এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েই ‘কাজ’ শুরু মৌসম নূরের, তাঁর হাত ধরেই বড়সড় ভাঙ্গন মালদা কংগ্রেসে

তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েই ‘কাজ’ শুরু মৌসম নূরের, তাঁর হাত ধরেই বড়সড় ভাঙ্গন মালদা কংগ্রেসে



এগিয়ে আসছে লোকসভা নির্বাচন, আর এবারের নির্বাচনে একদিকে যখন রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি রাজ্যের ৪২ টি আসনের মধ্যে ৪২ টি আসনেই দখল করবে তারা, অন্যদিকে তেমনই পাল্লা দিয়ে পদ্মফুল শিবিরের দাবি বাংলায় খুব কম করে নাকি ২২-২৩ টি আসনে হবে গেরুয়া শিবিরের জয়-জয়কার।

আর বিজেপির এই ২২-২৩ টি আসনের মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য মালদা জেলার দুটি আসন, যা এতদিন কংগ্রেসের গড় হিসাবেই পরিচিত ছিল। কিন্তু, লোকসভা ভোটের মুখে সেখানে চূড়ান্ত চমক দিয়ে কংগ্রেসের হেভিওয়েট নেত্রী তথা মালদা উত্তরের কংগ্রেস সাংসদ মৌসম বেনজির নূরকে দলে নেয় তৃণমূল কংগ্রেস।

আর তৃণমূল কংগ্রেসে পদার্পন করেই স্বয়ং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে মৌসম নূর নিশ্চয়তা পেয়ে যান যে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে মালদা উত্তর কেন্দ্র থেকে তিনিই শাসকদলের টিকিট পেতে চলেছেন। আর তাই দেরি করেননি তিনি, নতুন দলে যোগ দিয়েই শুরু করে দিয়েছেন জেলা সফর।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সেখানে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে দেখা করার পাশাপাশি তাঁর পুরোনো দলের নেতা-কমীদেরও শাসকদলে আনার প্রক্রিয়া জারি রেখেছেন তিনি। মৌসম নূরের হাত ধরে গতকাল গাজোল ও চাঁচলের বহু পঞ্চায়েত সদস্য ও বুথস্তরের কংগ্রেস কর্মীরা করেন। তবে, তাঁর দাবি, আগামীদিনে এই যোগদানের ঢল আরও বাড়বে।

গাজোল ও চাঁচলে দু-দুটি জনসভা করে মৌসম নূর বার্তা দেন, দিদির স্বপ্নপূরণ করুন, প্রয়াত বরকত গনিখান চৌধুরীর সম্প্রীতির আদর্শকে অটুট রাখুন, বিজেপিকে রুখে দিন। কেননা বিজেপি হল বিষাক্ত ভাইরাস, যা মালদহের মানুষের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ককে নষ্ট করতে কাজ করছে। আমি কৃতজ্ঞ যে দিদি আমাকে সাদরে গ্রহণ করেছেন। শুধু তাই নয়, এই জেলায় সাম্প্রদায়িক বিজেপিকে রুখে দিতে দায়িত্ব দিয়েছেন।

উনি আমাকে লোকসভার প্রার্থী ঘোষণা করেছেন, দলে সম্মানীয় সাধারণ সম্পাদকের পদ দিয়েছেন। দিদি এভাবেই প্রত্যেক মানুষকে নিয়ে আলদা করে ভেবেছেন। তাই আমাদের দায়িত্ব তাঁর স্বপ্নপূরণ করা। এজেলাতে মৌসম নুর জেতা অপেক্ষাও বড় কথা দিদির লোকসভা নিয়ে স্বপ্ন পূরণ করা।

যদিও মৌসম নূরের হাত ধরে এই দল পরিবর্তনকে বিশেষ আমল দিতে রাজি নয় মালদা কংগ্রেস। কংগ্রেসের জেলা নেতৃত্বের দাবি, যাঁরা দল ছাড়ছেন তাঁরা প্রকৃত কংগ্রেসী নন। অচিরেই তাঁদের মোহভঙ্গ হবে, মালদহের মানুষ কংগ্রেসের সঙ্গেই থাকবে। তবে, এতে একটুও দমে যেতে রাজি নন মৌসম নূর – উল্টে তাঁর দাবি, আমি তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর থেকে যেভাবে আমজনতা, তৃণমূল, কংগ্রেস থেকে বিজেপি বিরোধী মানুষদের সমর্থন পেয়েছি তাতে একটা জিনিস পরিস্কার হয়ে গিয়েছে, এই জেলায় বিজেপির কোনও জায়গা নেই।

এই জেলার প্রবাদপ্রতিম নেতা, আমার মামা বরকত গনি খান সাহেব জেলার মানুষকে ঐক্যের সূত্রে বেঁধেছিলেন, একটি সম্প্রীতির আদর্শে সংযুক্ত করেছিলেন। বিজেপির ভাইরাস সেই ঐক্যকে জেঙে দিতে চাইছে। আমাদের সকলকে জেলার স্বার্থে, উন্নয়নের স্বার্থে সেই ভাইরাসকে রুখে দিতে হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!