এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূলেরই প্রাক্তন ও বর্তমান এর দ্বন্দ্বে জমজমাট পৌর রাজনীতি, জানুন বিস্তারিত

তৃণমূলেরই প্রাক্তন ও বর্তমান এর দ্বন্দ্বে জমজমাট পৌর রাজনীতি, জানুন বিস্তারিত

Priyo Bandhu Media

ফের তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে। আর এবার তা হলো ইংরেজবাজার পুরসভায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সম্পর্কে হুঁশিয়ারি দেওয়া সত্ত্বেও কোনো ফারাক আসেনি দলের অন্দরে। দলের মধ্যে বারবার প্রকট হয়ে উঠছে এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ।

এবার গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে ইংরেজবাজার তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভায় অনাস্থা প্রস্তাব আনলেন পুরপ্রধান নীহাররঞ্জন ঘোষের বিরুদ্ধে দলের 15 জন কাউন্সিলর । অনাস্থা কারীরা ইতিমধ্যে তাদের প্রস্তাব পৌঁছে দিয়েছেন জেলাশাসক, মহকুমা শাসক ও চেয়ারম্যানের কাছে।

দু’বছর আগে ইংরেজবাজার পৌরসভার চেয়ারম্যান হন নীহার রঞ্জন ঘোষ। তখন থেকেই গন্ডগোলের শুরু। তার আগে এখানে পুরপ্রধান ছিলেন কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এমন জায়গায় পৌঁছে যায় যেখানে দুই পুরপ্রধান হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন। সূত্রের মাধ্যমে জানানো হচ্ছে দু’বছর আগে নিহার অনুগামীরা অনাস্থা প্রস্তাবের মাধ্যমে কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী কে পুরপ্রধান পদ থেকে সরিয়ে ছিলেন, আর এবার সেই একই কাজ করলেন কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ অনুগামীরা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশের মত অনুযায়ী প্রতিবাদী কাউন্সিলররা বিজেপির দিকে থাকতে পারেন কারণ দক্ষিণ মালদার এই ইংলিশ বাজারে গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র ভোটের নিরিখে অনেকটাই এগিয়েছিলেন।

এদিন সংবাদমাধ্যম চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষকে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘আমি এই মুহূর্তে কলকাতায় আছি। তবে বিষয়টি শুনেছি। কাউন্সিলররা আমার সঙ্গে আলোচনা করতে পারতেন। কোথায় অসুবিধা তা জানাতে পারতেন। এটা দল চিন্তা করবে। দল যা বলবে আমি সেই মতই চলবো।’

বিরোধী দলের মত অনুযায়ী, তৃণমূল কংগ্রেস গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে পশ্চিমবঙ্গের জমি অনেকটাই হারিয়েছে যা 2021 এর বিধানসভা ভোটে তাদের অনেকটাই পিছিয়ে দেবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!