এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূল নেতাদের ‘টাকা চোর’ থেকে জেলাশাসককে শাসকদলের ‘জেলা সভাপতি’ বিস্ফোরক বিজেপি সাংসদ – জেনে নিন বিস্তারিত

তৃণমূল নেতাদের ‘টাকা চোর’ থেকে জেলাশাসককে শাসকদলের ‘জেলা সভাপতি’ বিস্ফোরক বিজেপি সাংসদ – জেনে নিন বিস্তারিত

রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ তুলে তাদের রীতিমতো কোণঠাসা করে ফেলেছে। এবার বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ মুখ খুললেন তৃণমূল শাসকের বিরুদ্ধে।

কয়লা খনি থেকে কয়লা উত্তোলনের জন্য জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছিল বাঁকুড়ার বড়জোড়া বাগুলিয়াতে। অন্যদিকে, কয়লা উত্তোলনের জন্য মাটির নিচে যে বিস্ফোরণ হয় সেই বিস্ফোরণে বেশ কিছু মানুষ গৃহহারা হন। কিন্তু কোলিয়ারির জমিহারা ও বাস্তুচ্যুতদের কোনরকম ক্ষতিপূরণ বা চাকরি এখনো পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। এর দাবিতে বাঁকুড়ার বড়জোড়া কয়লা খনিতে এদিন অবস্থান-বিক্ষোভে বসলেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। তার সাথে ছিলেন দলের অন্যান্য নেতা ও কর্মীরা এবং কয়লাখনিতে জমি হারানো, বাস্তুহারা অসংখ্য মানুষ।

এই অবস্থান মঞ্চ থেকে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ সরাসরি তৃণমূল শাসকদল ও বাঁকুড়া জেলা শাসক কে আক্রমণ করেন অভিযোগের ভিত্তিতে। এদিন সৌমিত্র খাঁ অভিযোগ জানান, স্থানীয় গ্রামে কয়লা তোলার জন্য যে সংস্থাটি এসেছিল, তারা জোর করে জমি দখল করে নেয়। তবে জমির দলিলে 22 লক্ষ টাকা করে দেওয়ার দাবি থাকলেও জমি হারাদের হাতে এসেছে 14 লক্ষ টাকা। তাঁর দাবি, বাকি 8 লক্ষ টাকা তৃণমূলেরই কিছু নেতা চুরি করেছেন। এছাড়াও তিনি সাংবাদিকদের জানান, ট্রান্স দামোদর কোলিয়ারি তে বিডিও প্রশাসনিক বৈঠকে বিরোধী দলের স্থানীয় বিধায়ক ও সাংসদ কে বাদ দিয়ে দিয়েছেন। মিটিং করছেন তৃণমূলী গুন্ডাদের নিয়ে। এই ঘটনায় সাংসদ সৌমিত্র খাঁ তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এই ঘটনায় বড়জোড়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তৃণমূলের কাজল পোড়েল জানান, কোলিয়ারি সংক্রান্ত কমিটি থেকে বিরোধীদলের স্থানীয় বিধায়ক ও সাংসদকে বাদ দেওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণরূপে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হয়েছে। এবং ক্ষতিপূরণের বিষয়টি ব্লক ও জেলা কমিটির সিদ্ধান্ত মেনেই হয়েছে।

তবে এই বিষয়ে বাঁকুড়া জেলা শাসকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি স্পষ্ট ভাষায় পুরো ব্যাপারটি অস্বীকার করেন।

এই ঘটনায় বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে। এবং তিনি জানিয়েছেন, দাবি না মেটা পর্যন্ত অবস্থান বিক্ষোভ চলতে থাকবে।

যদিও এদিন বিজেপির তোলা যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। স্থানীয় তৃণমূল দাবি জানিয়েছে, বিজেপি অবস্থান বিক্ষোভ এর মাধ্যমে এলাকায় গন্ডগোল বাঁধাতে চাইছে। তবে এদিন কয়লা খনি কর্তৃপক্ষ যাবতীয় সমস্যার আলোচনা করে তার সমাধান করবার আশ্বাস দিয়েছেন।

Top
error: Content is protected !!