এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূল নেত্রীর দল ভাঙানোর অভিযোগের জবাব দিলেন দিলীপ ঘোষ

তৃণমূল নেত্রীর দল ভাঙানোর অভিযোগের জবাব দিলেন দিলীপ ঘোষ

Priyo Bandhu Media

এদিন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলভাঙানোর অভিযোগের জবাব চাঁচাছোলা ভাঙ্গিতে দিয়ে রাজ্যরাজনীতিতে ফের উত্তাপ বাড়ালেন বিজেপি সুপ্রিমো দিলীপ ঘোষ। নেত্রীকে কড়া হুঁসিয়ারী দিয়ে বললেন,’বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ করার আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাবা উচিত উনি নিজে কী করেছেন। ওনার গোটা দলটাই তো অন্য দল ভাঙিয়ে তৈরি। উনি আবার বিজেপির দিকে আঙুল তোলেন কী করে।’

পাশাপাশি গর্জে উঠে আরো বললেন,বিজেপির এতোটাই টাকা রয়েছে যে ইচ্ছা করলে গোটা তৃণমূল দলটাকেই কিনে ফেলতে পারে। কিন্তু কেনাবেচার রাজনীতি বিজেপি কোনোদিনও করেনি আর ভবিষ্যতেও করবে না। কেনাবেচার রাজনীতির কাণ্ডারী খোদ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত,সম্প্রতি বিজেপির বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে দল ভাঙানোর অভিযোগে সরব হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নেত্রীর বক্তব্য,টাকার লোভ দেখিয়ে তৃণমূলের একাধিক নেতা-মন্ত্রী-সাংসদকে টেনে নিয়ে দল ভারী করছে বিজেপি। সোমবার তৃণমূলের বর্ধিত কোর কমিটির বৈঠকে সেই একই অভিযোগ শোনা গেল মুখ্যমন্ত্রীর গলায়।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বিজেপিকে ‘চোর,ভুঁইফোঁড়’দের দল বলে উল্লেখ করে নেত্রী অভিযোগের সুর চড়িয়ে বললেন, ‘সবার ফোন নিয়ে রেখে দিয়েছে গদ্দাররা। সবাইকে ফোন করছে। আর বলছে কত টাকা লাগবে?’ এরপর প্রশ্ন তুলে বলেন,এত টাকা বিজেপির তহবিলে আসে কী করে? এরপর নিজেই দাবী করেন,ট্রেনে করে এ রাজ্যে টাকা আনছে বিজেপি।

উল্লেখ্য,সম্প্রতি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন বেশ কয়েকজন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা। এর মধ্যে বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ এবং তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রাক্তন সভাপতি শঙ্কুদেব পাণ্ডাও রয়েছেন। এই প্রেক্ষিতেই তৃণমূল নেত্রী অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বিজেপির দিকে। টাকার প্রলোভন দেখিয়েই এঁদেরকে দলে টেনেছে বিজেপি।

তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই অভিযোগের যোগ্য জবাব দিতে বেশি সময় নষ্ট করেননি দিলীপ ঘোষ। দুপুরে মুরলিধর সেন স্ট্রিটের দফতরে বসেই নিজস্ব মেজাজেই দিলীপ ঘোষ বলে দেন বেচা কেনার রাজনীতি তৃণমূল করতে পারে। বিজেপি করে না। এই প্রেক্ষিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই বেচা কেনার রাজনীতির কাণ্ডারী বলে দাবী করেন তিনি। পাল্টা অভিযোগ তুলে বলেন,গোটা তৃণমূল দলটাই তো অন্য দল ভাঙিয়ে তৈরি হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!