এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূলের গড়েই বিজেপির পতাকা হাতে গ্রাম প্রদক্ষিণ তৃণমূলেরই সভাপতির

তৃণমূলের গড়েই বিজেপির পতাকা হাতে গ্রাম প্রদক্ষিণ তৃণমূলেরই সভাপতির

তৃণমূলের গড়ে খোদ তৃণমূলের সভাপতিই বিজেপির পতাকা হাতে করলেন গ্রাম প্রদক্ষিণ কিন্তু কেন?তবে কি বিজেপিতে নাম লেখালেন তৃণমূলের এই সভাপতি।না একদমই তা নয় এহল শাস্তি।হ্যাঁ হুগলির খানাকুলের দুর্গাপুরে তৃণমূলের সভাপতিকে এমনই শাস্তির নিদান দিল বিজেপি।কিন্তু কেন এই অদ্ভুত শাস্তি?এর উত্তরে জানা যায় তৃণমূলের ওই গ্রাম পঞ্চায়েত সভাপতি নাকি বিজেপির পতাকা-ফেস্টুন সব ছিঁড়ে দেন আর তাই ক্ষিপ্ত বিজেপি তাকে এই শাস্তি দেয়।

খানাকুলের তাঁতিশালা গ্রাম পঞ্চায়েতের দুর্গাপুর গ্রাম যা আদতে তৃণমূলেরই দখলে আর সেখানেই আজাদ হিন্দ সরকারের প্রতিষ্ঠা দিবসের ৭৫ বছর পূর্তি পালন করছিল বিজেপি । আর সেই অনুষ্ঠানেই তাঁতিশালা গ্রাম পঞ্চায়েতের সভাপতি রঞ্জিত শাসমলের মদতে তৃণমূল আশ্রিত একদল দুষ্কৃতী হামলা চালায়।এমকি তারা জাতীয় পতাকার অবমাননা করে বলেও অভিযোগ উঠেছে।
বিজেপির পতাকা-ফেস্টুন সব ছিঁড়ে দিয়ে তারা বিজেপি কর্মী বিকাশ সামন্তকে তারা মারধর করে বলেও অভিযোগ।এরপরেই সেখানে উপস্থিত বিজেপি কর্মীরা রঞ্জিত শাসমল ও আশিস সামন্ত বলে দুজন তৃণমূল নেতা-কর্মীকে ধরে পাল্টা মারধর করে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো  করুন এই লিঙ্কেখবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক

অবশ্য এখানেই ক্ষান্ত হননি বিজেপি কর্মীরা ।এরপর তারা ওই দুজনকে বিজেপির পতাকা ধরিয়ে গোটা গ্রাম ঘোরান এবং খানাকুল থানায় ওই দজনের নামে অভিযোগও দায়ের করেন।যদিও তৃণমূল সভাপতি রঞ্জিতবাবু এই অভিযোগ অস্বীকার করেন।উল্টে তিনি জানান যে তাঁর বাড়িতেই শ পাঁচেক লোক এসে হামলা চালিয়েছে আর এখন পরিকল্পনা করে তাঁকে ফাঁসাচ্ছে।যদিও এই ঘটনার জেরে তৃণমূল যথেষ্ট চাপের মুখে পড়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!