এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজ্যের প্রতিটি লোকসভায় করে জনসভা – যাবেন রাজ্যের বাইরেও – তৃণমূলের ভরসা তৃণমূল নেত্রীই

রাজ্যের প্রতিটি লোকসভায় করে জনসভা – যাবেন রাজ্যের বাইরেও – তৃণমূলের ভরসা তৃণমূল নেত্রীই

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে 42 এ 42 টি আসন নিজেদের দখলে রাখতে যে আসনে যাকেই প্রার্থী করা হোক না কেন, সমস্ত আসনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখেই ভোট দেওয়া উচিত বলে জানিয়ে দিয়েছেন তৃনমূলের হেভিওয়েট নেতা মন্ত্রীরা। আর সেই মতই এবার দলের সর্বময় কত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিয়েই আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ঝাঁপিয়ে পড়তে চায় তৃনমূল কংগ্রেস।

সূত্রের খবর, আগামী এপ্রিল মাসের প্রথমেই উত্তরবঙ্গের দুটি আসন আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে সেখানে জনসভায় অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কেননা এটা প্রায় প্রত্যেকেরই জানা যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিনা তৃণমূল কংগ্রেসের জয়লাভ অনেকটাই কঠিন হয়ে পড়তে পারে।

আর তাই তো আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে যখন 42 এ 42 করার ডাক দিয়েছেন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে সরাতে বিজেপি বিরোধী মহাজোটে প্রধান ভূমিকা নিয়েছেন তিনি, ঠিক তখনই তার রাজ্যে বিজেপি যাতে একটি আসনও দখল না করতে পারে তার জন্য আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিভিন্ন কেন্দ্রে গিয়ে দফায় দফায় প্রচার চালাতে চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তবে শুধু বাংলার ক্ষেত্রেই নয়, আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বিরোধী মহাজোটের প্রধান ভূমিকায় থাকা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিজেদের প্রচারে পাওয়ার জন্য অসম, উত্তর পূর্ব ভারতের ঝারখন্ড, বিহার, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ ও দক্ষিণ ভারত সহ বেশ কয়েকটি রাজ্য থেকে সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাতে প্রচারে আসেন তার জন্য আবেদন পত্র জমা পড়েছে। সেক্ষেত্রে জাতীয় রাজনীতিতে যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গুরত্ব বিজেপি বিরোধী জোটে একপ্রকার বৃদ্ধি পাচ্ছে সেই ব্যাপারে কিছুটা হলেও নিশ্চিত রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, প্রায় সব রাজ্যে এক কিংবা দু’দফা বা তিন দফায় নির্বাচন হলেও বাংলায় নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সাত দফা নির্বাচন করার ঘোষণা করলে প্রথম থেকেই এই ব্যাপারে বিজেপির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে বিভিন্ন রাজ্য থেকে প্রচারের ডাক আসায় এবং রাজ্যের বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রচার করার জন্য সময় পাওয়ায় এদিন সেই ব্যাপারে অন্য সুর শোনা গেল সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলাতেই।

এদিন এই ব্যাপারে তৃণমূল নেত্রী বলেন, “সাত দফায় ভোট ঘোষণা হওয়ায় যে বা যারা ভেবেছিল আমাকে আটকে রাখা যাবে, তারা ভুল ভাবছে। বরঞ্চ হেসে খেলে গোটা নির্বাচন করতে পারব। ধাপে ধাপে নির্বাচন হওয়ায় রাজ্যের সব কটা আসন ছুতে পারব। পাশাপাশি ভিন রাজ্যেও প্রচারে যেতে পারব।”

ইতিমধ্যেই সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট থেকে রাজ্যের বিভিন্ন কেন্দ্রে দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে জোর প্রচার শুরু করে দিয়েছে তৃণমূলের সাইবার সেল। শাসকদলের হেভিওয়েট নেতা মন্ত্রীরা রাজ্যের 42 টি কেন্দ্রের মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে প্রচারও শুরু করেছেন।

আর এবার খোদ দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে প্রচার শুরু করলে তৃণমূলের জয়লাভ অনেকটাই সহজ হবে বলে মনে করছেন রাজ্যের শাসক দলের নেতাকর্মীরা। তবে এত তেল পুড়িয়েও শেষ রাতে রাধা আদৌ নাচে কিনা তা দেখবার জন্য অপেক্ষা করতেই হবে আগামী 23 মে ভোটবাক্স খোলার পর্যন্ত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!