এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > উত্তর দিনাজপুরে তৃনমূলে “তৎকাল” পদ পাওয়া নিয়ে তীব্র লড়াই শুরু অন্যদল থেকে আসা নেতাদের

উত্তর দিনাজপুরে তৃনমূলে “তৎকাল” পদ পাওয়া নিয়ে তীব্র লড়াই শুরু অন্যদল থেকে আসা নেতাদের

এবার ব্লক সভাপতি পদ নিয়ে তৃনমূল বনাম তৃনমূলের তীব্র লড়াইকে ঘিরে জমজমাট উত্তর দিনাজপুর জেলার রাজনীতি। সূত্রের খবর, উত্তর দিনাজপুর জেলার চাকুলিয়া তৃণমূল ব্লক সভাপতি সেতাবউদ্দিন ওরফে মুন্নাকে তাঁর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া নিয়ে দলের একাংশ দাবি তুলেছে।

আর সেতাবউদ্দিনের জায়গায় ব্লক সভাপতির পদে তাঁরা ভোলানাথ রায়কেই চাইছেন। আবার অনেকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের পরে তৃণমূলে যোগ দেওয়া এই ভোলানাথ রায়কে ব্লক সভাপতির পদে মানতে নারাজ। আর এই চাকুলিয়া ব্লক তৃণমূলের সভাপতি পদ নিয়ে তৃণমূল বনাম তৃণমূলের দড়ি টানাটানিকে ঘিরে অস্বস্তিতে পড়েছেন উত্তর দিনাজপুর জেলার তৃণমূল নেতৃত্ব।

তৃণমূল সূত্রের খবর, এই সেতাবউদ্দিন ওরফে মুন্নাকে চাকুলিয়া ব্লক তৃণমূলের সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য উত্তর দিনাজপুর জেলার এক মন্ত্রী, প্রাক্তন ব্লক সভাপতি, ডিপিএসসির প্রাক্তন চেয়ারম্যান ও জেলা পরিষদের এক প্রাক্তন সদস্য দলের কাছে তদ্বির করেছেন। আর এই জায়গায় তাঁরা ব্লক সভাপতি হিসেবে সদ্য কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগ দেওয়া ভোলাবাবুকেই চাইছেন।

কিন্তু দলেরই অন্দরে একাংশ অবশ্য বলছেন ভোলাবাবু সম্প্রতি কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। ফলে দলে যোগ দিয়েই তাঁকে পদ দেওয়াটা খুব একটা ঠিক কাজ হবে না। এমনকি বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে পঞ্চায়েত সমিতির আসন থেকে তিনি তাঁর স্ত্রীকে দাঁড় করালেও সেইখানে তাঁর স্ত্রী জয়লাভ করতে পারেননি। ফলে সেই ভোলাবাবুকে ব্লক সভাপতির দায়িত্ব দিলে আদৌ দলের কতজন তাঁকে মানবেন তা নিয়ে একটা সংশয় রয়েই যাচ্ছে।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিকে চাকুলিয়া ব্লক তৃণমূল সভাপতি পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে দলের একাংশের তৎপরতা প্রসঙ্গে এদিন সেই চাকুলিয়া ব্লকের তৃণমূল সভাপতি সেতাবউদ্দিন বলেন, “দলের একাংশ আমাকে সরাতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছে বলে শুনেছি। কিন্তু আমি দায়িত্ব নেওয়ার পরই এখানে দলের সংগঠন মজবুত হয়েছে। আমার সঙ্গে মানুষ আছে। ভোলাবাবুকে আমার আসনে বসানোর কথা চলছে। কিন্তু তিনি তো নিজেই তাঁর স্ত্রীকে পঞ্চায়েত সমিতিতে দাঁড় করিয়ে জিততে পারেননি।”

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে সেই ভোলানাথ রায় বলেন, “আমি দলের হয়ে কাজ করছি। দল আমাকে যে দায়িত্ব দেবে তা আমি পালন করব।” কিন্তু তাহলে কি অবশেষে চাকুলিয়া ব্লক তৃণমূলের সভাপতি পদ থেকে সেতাবউদ্দিনকে সরিয়ে বসানো হবে ভোলানাথ রায়কেই? কি বলছেন এই বিষয়ে জেলা তৃণমূলের নেতৃত্বরা?

এদিন এই প্রসঙ্গে জাহিদ আলম আরজু বলেন, “দলের সংগঠন শক্তিশালী করার জন্য দল কাকে দায়িত্ব দেবে তা ঊর্ধ্বতন নেতৃত্তের ব্যাপার।” অন্যদিকে বর্তমান ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ ওঠাতেই হয়ত নেতৃত্ব পদক্ষেপ করতে চাইছে বলে এদিন মন্তব্য করেন এই চাকুলিয়া ব্লক তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি বিপ্লব মন্ডল। তবে সমস্ত জল্পনাকে কাটিয়ে রাজ্যের উপরেই সমস্ত বল ঠেলে দিয়েছেন উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি অমল আচার্য।

এদিন তিনি বলেন, “চাকুলিয়া দলের নেতৃত্বের একাংশ সেতাবউদ্দিনকে সরিয়ে ভোলানাথ রায়কে ব্লক সভাপতির পদে আনতে চাইছেন। এই বিষয়ে দলের জেলা পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারীকে জানানো হয়েছে। ব্রিগেডের সভার পরেই তিনি গোটা বিষয়টা দেখবেন।” সব মিলিয়ে এখন উত্তর দিনাজপুর জেলার চাকুলিয়া তৃণমূলের ব্লক সভাপতি পদে আদৌ রদবদল করেন কিনা শুভেন্দু অধিকারী এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!