এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দিনকে দিন কোণঠাসা হচ্ছেন হেভিওয়েট তৃণমূল মন্ত্রী, জোর শোরগোল রাজ্যে

দিনকে দিন কোণঠাসা হচ্ছেন হেভিওয়েট তৃণমূল মন্ত্রী, জোর শোরগোল রাজ্যে

Priyo Bandhu Media


তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত দুর্দিনের সঙ্গী। একসময় কোচবিহার জেলায় দলের সংগঠনকে সাজিয়েছিলেন তিনিই। কিন্তু গত লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই তার সময়টা খারাপ হতে শুরু করেছে। দলের প্রার্থীকে জেতানোর দায়িত্ব ছিল তার কাঁধেই। কিন্তু তা সত্ত্বেও একদিকে কোচবিহার জেলায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, আর অন্যদিকে সাধারণ মানুষের থেকে জনবিচ্ছিন্ন হওয়ার জন্যই তৃণমূলকে এই আসন হারাতে হয়।

আর কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র তৃণমূলের হাতছাড়া হওয়ার পরেই জেলার অনেক তৃণমূল নেতা এই ব্যাপারে রবীন্দ্রনাথ ঘোষের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলতে শুরু করেন। যার পরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়ে কোচবিহার জেলা তৃণমূলের সভাপতি পদ থেকে রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে সরিয়ে দেন। যা বিভিন্ন মহলে জল্পনা তৈরি হয় যে, এবার উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রীর দায়িত্ব থেকেও রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে সরিয়ে দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তার পরেই হঠাৎ গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন রবীন্দ্রনাথ ঘোষ।

বর্তমানে জেলার এককালের এই অবিসংবাদিত এই তৃণমূল নেতা কিছুটা হলেও কোণঠাসা রয়েছেন। জেলার অন্যান্য স্থানে কর্মসূচি করাতো দূর অস্ত, নিজের বিধানসভা কেন্দ্র নাটাবাড়িতেও সেভাবে দলের কর্মসূচিতে দেখা যাচ্ছে না এই রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে। যা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে গুঞ্জন। তাহলে কি দলের মূলস্রোত থেকে নিজেকে সরিয়ে নিচ্ছেন রবিবাবু! নাকি অন্যান্য নেতাদের কাছে গুরুত্ব না পেয়ে কার্যত কোণঠাসা রয়েছেন তিনি!


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “এখানে কয়েকজন বন্ধুবান্ধব নিয়ে একাই দলটা শুরু করেছিলাম। দীর্ঘ লড়াই, আন্দোলনের পর ধীরে ধীরে সব মানুষ সামিল হয়েছেন। মানুষ পাশে আছেন, যারা পরামর্শ চাইছেন, তাদের পরামর্শ দিচ্ছি। যারা আহ্বান জানাচ্ছেন, তাদের কাছে তাদের কর্মসূচিতে যাচ্ছি।” কিন্তু বর্তমানে তিনি তো একাই! তার সাথে তো তেমন ভাবে কাউকে দেখা যাচ্ছে না। এতে কি তিনি অভিমানী বা ব্যাথীত নন!

এদিন এই প্রসঙ্গে রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “অভিমান হয় না, এটা বললে মিথ্যে কথা বলা হবে। কিন্তু রাজনীতিতে এই বস্তুটির কোনো দাম নেই। আমি একজন ছোট মাপের কর্মী। একজন সাধারণ কর্মী হিসেবে আমার যা দায়িত্ব পালন করার, তা আমি পালন করার চেষ্টা করছি।” রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন, রবীন্দ্রনাথ ঘোষ দীর্ঘদিনের তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা। উত্তরবঙ্গের কোচবিহার জেলার হাতে এতদিন সামলেছেন তিনি। কিন্তু যেভাবে বর্তমানে কোণঠাসা হয়ে যাচ্ছেন সেই রবিবাবু, তাতে তার ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক গতিপ্রকৃতি এখন ঠিক কোন দিকে মোড় নেয়! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!