এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > আদিবাসী মনে এখনও যে তৃণমূল ফিরে আসেনি, মুখ্যমন্ত্রীর সফরের আগেই আবার প্রমাণ হয়ে গেল!

আদিবাসী মনে এখনও যে তৃণমূল ফিরে আসেনি, মুখ্যমন্ত্রীর সফরের আগেই আবার প্রমাণ হয়ে গেল!

 

বিরোধীনেত্রী থাকার সময় জঙ্গলমহলের আদিবাসী অধ্যুষিত অঞ্চলে দিনরাত এক করে থেকে সেখানকার মানুষের মন জয় করেছিলেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে ক্ষমতায় আসার পর সেই আদিবাসীদের সমর্থন তৃনমূল কংগ্রেসের পাশে থাকলেও যতদিন গিয়েছে, ততই যেন সেই সমর্থন কমতে শুরু করেছে। লোকসভায় যার প্রকৃষ্ট উদাহরণ দেখতে পেয়েছেন সকলেই।

জঙ্গলমহলে আদিবাসী অধ্যুষিত অঞ্চলে তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। যেখানে আদিবাসীদের বিরাট মাপের ভোটব্যাঙ্ক বিজেপির দিকে গিয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। আর এই পরিস্থিতিতে লোকসভা নির্বাচনের পর নিজেদের ভুলত্রুটি শুধরে নেওয়ার বার্তা তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দেওয়া হলেও তাতে যে কাজের কাজ কিছুই হয়নি, তা ফের প্রমাণ হয়ে গেল।

এবার রাজ্য সরকার ও রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের অস্বস্তি বাড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জেলা সফরের ঠিক একদিন আগে নানা দাবিতে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন আদিবাসী সমাজের প্রতিনিধিরা। বস্তুত, মঙ্গলবার মালদা সফরে আসছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তার আগে সোমবার মালদহ জেলার চারটি ব্লকে সশস্ত্র আন্দোলনের ডাক দেয় আদিবাসীদের সংগঠন ঝাড়খন্ড দিশম পার্টি।

তাদের দাবির মধ্যে ছিল, সরনা ধর্মের স্বীকৃতি, সাঁওতালি ভাষায় পঠন-পাঠন, সাঁওতালি স্কুলে শিক্ষক নিয়োগ, ইংলিশবাজার শহরে টোটো চলাচল। জানা যায়, এদিন পুরাতন মালদা, হবিবপুর, বামনগোলা এবং গাজোল ব্লকের আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় সকাল থেকেই আদিবাসী সংগঠনের সদস্যরা সশস্ত্র হাতে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। যার ফলে রাস্তা অবরোধ হয়ে যাওয়ায় প্রবল বিপাকে পড়েন অফিস যাত্রী থেকে সাধারণ মানুষ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

 

 

জানা গেছে সকালে এগারোটা নাগাদ গাজোল ব্লকের দেওতলা গ্রাম পঞ্চায়েতের কুড়ি মাইল এলাকায় পথ অবরোধের পর 34 নম্বর জাতীয় সড়ক চিনিদানা মোড় এবং গাজোলের আলমপুরে পথ অবরোধ করা হয়। যেখানে ব্যাপক অশান্তি সৃষ্টি হয় বলে খবর। তীর, ধনুক এবং হাঁসুয়া নিয়ে আদিবাসী সমাজের প্রতিনিধিরা তাদের অবরোধ করতে রাস্তায় নেমে পড়েন। পরে অবশ্য পুলিশ এবং প্রশাসনের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নিতে বাধ্য হয় আন্দোলনকারীরা।

তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জেলা সফরের আগে বিভিন্ন ইস্যুতে আদিবাসী সমাজের এই আন্দোলন এখন প্রবল চিন্তায় ফেলেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে বলে মত বিশেষজ্ঞদের। এদিন এই প্রসঙ্গে ঝাড়খন্ড দিশম পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহন হাসদা বলেন, “আমাদের বেশ কিছু ইস্যু রয়েছে। কিন্তু জেলা প্রশাসন আমাদের সঙ্গে সহযোগিতা করে না। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলা সফরে আসছেন শুনেই আমরা পথ অবরোধ করেছি। আমরা আমাদের দাবি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দিতে চাইছি। সমস্যা সমাধান না হলে আমরা আরও বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাঁটব।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জেলা সফরের আগে যেভাবে আদিবাসী সমাজের প্রতিনিধিরা প্রবল বিক্ষোভ সংগঠিত করলেন মালদায় তাপের আদিবাসীদের ভোটব্যাঙ্ক পাওয়া যে তৃনমূলের কাছে এখন প্রবল তপস্যার কারণ, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত প্রায় সকলেই। তবে প্রশাসনিক প্রধানের জেলা সফরের আগে আদিবাসী সমাজের এই বিক্ষোভ মেটাতে রাজ্য সরকার কোনো পদক্ষেপ নেয় কিনা, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!