এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা >   তিনবারের তৃণমূল হেভিওয়েট সাংসদের বিদেশযাত্রা আটকে দিল কেন্দ্র! শুরু তীব্র বিতর্ক

  তিনবারের তৃণমূল হেভিওয়েট সাংসদের বিদেশযাত্রা আটকে দিল কেন্দ্র! শুরু তীব্র বিতর্ক

Priyo Bandhu Media

 

শুরু হয়েছে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন। প্রথম দিন থেকেই বিভিন্ন ইস্যুতে কেন্দ্রকে চেপে ধরেছে তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদরা। আর্থিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা চেয়ে রাজ্যসভায় নোটিশ জমা দিতে দেখা গেছে তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েনকে। যেখানে অন্যান্য বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর তরফে সমর্থন করা হয়েছে। একইভাবে নোটবন্দির জন্য দেশের অর্থনৈতিক দুরবস্থা ঠিক কোন জায়গায় গিয়ে পৌঁছেছে, সেই ব্যাপারে সংসদে প্রশ্ন তুলেছেন সৌগত রায়, মালা রায়ের মত সাংসদরা। আর তৃণমূল সাংসদের প্রশ্নবানে যখন বিদ্ধ হচ্ছে কেন্দ্র, ঠিক তখনই কেন্দ্রের তরফে এক নতুন নির্দেশিকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল।

জানা গেছে, গত 15 থেকে 20 অক্টোবর চীনের ফুজিয়ান শহরে “সিল্ক রোড ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে” আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ তথা অভিনেত্রী শতাব্দী রায়। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে তাকে সেই চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দিতে যাওয়ার ব্যাপারে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক অনুমতি দেয়নি বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করল। যে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এখন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে শুরু করেছে তৃণমূল সাংসদরা।

সূত্রের খবর, এদিন এই ব্যাপারে তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায় সংসদে সরব হয়ে বলেন, “বিদেশ যাচ্ছি। তাই ভিসার আবেদন করার পাশাপাশি এমপি হিসেবে সরকারকে জানিয়ে যাওয়ার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে বলি। কিন্তু কয়েকদিন ঝুলিয়ে রেখে ইমেইলে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না। চীনের রাষ্ট্রপতি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করতে পারেন, আর আমি চিনে যেতে চাইলে আটকানো হল। তাও কোনো কারণ না দেখিয়ে।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

 

 

পাশাপাশি গোটা ঘটনায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের দাবি জানিয়েছেন তিনি। আর শতাব্দী রায়ের চীন সফর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের পক্ষ থেকে বাতিল করে দেওয়ার ঘটনা প্রকাশ্যে আসার সাথে সাথে সাথেই উত্তাল হয়ে ওঠে সংসদ। আর শতাব্দী রায়ের এহেন মন্তব্যের পরই এই ব্যাপারে সরব হন সংসদীয় তৃণমূলের দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, “একজন এমপি কোনো রাজনৈতিক কাজে নয়, স্রেফ চলচ্চিত্র উৎসবে আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন। তবে কেন তাকে যেতে দেওয়া হল না! বিষয়টি মোটেই বাঞ্ছনীয় নয়।” একইভাবে এই বিষয়টি নিয়ে মামলা হওয়া উচিত বলে জানান তৃণমূলের মুখ্য সচেতক কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যখন রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপি তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসার রাজনীতির অভিযোগ করে, ঠিক তখনই তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়ের বিদেশ সফরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বাধাদান বিজেপিকে অনেকটাই চাপে ফেলে দিল।যার পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি রাজ্যে যে অভিযোগ তুলে তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হয়, সেই একই অভিযোগ তুলে এখন কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হতে পারে তৃণমূল সাংসদেরা বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!