এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তোলাবাজিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দলীয় সদর দপ্তরেই পোস্টার! অস্বস্তিতে শাসকদল

তোলাবাজিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দলীয় সদর দপ্তরেই পোস্টার! অস্বস্তিতে শাসকদল

দলীয় অস্বস্তিকে বাড়িয়ে ফের তোলাবাজির অভিযোগে কাঠগড়ায় তৃণমূল। দার্জিলিং জেলা তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি নির্নয় রায় সহ দুই নেতার বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের হতেই শোরগোল পড়ে গেল উপত্যকায়।

নজর দেওয়ার মতো বিষয় হল,মুখ্যমন্ত্রীর উত্তরবঙ্গ সফরে উপস্থিত থাকাকালীন তৃণমূলের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠেছে যার কারণে দলীয় নেতৃত্বের উদ্বেগ আরো বেড়েছে। এবং এই অভিযোগের কথা প্রকাশ্যে আসতেই তাঁদের শাস্তির দাবীতে শিলিগুড়িতে দলীয় সদর দপ্তরে তৃণমূল কর্মীবৃন্দদের নামে ফ্লেক্স পড়ে। ফলত তীব্র হইচই বেঁধে যায় তৃণমূলের দলীয় অন্দরে। লোকসভা ভোটের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে এ ধরণের অভিযোগ সামনে আসায় স্বাভাবিকভাবেই দলীয় ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে।

তোলাবাজি দুর্নীতিতে তৃণমূল নেতাদের নাম যাতে না জড়ায়,তার জন্যে আগে থেকে দলীয় কর্মীদের হুঁসিয়ারী দিয়ে দিয়েছিলেন নেত্রী। তবুও কিছুতেই এই দুর্নীতিমূলক কর্মকাণ্ড থেকে তৃণমূলের নাম মোছা যাচ্ছে না। বারবার একই ধরণের ইস্যু সামনে আসায় উদ্বিগ্ন দলীয় হেভিওয়েট নেতারা।

জেলা সূত্রের খবর,এদিন দুপুরে শিলিগুড়ি জার্নালিস্ট ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে নির্নয় বাবু ঘটনার পেছনে নব্য তৃণমূলদের হাত রয়েছে বলেই দাবী করে বসলেন। বললেন,যুব তৃণমূলীয়রাই চক্রান্ত করে ওই ব্যবসায়ীকে দিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করিয়েছেন। এঁরাই পার্টি অফিসে ফ্লোক্স লাগিয়েছে। পুলিশ তদন্তে নামলেই সব রহস্য উদ্ধার হবে বলেই বিশ্বাস তাঁর। সঙ্গে তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেও দাবী করে তিনি জানালেন ঘটনার সঙ্গে তিনি কোনোভাবেই জড়িত নন। তিনি যে সত্যিই দোষী নন,তার প্রমাণ দিতে জামিনের জন্য আবেদন করতে আপত্তির সিদ্ধান্তটি জানালেন তিনি।

পাশাপাশি ওই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধেও মানহানির মামলা করেছেন তিনি এটাও বললেন। অন্যদিকে যার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা হয়েছে সেই ব্যবসায়ী জগন্নাথ যাদব বললেন,”১৮ বছর ধরে ব্যবসা করছি। হঠাৎ দু’মাস আগে আমার স্টলে তালা লাগিয়ে দেওয়া হয়। সেই স্টল ফিরে পাওয়ার জন্য আমার কাছে পাঁচ লক্ষ টাকা দাবি করা হয়েছে। এনিয়ে পুলিসে অভিযোগ করেছি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কারও কথায় কিছু করিনি। আমিও চাই ঘটনার বিচার হোক।” এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের দার্জিলিং জেলা কোর কমিটির সদস্য কৃষ্ণ পালকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, কারো বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানালে দল তদন্ত করে নিশ্চয়ই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। কে বা কারা পার্টি অফিসে এভাবে ফ্লেক্স মেরেছে তার তদন্ত চলছে বলেই জানালেন তিনি। গোটা ঘটনাটি নিয়ে চাপানউতোর তুঙ্গে রয়েছে দলীয় অন্দরে। উল্লেখ্য,মুখ্যমন্ত্রীর বর্তমানে এই বিতর্কিত ঘটনাটি হলেও এ ব্যাপারে তাঁর প্রতিক্রিয়া এখনো পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!