এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > বড়োসড়ো অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার প্রাক্তন তৃণমূল নেতা, জেনে নিন

বড়োসড়ো অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার প্রাক্তন তৃণমূল নেতা, জেনে নিন

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের মধ্যে থেকে উঠে আসছে একের পর এক অপরাধীর নাম। যা নিয়ে দল রীতিমতো অস্বস্তিতে। সমস্ত বিরোধীদলের থেকে আসছে এই নিয়ে প্রবল চাপ, যা সামলাতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে খেতে হচ্ছে রীতিমতো হিমশিম। তবে এবার সামান্য স্বস্তিতে তৃণমূল দল, কারণ এবারের অভিযোগের তীর যার দিকে সে তৃণমূলের প্রাক্তন নেতা।

এবার পুলিশের হাতে ধরা পড়লো তৃণমূলের প্রাক্তন নেতা খলিল মোল্লা। সন্দেহ, তিনি ক্যানিংয়ের আমতলার একটি অস্ত্র কারখানার সাথে জড়িত। এই ঘটনায় আগেই গ্রেপ্তার হয়েছে আবু সিদ্দিক নামে একজন।

তবে পুলিশের তরফ থেকে জানা গেছে, খলিল মোল্লা অস্ত্র কারবারের সাথে রীতিমতো জড়িত। শুধু জড়িতই নয়, এই অস্ত্র কারবারে সে রীতিমত খরিদ্দার জোগান দিত। খলিল কে পুলিশ ধরে বালিগঞ্জ স্টেশন সংলগ্ন এলাকা থেকে। এর আগেও খলিল খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়। খলিল একসময় তৃণমূলের হয়ে পঞ্চায়েত এলাকার অঞ্চল সভাপতি ছিল। কিন্তু সেখানকার পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামী রাজু নস্কর কে খুনের অভিযোগে দল থেকে তাকে বহিষ্কার করা হয় এবং পুলিশের হাতে সে ধরা পড়ে। হাইকোর্টের শর্তসাপেক্ষে জামিনের কারণে সে ছাড়া পায় এবং ছাড়া পেয়েই সে আবার নানান বেআইনি কাজ কর্মে জড়িয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সম্প্রতি খলিল মোল্লার নামে অশান্তির অভিযোগে ক্যানিং থানায় একাধিক অভিযোগ জমা পড়ে। পুলিশে ধরা পড়ার ভয়ে এলাকাছাড়া হয়ে যায় সে। এ নিয়ে ক্যানিং 1 নম্বর ব্লক তৃণমূল সভাপতি শৈবাল লাহিড়ী বলেন, “আমাদের দলের কর্মী রাজু নস্কর কে খুনের ঘটনায় খলিলের নাম জড়ানোর সঙ্গে সঙ্গেই ওকে দল থেকে বহিষ্কার করি। পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে আশা রাখি।”

তবে খলিল মোল্লা কে নিয়ে তৃণমূল দলের অভ‍্যন্তরে আলোচনা বিশেষ শোনা যায়নি। কারণ হিসেবে ধরে নেওয়া যায়, খলিল মোল্লা ইতিমধ্যে দলের বহিস্কৃত নেতা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!