এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাজ্য থেকে ৪২ আসন পেলেই ‘দূর্গারূপী’ তৃণমূলনেত্রী ‘অসুররূপী’ মোদী সরকারকে বড় করবে! দাবি প্রাক্তন মন্ত্রীর

রাজ্য থেকে ৪২ আসন পেলেই ‘দূর্গারূপী’ তৃণমূলনেত্রী ‘অসুররূপী’ মোদী সরকারকে বড় করবে! দাবি প্রাক্তন মন্ত্রীর

মঞ্চ থেকেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ে স্তুতি গাইলেন প্রাক্তন মন্ত্রী। কৃষি ও অন্যান্য ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করার পাশাপাশি বিজেপিকে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ শানালেন কিষান ক্ষেত মজদুর সংগঠনের রাজ্য সভাপতি বেচারাম মান্না।

গতকাল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় বংশীহারির রশিদপুরে কিষাণ ক্ষেত মজদুর সংগঠনের তরফ থেকে একটি সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেই সভায় বক্তব্য রাখতে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসার পুল বাঁধলেন বেচারাম মান্না। কৃষকদের যে সুবিধা পশ্চিমবঙ্গ সরকার দিচ্ছে তার মর্যাদা ১৯’এর লোকসভা ভোটের ময়দানে দেওয়ার বার্তা দিলেন তিনি।

পাশাপাশি এটাও জানালেন,এ রাজ্যে বামেদের যে অবস্থা করেছে তৃণমূল ঠিক একই পরিনতি হবে বিজেপিরও। আগামী ৫০ বছরেও বামেরা আর এ রাজ্যের ক্ষমতায় আসতে পারবে না আর বিজেপির কোনো নামগন্ধ থাকবে না বাংলায়,এমনটাই দাবী করলেন তিনি। রাজ্যের চাষীদের উদ্দেশ্য করে গর্জে উঠে বললেন, “এরাজ্যে আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ৪২টি আসন তুলে দেব। তিনি সেই অস্ত্র দিয়েই দুর্গা রূপে অসুররূপী মোদি সরকারকে পরাস্ত করবেন। দিল্লির ক্ষমতা আমরাই দখল করব।”

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

পাশাপাশি দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করে জানালেন,মোদীর ‘আচ্ছেদিন’ কেমন এসেছে তা আমজনতা মুদির দোকানে গেলেই হাড়ে হাড়ে বুঝতে পারছেন এখন। পেট্রোপন্যের দাম বাড়িয়ে সাধারণ মানুষকে চরম দুর্ভোগে ফেলেছে মোদী৷ তাই ‘২০১৯,বিজেপি ফিনিস’ এই শ্লোগান তুলে বিজেপিকে দেশছাড়া করার বার্তা দিলেন তিনি।

পাশাপাশি, দলীয় নেতা-কর্মীদের লোকসভা ভোটের আগে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শুনে জনসংযোগ বাড়ানোর পরামর্শও দেন তিনি। উক্ত সভাতে বেচারামবাবুর পাশাপাশি জেলা ক্ষেত মজদুর সংগঠনের জেলা সভাপতি মফিজউদ্দিন আহমেদ সহ সংগঠনের জেলা ও ব্লক নেতৃত্ব উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আগামী ৪ ফেব্রুয়ারী কোলকাতার ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজ্য সম্মেলন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল কিষান ক্ষেত মজদুর সংগঠন। সেই সম্মেলনকে সফল করার পাশাপাশি ১৯’এর ব্রিগেড সমাবেশকে সার্থক করে তোলার ডাকও দেওয়া হল এদিনের সভা থেকে।

অন্যদিকে, উত্তর দিনাজপুর জেলার হেমতাবাদের থানা ময়দানে আয়োজিত সংগঠনের সভায় উপস্থিত হয়ে তিনি একইভাবে কৃষকদের স্বার্থে চালু করা রাজ্যসরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের সুফলগুলো তুলে ধরলেন। সভায় অভ্যাগতদের এটাও বোঝালেন,মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর ক্ষেতমজুরদের জন্যে কতোটা উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। সেই উন্নয়নমূলক কাজ গুলোই জেলার প্রত্যন্ত এলাকার মানুষের মধ্যে তুলে ধরাই এই সংগঠনের মূল কর্তব্য,এমনটাই জানালেন তিনি।

পাশাপাশি সংগঠনের কর্মীদের উদ্দেশ্য করে বললেন,”মোবাইলে নেতাদের সঙ্গে ছবি তুললেই হবে না। বর্তমান রাজ্য সরকারের নানা উন্নয়নমূলক কাজ মোবাইলের মাধ্যমে ছয়লাপ করে দিতে হবে।” এছাড়া শস্যবিমা,কিষাণ ক্রেডিট কার্ড সহ যেকোনো রকমের প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ক্ষতিপূরণ,কৃষিকাজে উৎপাদনের খরচ কমানোর স্বার্থে উন্নত যন্ত্রপাতি দেওয়া,সঠিক সময়ে কৃষকদের ঘরে বীজ পৌছে দেওয়া-এসবের মাধ্যমে সার্বিক উন্নতিই মমতা ব্যানার্জী সরকারের মূল লক্ষ্য। এমনটাই সাধারণ মানুষকে বোঝানোর পরামর্শ দিলেন তিনি।

এর পাশাপাশি বহু বিতর্কিত বিজেপি প্রস্তাবিত রথ নিয়ে গেরুয়াশিবিরকে কটাক্ষ করতে ভোলেন না তিনি। বলেন,”আমরা ছোটবেলায় যে রথের কাহিনী শুনেছি, বিজেপির রথ সেই রথ নয়। সেখানে এসি রুম রয়েছে।”

হেমতাবাদের সভায় বেচারামবাবুর পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন দলের উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি অমল আচার্য, জেলা পরিষদের সভাধিপতি কবিতা বর্মন, সংগঠনের জেলা সভাপতি আনিসুর রহমান সহ অন্যান্যরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!