এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূলের কোর কমিটির বৈঠকেও প্রকাশ্যে দ্বন্দ্ব

তৃণমূলের কোর কমিটির বৈঠকেও প্রকাশ্যে দ্বন্দ্ব

কোচবিহার জেলা তৃনমূলের কোর কমিটি বৈঠক হয়। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার জেলার মন্ত্রী, বিধায়ক ,সাংসদ, ছাড়াও কোর কমিটির অন্য সদস্যরাও । বৈঠকের কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল পঞ্চায়েত ভোটের আগে বিজেপিকে শক্তিক্ষয় করার জন্যই নির্দিষ্ট পরিকল্পনা গ্রহণ করবে দল। কিন্তু কিছুক্ষন পরই বিজেপিকে পরাস্ত করা নয়, নিজেদের মধ্যেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে ঝামেলার শব্দ বেরিয়ে আসে ওই ঘর থেকে। কার্যত বেআব্রু হয়ে যায় বৈঠকের উদ্দেশ্য
দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলা নেতৃত্বের একাংশ গোটা মিটিং পর্ব জুড়ে কোচবিহারের সংসদ সদস্য পার্থপ্রতিম রায় নানা বিষয় নিয়ে তোপ দাগেন।যদিও রবীন্দ্রনাথবাবুও পালটা যুক্তি দিয়ে তাঁকে শান্ত করার চেষ্টা করেন৷ কিন্তু যখন তাতেও কাজ হয় নি তখন ধমক দিতে শুরু করেন আর বার বার ধমক খাওয়ার পর একসময় জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে লক্ষ্য করে পার্থবাবু প্রশ্ন ছোড়েন, ‘‘আমাকে নাজেহাল করার জন্যই কি মিটিং ডাকা হয়েছে?’’রুদ্ধদ্বার মিটিংয়ের চিৎকার এতটাই চরমে পৌঁছয় যে বাইরে দলীয় কর্মীদের ভিড় জমে যায়। মিটিং শেষ করে দৃশ্যত বিধ্বস্ত অবস্থায় তৃণমূল নেতারা বাইরে আসেন৷ বৈঠক শেষে রবীন্দ্রনাথবাবু ও পার্থবাবু দু’জনেই কোনওরকম বিতর্কের কথা অস্বীকার করেন৷ তৃনমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ নিয়ে রীতিমত চিন্তিত স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী থেকে দলের শীর্ষ নেতারা। যদিও এদিন এবিষয়ে প্রশ্ন করা হলে কোচবিহার জেলার শীর্ষ নেতৃত্ব এক সুরে বলে ওঠেন গোষ্ঠীদ্বন্দের কোনও ব্যাপারই নেই।যদিও রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের দাবি, তৃনমূলের অন্দরে গোষ্ঠীদ্বন্দ রয়েছে এটা মানতে অসুবিধা কোথায়? সমস্যাকে ধামা চাপা না দিয়ে সমাধান করার রাস্তা বের করাই বুদ্ধিমানের কাজ। নাহলে এই গোষ্ঠীদ্বন্দর সুযোগে রাজ্যে বিজেপির ভোট বাড়াতে শাসকদলেরই একাংশ ঝুঁকবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!