এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূল ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, অস্বস্তিতে শাসকদল

তৃণমূল ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, অস্বস্তিতে শাসকদল

দুর্নীতির অভিযোগে ফের একবার নাম জড়ালো তৃণমূলের। উত্তেজনা তুঙ্গে চা বাগান শ্রমিকদের মধ্যে। ঘটনাস্থল জলপাইগুড়ি করলাভ্যালি। তৃণমূল ব্লক সভাপতি নিতাই করের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে চা বাগান শ্রমিকরা জানিয়েছে পঞ্চায়েত প্রধাণ পদটি নিয়ে দুর্নীতি হচ্ছে। টাকার বিনিময়ে দড়কষাকষি চলছে প্রধানের চেয়ারের। এর জেরে অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অাদিবাসীরা। এদিন বিক্ষোভ জানাতে মিছিলে পথে নামেন তাঁরা। শ্লোগানে তাঁদের দাবী তোলেন চা বাগানের দুজন জয়ী পঞ্চায়েত সদস্য মহেশ রাউতিয়া এবং আঞ্জালা লামার মধ্যে একজনকে প্রধান করতে হবে। তাঁদের দাবী মানা না হলে আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলনে দিকে পা বাড়াবেন তাঁরা। এমনটাই হুঁসায়ারীতে জানান চা বাগান শ্রমিকরা।

জেলা সূত্রের খবর থেকে জানা গিয়েছে, পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূলকে জেতাতে পারলে করভ্যালি চা বাগান থেকে একজন কে প্রধানের পদে বসানো হবে,এমনটাই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তৃণমূল ব্লক সভাপতি নিতাই কর। নির্বাচনে অরবিন্দ গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূল জিতলেও প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করলেন নিতাই বাবু। যারা পঞ্চায়েত ভোটে জিতল সেই চা বাগানের দুজন পঞ্চায়েত সদস্যদের মধ্যে কাউকে প্রধান না করে চা বাগানের বাইরের একজন জয়ী সদস্যকে প্রধান করার ঘোষণা করলেন তৃণমূল তৃণমূল ব্লক সভাপতি। শ্রমিকদের বক্তব্য,জয়ী অনিতা চন্দ লোহার নিতাই বাবুর ঘনিষ্ট বলেই তাকে প্রধান করতে চাইছেন ব্লক সভাপতি। চা বাগানের শ্রমিকদের অভিযোগ,ব্লক সভাপতি শ্রমিকদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে চাইছেন। এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে চা বাগানের তৃণমূল সমর্থিত শ্রমিক এবং বিকাশ পরিষা সমর্থত শ্রমিকদের মধ্যে ব্যাপক ঝামেলা হয়। তবে তৃণমূল সমর্থিত দুজন জয়ীর মধ্যে একজনকে প্রধান পদে নিয়োগ করার দাবীতে সমস্ত বিভেদ ভুলে আন্দোলনে পথে নামেন করলাভ্যালি চা বাগানের প্রায় ৬০০ জন শ্রমিক। সমস্ত কাজ পন্ড হয় তাঁদের।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন ব্লক সভাপতি নিতাই কর। তিনি বলেন, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর অরবিন্দ অঞ্চলের বোর্ড গঠন হবে। জানান,গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট ১৭ টি আসনের মধ্যে তৃণমূল পেয়েছে ১১ টি,বিজেপি ৪ টি এবং এসপি পেয়েছে ২ টি আসন। তৃণমূলের এসটি প্রার্থী জিতেছেন তিনটি জন। মহেশ রাউতিয়া,আঞ্জালা লামা এবং অনিতা চন্দ লোহার। সাফ কথায় তিনি বুঝিয়ে দেন,চা শ্রমিকরা যতোটা আন্দোলন করুক না কেন দলই থেকে ঠিক করবে কে পঞ্চায়েত প্রধানের কুর্সিতে বসবে। তবে দাবী মানা না হলে আন্দোলন থেকে যে চা শ্রমিকরা পিছপা হবেন না,এটাও এদিনের মিছিলে তাঁরা বুঝিয়ে দিয়েছেন। আপাতত ২৬ তারিখ অরিবিন্দ গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন নির্বিঘ্নে হয় কিনা সেটাই দেখার!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!