এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে মুকুল-কৈলাশের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তুললেন তৃণমূল নেতা

নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে মুকুল-কৈলাশের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তুললেন তৃণমূল নেতা

দলীয় প্রতীক পরে নাকি তৃণমূলের জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তী বুথে ঢুকেছিলেন এমনটাই অভিযোগ বিরোধীদের। আজ দ্বিতীয় দফায় ভোটগ্রহণ চলছে। আর তিনি সকাল থেকে ভোট তদারকি করছিলেন। আজ তাঁকে দেখা যায় সবুজ পাঞ্জাবিতে বিরোধীদের অভিযোগ পাঞ্জাবির বাঁদিকে তৃণমূলের প্রতীক লাগানো ছিল যার ফলে ভোটাররা প্রভাবিত হতে পারে। কারণ তিনি ওই প্রতীক পরে বুথের ভিতরেও ঢুকেছিলেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে তাঁর বিরুদ্ধে বিরোধীদের তোলা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি। এদিন তিনি দাবি করেন যে, তিনি এই পোশাক পরে বুথের ভিতরে যাননি। তিনি দাবি করেন যে তৃণমূল দল করে তিনি গর্বিত। আর তাই তিনি সবসময়েই দলীয় প্রতীক পরে থাকেন। ভোটারদের প্রভাবিত করার কোনো প্রশ্নই নেই তাঁরা তৃণমূলকেই ভোট দেবেন। ১০০ শতাংশের মধ্যে ২০০ শতাংশ জিতে রয়েছেন তাঁরা। তিনি শুধু যাতে সুস্থভাবে নির্বাচন হয় তার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

যদিও এর পরে বিজেপি নেতা মুকুল রায় ও বাংলার বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন। তিনি দাবি করেন যে, “কেন্দ্রীয় বাহিনী চালাচ্ছেন মুকুল রায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়। যা লজ্জার।যদিও এই নিয়ে এখনো মুকুল রায় বা বিজেপি কিংবা কৈলাশ বিজয়বর্গীর কাছ থেকে কোনো পতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!