম ত্যাগ করেছিলাম মমতা ব্যানার্জির উন্নয়ন দেখে। সেই উন্নয়ন বারোপেটিয়ায় করে দেখিয়েছি। আমার দলত্যাগ উন্নয়নের জন্য, মুকুলদার দলত্যাগ চেয়ারের জন্য। তৃণমূলে থাকলে হয়ত বলতেন সাবাস কৃষ্ণ সাবাস, বিজেপিতে চলে গেছেন বলে গুন্ডা বলছেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে জলপাইগুড়ি জেলার বিজেপির নেতা দ্বীপেন প্রামাণিককে প্রাণে মারার চেষ্টা ও গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে। সেদিন সকাল থেকে নির্বাচনের কাজে উত্তরবঙ্গের কো-কনভেনার দ্বীপেন প্রামাণিকের বেলাকোবা ও শিলিগুড়ির বিভিন্ন এলাকায় যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল। দ্বিপেনবাবু সাধারণত যে গাড়িতে প্রত্যেকদিন চড়ে স্থানীয় এলাকা ঘোড়েন, সেদিন ঐ গাড়ি ব্যবহার না করে অন্য গাড়িতে যান। আর দ্বীপেনবাবুর গাড়ি নিয়ে দলীয় কর্মীরা জলপাইগুড়ি যাচ্ছিলেন। অভিযোগ ওঠে দুপুর তিনটে নাগাদ জলপাইগুড়ি রংধামালি এলাকায় দ্বিপেনবাবুর সেই গাড়িতে হামলা চালানো হয়।

বিজেপির তরফে অভিযোগ জানানো হয়, এই হামলা স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কৃষ্ণ দাসের নেতৃত্বে ও মদতে হয়েছে। ঐ গাড়ির চালক ও যাত্রীদের আটকে রেখে মারধর ও গাড়ি ভাঙচুর করা হয় বলে বিজেপির তরফে অভিযোগ জানানো হয়। এই ঘটনা প্রসঙ্গেই এলাকার ডাবগ্রামে বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেছিলেন, কৃষ্ণ দাস সিপিআইএম করতেন। গত লোকসভা নির্বাচনে আমার হাত ধরে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। তিনি নাকি মোটরবাইক নিয়ে বড় মস্তান হয়েছেন। উনি যেমন সিপিআইএম’ এ থাকতে পারেননি, আগামীদিনে তৃণমূলেও থাকতে পারবেন না। সুতরাং যা কববেন ভেবেচিন্তে করবেন। আর মুকুলবাবুর এই মন্তব্যের জেরেই এদিন পালটা আক্রমন করেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা কৃষ্ণ দাস বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!