এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিবাদে তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে পদত্যাগ মেমারি কলেজের অধ্যক্ষের

কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিবাদে তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে পদত্যাগ মেমারি কলেজের অধ্যক্ষের

জৈষ্ঠ্যের এই দাবাদহে উষ্ণতার পারদ আরো চড়া হল বর্ধমানের মেমারিতে। গরমের ছুটি নিয়ে ঘটল কেলেঙ্কারি মেমারি কলেজে। জানা গেছে, বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অওতাধীন কলেজগুলোতে গরমের ছুটির জন্য বরাদ্দ ছিল ৩৫ দিন ছুটি। কিন্তু মেমারি কলেজে পঞ্চায়েত ভোটের ডিসিআরসি সেন্টার হওয়ায় ৩৫ দিনের ছুটি থেকে ১০ দিন কমিয়ে দেওয়া হয়। এবার ওই বাকি ১০ দিন ছুটি এই মঙ্গলবার থেকে দেওয়ার দাবী তুলে মেমারি ১ নং ব্লক তৃণমূল ছাত্র পরিষদ সভাপতি তথা কলেজেট গ্রুপ সি কর্মী মুকেশ শর্মার নেতৃত্বের জড়ো হয় বেশ কিছু জন। তারপর তাঁরা জোটবদ্ধভাবে হাজির হয় কলেজ অধ্যক্ষের দোরগোড়ায়। কিন্তু সেই ছুটি সিলেবাসে না থাকায় তাঁদের দাবী মানতে অস্বীকার করেন অধ্যক্ষ।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

কলেজ অধ্যক্ষ দাবীদারের ফিরিয়ে দেওয়ার ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসতে থাকেন তাঁরা। এর জেরে শুরু করে সংঘাত। এদিন বেলা ১১ টা থেকে বিকেল ৪ টে অব্দি অধ্যক্ষ সহ অন্যান্য কলেজ আধিকারিকদের আটক করে রাখে কলেজেই। অভিযোগ তৃণমূলের বহিরাগতদের হাতে টানা ঘেরাও থাকতে হয় তাঁদের।শুধু তাই নয়, পরিস্থিতি প্রতিকূল করতে এই গরমে কেড়ে নেওয়া হয় অধ্যক্ষের জলের বোতল,বন্ধ করে দেওয়া হয় ফ্যান এমনকি টয়লেটকেও তালাবন্ধ অবস্থায় রাখা হয়। এর জেরে অসুস্থ হয়ে পড়েন ৫ জন অধ্যাপক। ১ একজনের অবস্থা এতোটাই গুরুতর হয়ে পড়ে যে তাকে ভর্তি করা হয় নিকটস্থ হাসপাতালে।

চরম হিংসার শিকার হয়ে এদিন ক্ষুব্ধ কলেজের অধ্যক্ষ দেবাশিস চক্রবর্তী জেলাশাসক, বিশ্ববিদ্যালয় এর উপাচার্য এবং শিক্ষামন্ত্রীরকাছে বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ করেন। কর্তৃপক্ষের সঙ্গে গরমের ছুটি নিয়ে বিবাদের প্রসঙ্গ সামনে রাখেন এবং রাতেই তিনি তার অধ্যক্ষ পদত্যাগপত্র জমা দিয়ে দেন। এমনটাই জানা যাচ্ছে। আসছে ১২ জুন কলেজের পরিচালন সমিতির সভা রয়েছে। সেখানেই তাকে অধ্যক্ষ পদের দায়িত্ব থেকে নিস্তার দেওয়া হোক,এমনটাই আর্জি জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন দেবাশিস বাবু।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!