এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গে মুকুল রায়ের সভার আগে জল্পনা বাড়িয়ে তৃণমূল নেতার আচমকা পদত্যাগ

উত্তরবঙ্গে মুকুল রায়ের সভার আগে জল্পনা বাড়িয়ে তৃণমূল নেতার আচমকা পদত্যাগ

আজ শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্কে বিজেপির জনসভা রয়েছে। আর সেখানে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়, অভিনেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়, দার্জিলিংয়ের সংসদ সদস্য তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে সাথে থাকতে পারেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। বিজেপির অন্দরে গুঞ্জন উঠেছিল যে এই সভায় তৃণমূলের অনেক নেতা নেত্রী বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন মুকুল রায়ের হাত ধরে। আর সেই জল্পনা বাড়িয়ে ধবার দল এবং পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা রাজগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ শিখা চট্টোপাধ্যায়। অনেকে মনে করছেন যে তিনি বিজেপিতে যোগ দেবার জন্যই পদত্যাগ করেছেন।পাশাপাশি জোর চর্চা শুরু হয়েছে যে আজ বিজেপিতে যোগ দিতে পারে তৃণমূল যুব কংগ্রেসেরও বিক্ষুব্ধ অংশ। বিজেপির দাবি যে এই সভা ঘিরে তৃণমূল দলবদল নিয়ে চিন্তায় পরে গেছে।যদিও পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব এই ব্যাপারটিকে এত কিছু গুরুত্ত্ব দিচ্ছে না। তাঁর মতে দল ভাঙনের কোনও আতঙ্ক তৃণমূলে নেই।তা নিয়ে আমরা কিছু ভাবছি না। কেননা যে কোনও দলেরই সভা করার অধিকার আছে।শিখাদেবী কেন পদত্যাগ করলেন? তিনি তো প্রায় তৃণমূলের জন্মলগ্ন থেকে ছিলেন।পাশাপাশি তিনি কয়েকটি বিষয় নিয়ে মুকুল রায়ের অনুগামী হিসাবেই বেশি পরিচিত ছিলেন তাই আজ তার বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ব্যাপারেও অনেকেই নিশ্চিত।কেননা দলীয় কাজকর্ম নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে তিনি প্রকাশ্যে ক্ষোভ প্রকাশ করছিলেন।পাশাপাশি দলীয় নেতা-কর্মীদের জমির দালালিতে জড়িয়ে যাওয়ার ঘটনা নিয়ে প্রতিবাদ ও জমি মাফিয়াদের হাতে তাঁকে আক্রান্ত হতে হয়। তিনি দাবি করেছিলেন যে শীর্ষ নেতৃত্বকে এই ঘটনা জানিয়েও কোনো লাভ হয়নি।উল্টে দলের মধ্যে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিলেন।পদত্যাগ করে তিনি বলেন যে দলে থেকে কোনও সম্মানই পাচ্ছিলাম না। যারা সদ্য দলে ঢুকেছে তাদেরই দাপট বেশি। দলে থেকে কোনও কাজ করতে পারছিলাম না। দলেকে সমস্ত কিছু জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। তাই দল ছেড়েছি। পাশাপাশি বিজেপিতে যোগ দেবার জল্পনা উস্কে বলেন মুকুল রায়ের সঙ্গে আমার বরাবর যোগযোগ রয়েছে। আমি আক্রান্ত হয়ে নার্সিংহোমে ভরতি থাকার সময়ে মুকুলবাবু খোঁজখবর নিয়েছেন। তবে এখনও কোনও কিছু ঠিক করিনি। বিজেপিতে যেতেও পারি। যদিও এদিন সৌরভবাবু বলেন, পদত্যাগপত্র এখনও পাইনি। কেন দল ছাড়লেন সেটাও জানি না। পাশাপাশি বিজেপির শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি প্রবীণ আগরওয়াল বলেন, শাসক দল তৃণমূল থেকে অনেকেই যোগদান করবেন। রাজনৈতিক মহল বলছে শিখাদেবী বিজেপিতে যোগ দেবেন বলে আগেই দল থেকে পদত্যাগ করলেন।এখন আজ সভায় কি হচ্ছে সেই দিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল ও গোটা বঙ্গ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!