এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > লক্ষ্য বিধানসভা নির্বাচন – তৃণমূল-বিজেপি দুই দলেই বড়সড় সাংগঠনিক পরিবর্তন

লক্ষ্য বিধানসভা নির্বাচন – তৃণমূল-বিজেপি দুই দলেই বড়সড় সাংগঠনিক পরিবর্তন

লোকসভায় জমজমাট হয়ে উঠেছিল বাংলার লড়াই। তৃনমূলকে অনেকটাই চাপে ফেলে এবার সামনের সারিতে উঠে এসেছে বিজেপি। আর লোকসভার পর এবার তৃনমূল – বিজেপি দু দলেরই টার্গেট আগামী 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। আর তাই পশ্চিম বর্ধমান জেলার সংগঠন সাজাতে এখন দুই দলই মরিয়া হয়ে উঠেছে। দুই দলেরই দাবি, নভেম্বর মাসের মধ্যেই বুথ স্তর থেকে জেলা স্তর পর্যন্ত সংগঠন গুছিয়ে নেওয়া যাবে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, এলাকার কর্মীদের মতামত নিয়ে স্বচ্ছ ভাবমূর্তি এবং দলের প্রতি অনুগতদেরই বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হবে। জেলা পর্যবেক্ষকের নির্দেশে ইতিমধ্যেই সেই কাজ শুরু হয়েছে। সূত্রের খবর, সোমবার কলকাতায় তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্ব জেলার শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে একটি বৈঠকে বসে। সেখান থেকে জেলা তৃনমূলের চেয়ারম্যান ভি শিবদাসন দাসুকে জেলা কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

অপরদিকে সদস্য সংগ্রহ অভিযান শেষ করে বিজেপিরও সাংগঠনিক নির্বাচন পর্ব শুরু হয়েছে। জানা গেছে, আগামী নভেম্বরের মধ্যে জেলা সভাপতি নির্বাচনও শেষ হয়ে যাবে। এখন দেখার নতুন রূপে সংগঠন সাজিয়ে দুই দলের মধ্যে কারা শেষ হাসি হাসে! এদিন এই প্রসঙ্গে তৃনমূলের ভি শিবদাসন দাসু বলেন, “দল আমাকে জেলার কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্ব দিয়েছে। সকলের সঙ্গে সমন্বয় রেখে দলকে আরও মজবুত করার চেষ্টা করব।”

বস্তুত, মরশুম শুরুর আগে পশ্চিম বর্ধমানে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে জয়ের লক্ষ্যে দল গোছাতে ময়দানে নেমে পড়েছে তৃণমূল এবং বিজেপি। তবে সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের যে সমস্ত জেলায় তৃনমূল খারাপ ফলাফল করেছে, তার মধ্যে একেবারে প্রথম সারিতে এই পশ্চিম বর্ধমান জেলায়। এই জেলার ন’টি বিধানসভা আসনেই পরাজয় হয়েছে তৃনমূলের।

বস্তুত, আসানসোল লোকসভা থেকে বাবুল সুপ্রিয় এবং বর্ধমান-দুর্গাপুর আসন থেকে এসএস আলুওয়ালিয়া জয়ী হন। আর এরপরই ভি শিবদাসন দাসুর বদলে জেলা তৃনমূলের সভাপতি করা হয় আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে। যার ফলে দায়িত্ব নিয়েই সংগঠন ভেঙে দেওয়ার কথা জানিয়ে দেন তিনি। এবার পুরমন্ত্রী তথা দলীয় পর্যবেক্ষক ফিরহাদ হাকিমের নির্দেশ মত বুথ স্তর থেকে নতুন করে কমিটি গড়তে উদ্যোগী হয়েছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।

প্রথমে বুথ সভাপতি ও বুথ কমিটি গঠন করে পরে অঞ্চল ও ব্লক কমিটি গঠিত হবে। আর সবশেষে করা হবে জেলা কমিটি। তবে তৃণমূল নিজেদের ঘর গোছানোর ব্যাপারে তৎপরতা অবলম্বন করলেও সেদিক থেকে পিছিয়ে নেই গেরুয়া শিবির। বিজেপি সূত্রের খবর, সেপ্টেম্বরে বুথ সভাপতি, অক্টোবরে মণ্ডল সভাপতি এবং নভেম্বরের মধ্যে জেলা সভাপতি নির্বাচন হবে।

এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা বিজেপির মুখপাত্র প্রশান্ত চক্রবর্তী বলেন, “আমাদের দলের সাংগঠনিক নির্বাচন পর্ব চলছে। দ্রুত নতুন কমিটি গঠন হবে।” তবে এই প্রক্রিয়ায় কোন নেতার ডানা কাটা যাবে, আর কোন নেতা অক্সিজেন পাবেন! তা নিয়ে চিন্তায় ঘুম হচ্ছে না অনেকেরই। সবমিলিয়ে 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে পশ্চিম বর্ধমান জেলায় বুথস্তর পর্যন্ত সংগঠন সাজাতে তৎপর তৃণমূল-বিজেপি দুই পক্ষই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!