এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শাখা সংগঠনের নাম ভাঙিয়ে চাঁদা তুললে এবার থেকে কঠোর শাস্তির নিদান তৃণমূলে

শাখা সংগঠনের নাম ভাঙিয়ে চাঁদা তুললে এবার থেকে কঠোর শাস্তির নিদান তৃণমূলে

দলের নাম করে কেউ কোথাও কোনো টাকা তুললে তাকে রেয়াত করা হবে না বলে অনেকদিন আগেই সতর্ক করে দেওয়া হয়েছিল। তবে কিছুদিন আগেই শ্রমিক সংগঠনের নাম ভাঙিয়ে কেউ টাকা তুললে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে বহরমপুরে এমনই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মুর্শিদাবাদ জেলা তৃনমূর সভাপতি আবু তাহের।

তৃণমূল সূত্রের খবর, নতুন জেলা কমিটি গঠন নিয়ে বৈঠক ডেকেছিলেন জেলা সভাপতি। সেখানে দলীয় বিধায়ক, সংসদ সদস্য, মহকুমা সভাপতি সহ জেলার হেভিওয়েট নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে কান্দির এক তৃনমূল নেতা বলেন, “শ্রমিক সংগঠনের তহবিল গঠনের নামে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে চাঁদা তোলা হচ্ছে। তাতে দলের ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এটা বন্ধ করা উচিত।”

আর এরপরই জেলা তৃনমূল সভাপতি নির্দেশ দিয়ে বলেন, “কেউ শ্রমিক সংগঠনের নামে চাঁদা তুলতে পারবেন না। এরকম অভিযোগ এলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।” অন্যদিকে এই ব্যাপারেআইএনটিটিইউসির জেলা সভাপতি আবু সুফিয়ানকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, “আইএনটিটিইউসির নামে কোথাও কেউ চাঁদা তোলেন না। আমাদের কাছে এরকম অভিযোগ এলে সঙ্গে সঙ্গে পদক্ষেপ নিই।”

সূত্রের খবর, এই জেলায় আইএনটিটিইউসির সংগঠন মূলত পরিবহণ কর্মীদের উপর নির্ভরশীল। বহরমপুর, জঙ্গিপুর, কান্দি সহ বিভিন্ন এলাকায় বহু পরিবহণ কর্মী রয়েছেন, যারা বিভিন্ন জায়গায় চালকদের কাছ থেকে শ্রমিক তহবিলের নাম করে টাকা তোলা হয় বলে অভিযোগ ওঠে। আর তা নিয়েই জেলায় পরিবহণ কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ বইতে শুরু করেছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

রাজনৈতিক মহলের একাংশ বলছেন, সামনেই জেলার বহরমপুর, কান্দি, জঙ্গিপুর, আজিমগঞ্জ-জিয়াগঞ্জ, মুর্শিদাবাদ পৌরসভার ভোট রয়েছে। শুধু তাই নয়, বিধানসভা নির্বাচনেরও খুব একটা দেরি নেই। আর তাই সেই নির্বাচনের আগে কোনওভাবেই দলের ভাবমূর্তি যাতে খারাপ না হয়, সেই কারণেই তৃনমূল একাধিক পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে। দলের নতুন জেলা কমিটি গঠনেও তারা সাবধানে পা ফেলতে চাইছে।

একাংশ মনে করছেন, এই জেলায় বহু টোটো এবং ট্রেকার চালক রয়েছেন। তাই এই ভোটব্যাঙ্ক তৃণমূল নিজেদের দখলে রাখতে পারলে আগামীদিনে তাদের পথ চলা অনেকটাই সুবিধা হবে বলে মত অনেকের। এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্যের শ্রম প্রতিমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা জাকির হোসেন বলেন, “গত আর্থিকবর্ষে সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে আমাদের জেলা থেকে সবচেয়ে বেশি নাম নথিভুক্ত হয়েছিল। আগামীদিনেও যাতে সমস্ত শ্রমিক বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা পান তা দেখা হবে।”

এদিন এই প্রসঙ্গে তৃনমূলের এক নেতা বলেন, “আগামীদিনে সমস্ত শাখা সংগঠনও ঢেলে সাজানো হবে। কেউ সংগঠনের নামে চাঁদা তুললে সরিয়ে দেওয়া হবে। রাজ্য নেতৃত্বের কড়া নির্দেশ রয়েছে।” অন্যদিকে এই ব্যাপারে তৃণমূলের মুখপাত্র অশোক দাস বলেন, “কেউ দল বিরোধী কোনও কাজ করতে পারবে না।” সব মিলিয়ে এবার দলের শাখা সংগঠনের পক্ষ থেকে নাম ভাঙিয়ে চাঁদা তোলা যাতে না হয়, তার জন্য সকলকে সতর্ক করল ঘাসফুল শিবির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!