এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূল-সিপিএমের আঁতাত নিয়ে মারাত্মক অভিযোগ বিজেপির, পাল্টা দিলেন মুখ্যমন্ত্রীও

তৃণমূল-সিপিএমের আঁতাত নিয়ে মারাত্মক অভিযোগ বিজেপির, পাল্টা দিলেন মুখ্যমন্ত্রীও

সিপিএম-তৃণমূল আঁতাত, ত্রিপুরা জয়ের পর এমনই তত্ত্ব প্রচার করছে বিজেপি। যদিও এই আঁতাত সম্ভবপর হলে সিপিএম তৃণমূল বিরোধী মানুষদের একাংশের ভোট যাবে গেরুয়া শিবিরে এমনটাই আশা করছে বিজেপি। পঞ্চায়েত কমিটির আহ্বায়ক মুকুল রায় তার প্রথম বৈঠকে ”এখন তো একই বৃন্তে দু’টি ফুল, সিপিএম আর তৃণমূল! ত্রিপুরায় বাম, কংগ্রেস আর তৃণমূলকে কাছে টেনেই বিজেপি-র সরকার হয়েছে।”  এমনটাই মন্তব্য করেন।ত্রিপুরা ভোটের ফল বেরোনোর পর এ রাজ্যের মুখমন্ত্রী মন্তব্য করেছেন” সিপিএম ওই রাজ্যে ভোট মোটেই কম পায়নি। সুতরাং, সেখানে জিতে বিজেপি-র অতি আহ্লাদের কোনও কারণ ঘটেনি। তাঁর আরও বক্তব্য, বিজেপি সোর্স, ফোর্স এবং বিপুল টাকা ঢেলে ত্রিপুরা দখল করেছে। সিপিএম তার প্রতিবাদ করতে পারেনি বা করেনি।”  জানা গেছে এদিনের পঞ্চায়েত নির্বাচনের বৈঠকে বিজেপির তরফ থেকে জানায় হয় এক অংশ জমিও তৃণমূলকে ছাড়া যাবে না। পঞ্চায়েত নির্বাচন নির্ধারিত হওয়ার আগেই প্রাথমিক প্রার্থীর তালিকা তৈরী করতে হবে। চাপ দিতে হবে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে অনলাইন মনোনয়ন জমা নেয়ার জন্য।এদিকে বাঁকুড়ার পাত্রসায়রে এক প্রশাসনিক সভায় সিপিএম ও কংগ্রেসকে কটাক্ষ করে  ”সিপিএম রোজ আমাকে গালাগালি দেয়। মনে রাখবেন, আজও ওরা বিজেপি-র লজেন্স খায়। আমরা খাই না। সিপিএম, কংগ্রেস বিজেপি-র সঙ্গে বোঝাপড়া করতে পারে। কিন্তু তৃণমূল কখনও বোঝাপড়া করে না।” এমনটাই মন্তব্য করেছেন মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন এর প্রত্যুত্তরে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানান, ”দিদিমণি হয়তো জানেন না, কিন্তু ওঁর অনেক বিধায়কই লজেন্স খেয়েছেন। তার জন্যই আমার লজেন্সের কৌটো অর্ধেক খালি হয়েছে।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!