এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > নাম না করে তৃণমূল শীর্ষনেতাকে ‘কুকুর’ বলে তীব্র আক্রমন দিলীপ ঘোষের

নাম না করে তৃণমূল শীর্ষনেতাকে ‘কুকুর’ বলে তীব্র আক্রমন দিলীপ ঘোষের

ফের তৃণমূলের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক ভূমিকায় রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বক্তব্য রাখতে গিয়ে শালীনতার সীমা পেরিয়ে তৃণমূল নেতৃত্বকে ‘কুকুর’ বলে ব্যাখ্যা করে বিতর্কে জড়ালেন তিনি। বললেন,”যে কুকুর কামড়াতে পারে না তারা ঘেউ ঘেউ করে। নেত্রীর অনুমতি নেওয়ার কী দরকার আছে। দম থাকলে লড়ুন না।” এটুকু বলেই ক্ষান্ত হননি তিনি।

শাসকদলের বিরুদ্ধে তোপ দেগে বলেন,সব জায়গাতেই বিজেপির কর্মসূচিতে বাধা সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে তৃণমূল। রাজ্যে বিজেপি কোনো জনসভা করতে চাইলে অনুমতি দেওয়া হয় না। মাঠে পুলিশ নামিয়ে জনসভা নষ্ট করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এসব মুখ বুঝে সহ্য করবে না বিজেপি। হুঁসিয়ারী দিয়ে বললেন, প্রতিবাদের দিন শেষ,এবার প্রতিরোধের সময় এসেছে।

এরপর চাঁচাছোলা ভাষায় তৃণমূলের উদ্দেশ্য সরাসরি হুমকি দিলীপ ঘোষের। তৃণমূল যুবনেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বললেন,”ও কোথায় ভোটে দাঁড়াবে ঘোষণা করুক। মুখ্যমন্ত্রী, যিনি প্রধানমন্ত্রী পদের প্রার্থী, ঘোষণা করুক কোন কেন্দ্রে দাঁড়াবে। ওরা ঘোষণা করুক। আর কী করে উনি জেতেন, সেটা আমরাও দেখে নেব।”

এদিন পঞ্চায়েত ভোটের প্রসঙ্গ টেনে তৃণমূলকে আক্রমণ শানিয়ে বললেন,আসলে শাসকদল আগেই জানতো ভোটে তাঁরা জিততে পারবে না,মানুষ তাঁদের সাথে নেই,তাই ভয় দেখিয়ে বাংলার মানুষকে ভোট দিতে বাধা দেওয়া হয়েছে। সন্ত্রাস সৃষ্টি করে মানুষের ভোট দেওয়ার সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু লোকসভা ভোটে তৃণমূলের মুখোশ খুলে যাবে।

তাঁরা যে নাটক করে মানুষকে কতো ভুল বুঝিয়েছিলো ভোট পাওয়ার লোভে,তা স্পষ্ট হয়ে যাবে রাজ্যবাসীর কাছে। সেদিন দূরে নেই বাংলায় যেদিন ঘাসফুলের শাসন শেষ হবে,ফুটবে পদ্ম ফুল,গেরুয়া আবীরে ছেয়ে যাবে বাংলার আকাশ। এমনটাই আগাম জানিয়ে দিলেন রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। এর পাশাপাশি তিনসুকিয়া কান্ডে তৃণমূলের প্রতিনিধি দলের অসম যাওয়ার প্রসঙ্গ টেনেও কটাক্ষ করতে ভুললেন না দিলীপ বাবু।

বললেন,অসমের অগ্নিদগ্ধ পরিস্থিতিকে আরো চড়া করতে ওখানে দলীয় নেতাদের পাঠিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। যুক্তি,”অসমে গন্ডগোল হলে রাজনৈতিক রুটি সেঁকতে সুবিধা হবে মমতার।” এটা বলার পরই তৃণমূল নেতৃত্বকে এরকম পরিস্থিতিতে অসম না যাওয়ার পরামর্শ দেন বঙ্গবিজেপি নেতৃত্ব। বলেন, “আগের ঘটনা মাথায় রেখে যাবেন। আগুন জ্বালিয়ে লাভ নেই। সরকার পরিস্থিতি সামলে নেবে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,তিনসুকিয়া গনহত্যায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংকে সম্প্রতি চিঠি পাঠিয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি। এই হত্যাকান্ডের জেরে পশ্চিমবঙ্গের গভীর উদ্বেগের বিষয়টিও চিঠিতে জানিয়েছেন তিনি।

পাশাপাশি এই ইস্যুতে তৃণমূলের আন্দোলন,প্রতিবাদকে মাত্রাতিরিক্ত মনে করে এদিন শাসকদলকে এক হাত দিলেন তিনি। তবে বক্তব্যে ‘তৃণমূল নেতৃত্ব’-কে কুকুর বলে সম্বোধনকে ঠিক ভাবে মেনে নেবে না শাসকদল। দিলীপ বাবুর এই অশালীন ভাষা ব্যবহারের যোগ্য জবাব সময়ে নিশ্চয়ই দেবে জোড়াফুল শিবির। এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!