এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূল না বিজেপি – জল্পনা বাড়িয়ে অসুস্থতার পর প্রথম আত্মপ্রকাশেই বড় বার্তা মুকুল-পুত্রের

তৃণমূল না বিজেপি – জল্পনা বাড়িয়ে অসুস্থতার পর প্রথম আত্মপ্রকাশেই বড় বার্তা মুকুল-পুত্রের

মুকুল রায় তৃণমূল ছাড়ার পর থেকেই জল্পনা তৈরি হয়েছিল তাঁর পুত্র এবার শুভ্রাংশু রায়কে নিয়ে। কী করবেন শুভ্রাংশু? তিনিও কি বিধায়ক পদ ত্যাগ করে বাবার মতো ভিড়বেন বিজেপিতে?নাকি থাকবেন তৃণমূলই? ক্রমশ তৃণমূলে একঘরে হয়ে পড়া শুভ্রাংশু কিন্তু তাঁর আদর্শ থেকে একচুলও সরেননি । এবার পুজো শেষে তিনি স্পষ্ট করে দিলেন তাঁর অবস্থান।

এবারমুকুল রায় বঙ্গ বিজেপির লোকসভা কমিটির প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন । দলের হয়ে প্রধান রণকৌশল স্থির করবেন তিনিই।আর সেক্ষেত্রে অবশ্যই তৃণমূল ভাঙিয়ে লোকসভার আগে বিজেপির সংগঠন বাড়ানোই তাঁর মুখ্য উদ্দেশ্য। কিন্তু কী করবেন শুভ্রাংশু? এবার কি তিনি বাবার পথেই হাঁটবেন , নাকি তৃণমূলেই গতানুগতিক পথে এগিয়ে নিয়ে যাবেন তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ? শুভ্রাংশু আগেও বহুবার স্পষ্ট করেছেন তিনি কী করতে চান, কোন পথে চলতে চান।এদিন আবারও তিনি বুঝিয়ে দিলেন তাঁর চলার পথ। তিনি যে বাবার পথে হাঁটতে চান না, তা তৃণমূল নেতাদের চোখে আঙুল দিয়েই দেখিয়ে দিলেন। বাবা নয়, তাঁর ভরসা এখনও পিসির উপরই। সে আভাস তিনি আগেও দিয়েছেন, আবার দিলেন। বিজয়া দশমীতেই রাখলেন তার প্রকৃষ্ট প্রমাণ।

বিজয়া দশমীর দিন কালীঘাটে এসে অভিষেকের সঙ্গে দেখা করে পাশে বসে শুভেচ্ছা বিনিয়ময় করলেন শুভ্রাংশু রায় শুধু তাই নয়, দীর্ঘ আলোচনা সারলেন। লোকসভা ভোটের আগে দলের এক অন্যতম যুব সৈনিককে পেয়ে প্রয়োজনীয় বার্তা দিলেন সেনাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আর বাধ্য সৈনিকের মতো তা শুনলেন শুভ্রাংশু। শুভ্রাংশু অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন কিছুদিন।সুস্থ হবার পর এই প্রথম কালীঘাটে এসে তৃণমূলের যুব সভাপতির পাশের চেয়ারে বসলেন মুকুল পুত্র। যতক্ষণ অভিষেক জনসংযোগ করলেন, ততক্ষণ তাঁ পাশেই ছিলেন শুভ্রাংশু।আর এর মধ্যে দিয়েই শুভ্রাংশু বুঝিয়ে দিলেন, তাঁর বর্তমান অবস্থান। অভিষেকের সঙ্গে শুভ্রাংশুর এই ছবি বিজেপিকেও বার্তা দেয়।

শুভ্রাংশু অসুস্থ থাকাকালীন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং গিয়েছিলেন তাঁকে দেখতে।আর তাতেই শুভ্রাংশু বুঝে যান, নেত্রীর হাত এখনও রয়েছে মাথার উপর। বাবা দল ছাড়লেও, এখনও তাঁর সমান গুরুত্বই রয়েছে দলে। অন্তত নেত্রীর কাছে তিনি সেই গুরুত্বই পাচ্ছেন।আর তাই অন্য নেতারা তাঁকে গুরুত্ব দিলেন, কি না দিলেন তাতে কিছু এসে যায় না শুভ্রাংশুর। তৃণমূল এবার ভোট প্রচারে শুভ্রাংশুকে প্রধান হাতিয়ার করতে চায়। মুকুল রয়েছেন বিজেপি লোকসভা নির্বাচন কমিটির দায়িত্ব। আর তাঁর ছেলেই তাঁর বিরুদ্ধে প্রচারে নামবেন। লোকসভায় কাঁটে কা টক্কর হবে, সেখানে শুভ্রাংশু তৃণমূলের যত বেশি প্রচার করবেন, ততই অস্বস্তি বাড়বে মুকুলের, অস্বস্তি বাড়বে বিজেপির।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো  করুন এই লিঙ্কেখবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক

এবার লোকসভা নির্বাচনে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের হয়ে বড় ভূমিকা নেবেন। দেখতে গেলে এই প্রথম মুকুলহীন কোনো বড় ভোট তৃণমূলের। সেখানে কোন কোন নেতার উপর কী কী গুরু দায়িত্ব বর্তাবে, তা ইতিমধ্যেই কোর কমিটির বৈঠকে স্থির করে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই নিরিখে অভিষেকের সঙ্গে শুভ্রাংশুর সাক্ষাৎ বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!