এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > তৃণমূল টের পাবে লোকসভা ভোটে হম্বিতম্বি করার মতো জোর আর থাকছে না: দিলীপ ঘোষ

তৃণমূল টের পাবে লোকসভা ভোটে হম্বিতম্বি করার মতো জোর আর থাকছে না: দিলীপ ঘোষ

পঞ্চায়েত মনোনয়নকাল থেকেই সন্ত্রাসের জেরে দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল গোটা রাজ্যের আবহ। হাওয়ায় উড়ছিলো হিংসার বীজ। আর এইরকম পরিস্থিতির জন্য অভিযোগের প্রায় সবকটা আঙুলই উঠেছিলো তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে। লোকসভা নির্বাচনেও একইরকম অবস্থা সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা করছেন বিরোধীদলগুলো। পঞ্চায়েত নির্বাচনের দৌড়ে তৃণমূলকে টেক্কা দিয়ে দ্বিতীয় স্থান করে নিয়েছে গেরুয়াপার্টি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এদিন বিজেপির রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ শাসকদলের উদ্দেশ্যে কড়া ভাষায় শাসানি দিয়ে  বললেন পঞ্চায়েত নির্বাচনের মতো লোকসভা নির্বাচনেও যদি তৃণমূল পুলিশ আর গুন্ডা দিয়ে ভোট করানোর কথা ভাবে তাহলে তাঁরা বোকামি করছে। আর লোকসভা হবে সামনের বছর। তার আগে এবছরই জোড়াফুল শিবির বুঝতে পারবে যে নিজেদের ইচ্ছেমতো জোর খাটাবার শক্তি ওদের ফুরিয়ে গেছে। একইদিকে ঘাড় কাত্ করে বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী জানান যে পঞ্চায়েতে তৃণমূল ভোট না করে করেছে গণতন্ত্রের শ্রাদ্ধ। ওঁদের যদি সাহস থাকে তবে যেন গণতন্ত্র মেনে একবার ভোট করে। মানুষ যে পঞ্চায়েতের প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য বসে আছে, এটাও যেনো মাথায় রাখে। অন্যদিকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী জানান,” লোকসভা ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে। তখন বোঝা যাবে,কে কোথায় দাঁড়িয়ে।” অর্থাৎ অধীরবাবুর বিশ্বাস শাসকদলে আগামী লোকসভা ভোটে কারচুপি করার কোনো সুযোগই পাবে না কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকায়। বিরোধীদের মন্তব্য স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে যে, রাজ্যের শাসকদলকে ধরাশায়ী করতে তাঁরা বদ্ধপরিকর। এখন লোকসভা ভোটকে টার্গেট করেই তাঁরা এগোবেন। এমনটাই জানা যাচ্ছে রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!