এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দলীয় কর্মীদের থানায় ডেকে তৃণমূল প্রার্থীদের জেতানোর পাশাপাশি মার্জিন বাড়ানোর চাপ পুলিশের, কমিশনে যাচ্ছে বামেরা

দলীয় কর্মীদের থানায় ডেকে তৃণমূল প্রার্থীদের জেতানোর পাশাপাশি মার্জিন বাড়ানোর চাপ পুলিশের, কমিশনে যাচ্ছে বামেরা

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস পুলিশ প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে ভেঙে দখলের রাজনীতি কায়েম করতে চাইছে বলে বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ করতে দেখা গেছে রাজ্যের বিরোধী শিবিরকে। তবে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের দামামা বাজার সাথে সাথেই এই পুরো প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারটা নির্বাচন কমিশনের হাতে চলে যাওয়ায় অনেকেই সুষ্ঠ নির্বাচনের ব্যাপারে আশ্বস্ত হয়েছিল। কিন্তু এবার অবশেষে দক্ষিণ 24 পরগনা জেলার চারটি লোকসভা কেন্দ্রের স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে সেই জেলার জেলাশাসককে কাছে অভিযোগ জানাল বামেরা।

সূত্রের খবর, সোমবার বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী, দক্ষিণ 24 পরগনা জেলা সিপিএমের সম্পাদক শমীক লাহিড়ীর নেতৃত্বে বামেদের এক প্রতিনিধিদল দক্ষিণ 24 পরগনার জেলাশাসক রত্নাকর রাওয়ের সাথে দেখা করতে আসে। আর সেখানেই তারা জেলার অনেক পুলিশ কর্তাদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে অভিযোগ করেন যে, এই জেলার অনেক লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের মার্জিন বাড়ানোর জন্য অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিদের থানায় ডেকে এনে চাপ দিচ্ছে পুলিশেরই একাংশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে বামেদের তরফে এই ঘটনায় জেলার অনেক থানার ওসিদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ আনা হয়েছে। আর খোদ পুলিশ কর্তাদের বিরুদ্ধে তৃণমূলের মার্জিন বাড়ানোর জন্য অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিদের থানায় ডেকে এনে চাপ দেওয়ার অভিযোগ বামেদের পক্ষ থেকে তোলায় এখন সরগরম হয়ে উঠেছে রাজ্য রাজনীতি।

এদিন জেলাশাসকের দপ্তর থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, “বামপন্থীরা অনেক জায়গায় প্রচার করতে গেলে শাসক দলের লোকজন পুলিশের সামনেই বাধা দিচ্ছে। পুলিশের ভূমিকা সম্পর্কে আমরা জেলাশাসককে সতর্ক করে বলেছি, এই জিনিস চলতে থাকলে গোটা বিষয়টি আমরা নির্বাচন কমিশনকে জানাতে বাধ্য হব।”

এদিকে বামেদের সাথে তাঁর ঠিক কী আলোচনা হয়েছে এই ব্যাপারে দক্ষিণ 24 পরগনা জেলাশাসককে ফোন করলেও তিনি কোনো ফোন ধরেননি। সব মিলিয়ে এবার বামেদের প্রতিনিধি দলের তরফে তৃণমূল ও পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনলে এখন সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দক্ষিণ 24 পরগনার জেলাশাসক আদৌ ঠিক কি ব্যবস্থা গ্রহণ করে এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!