এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > যত দিন যাচ্ছে ততই তৃণমূলীদের ওপর হামলার অভিযোগ বাড়ছে খোদ শুভেন্দু-গড়ে,নিশানায় বিজেপি

যত দিন যাচ্ছে ততই তৃণমূলীদের ওপর হামলার অভিযোগ বাড়ছে খোদ শুভেন্দু-গড়ে,নিশানায় বিজেপি

রাজ্য রাজনীতিতে এবার কি উলটপুরাণ হতে চলেছে? লোকসভা নির্বাচনের দিন যতই এগিয়ে আসছে ততই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে খবর আসতে শুরু করেছে যে, শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের ওপর ব্যাপক হামলা চালাচ্ছে বিরোধী দল বিজেপি।

আর এবারে সেই শাসকের কর্মীদের ওপর বিজেপি কর্মীদের হামলার অভিযোগে চরম চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল খোদ রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারীর খাসতালুক ময়নার বাকচা এলাকায়। কিন্তু কি নিয়ে বিবাদ? আর কেনই বা এই হামলার ঘটনা ঘটলো?

সূত্রের খবর, গত বুধবার রাতে আন্দারিয়া গ্রামে তৃণমূল কর্মীদের ওপর হামলা চলায় ও পাঁচ তৃণমূল কর্মী এই ঘটনায় আহত হওয়ায় অভিযোগের আঙুল ওঠে বিজেপির দিকে। আর বুধবারের এই ঘটনায় ইতি পড়লেও ফের বৃহস্পতিবার রাতে বিজেপির এক কর্মীকে খিদিরপুর গ্রামে গ্রেপ্তার করতে গেলে ভুলবশত তার ভাইকে মাক পুলিশের পক্ষ থেকে মারধর করা হলে এলাকায় তুমুল উত্তেজনা ছড়ায়।

জানা যায়, এরপরই ঠিক রাত সাড়ে দশটা নাগাদ খিদিরপুর গ্রামের পঞ্চায়েত সদস্যা পুতুল রানী দাস বাড়ইয়ের স্বামী সঞ্জয় বাড়ইয়ের ওপর হামলা চালায় কিছু বিজেপি কর্মী। তবে শুধু সঞ্জয় বাড়ই নয়, গোবরাধন গ্রামের বাসিন্দা প্রবীর বাড়ই, তৃণমূল কর্মী পবিত্রকুমার মন্ডল, শম্ভুচরণ মণ্ডল, মিলন কুমার বাড়ই, সুশীলকুমার ভূঁইয়ার ওপরও ব্যাপক হামলা চালানো হয়।

এমনকি তাদের বাড়িও ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ। এদিকে এই ঘটনায় এলাকায় প্রবল উত্তেজনার সৃষ্টি হলে পুলিশ আসার সাথে সাথেই চম্পট দেয় সেই বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। অন্যদিকে এই ঘটনায় অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিয়েছেন মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সুরজিৎ মন্ডল।

পাশাপাশি তৃণমূল কর্মীদের ওপর এই হামলা চলায় ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে শাসক-বিরোধী প্রবল তরজা। এদিন বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলে ময়নার বিধায়ক সংগ্রাম দোলই বলেন, “রাতের অন্ধকারে কাপুরুষের মতো আমাদের কর্মীদের ওপর আক্রমণ করা হচ্ছে। এই ঘটনার পিছনে বিজেপিরই হাত রয়েছে।”

অন্যদিকে তাদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বিজেপির তমলুক জেলা সভাপতি প্রদীপ দাস বলেন, “ওখানে আমাদের মাত্র তিনজন পঞ্চায়েত সদস্য আর তৃণমূলের 17 জন পঞ্চায়েত সদস্য রয়েছে। সীমিত ক্ষমতা নিয়ে আমরা কী করে ওদের উপর হামলা করবো! আসলে পঞ্চায়েতের টাকার ভাগ নিয়ে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে যে যাই বলুক না কেন এলাকায় যে ভাবে শাসক দলের কর্মীদের ওপর হামলা চলছে এবং যেভাবে এতে নাম জড়াচ্ছে বিজেপির, তাতে এলাকায় পদ্মের উত্থান নিয়ে প্রবল চিন্তায় রাজ্যের ঘাসফুল শিবির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!