এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > তৃণমূলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলেও দিনাজপুরে ছক উল্টে দেবার বিশেষ পরিকল্পনায় গেরুয়া-শিবির

তৃণমূলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলেও দিনাজপুরে ছক উল্টে দেবার বিশেষ পরিকল্পনায় গেরুয়া-শিবির

সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পেয়ে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় পঞ্চায়েত সমিতির বোর্ড গঠনের দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। সভাপতি এবং সহসভাপতি পদ নিয়ে দলের অন্দরে একটু মতবিরোধ থাকলেও তেমন কোনো উল্লেখযোগ্য সমস্যা তৈরি হয়নি বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে।  তবে বালুরঘাট এবং হিলি পঞ্চায়েত সমিতিতে শাসকদল বেশি আসনে জয় হাসিল করতেও তাদের দল ভাঙিয়ে বিজেপি বোর্ড গঠনের ফিরিক খুঁজছে।

গোপন সূত্র থেকে এমন আভাস পেয়ে বালুরঘাট পঞ্চায়েত সমিতির জয়ী ১৭ জন প্রার্থীকে সরিয়ে শহরের একটি হোটেল রেখেছে তৃণমূল। এমনটাই জানা গিয়েছে।বালুরঘাট পঞ্চায়েত সমিতির মোট ৩২ টি আসনের মধ্যে তৃণমূল ১৭ টি,বিজেপি ১৪ টি এবং আরএসপি ১ আসন পেয়েছে। হিলি পঞ্চায়েত সমিতির ১৪ টি আসনের মধ্যেও সংখ্যাগরিষ্ট ৯ টি আসন পেয়ে বাজিমাত করেছে তৃণমূল। বিজেপি পিছিয়ে ৫ টি আসন পেয়ে। কুমারগঞ্জ পঞ্চায়েতেও একইভাবে এগিয়ে আছে শাসকদল। ২৩ টি আসনের মধ্যে ১৭ টিতেই ঝান্ডা উড়েছে জোড়াফুলে।

অন্যদিকে বিজেপির ঝুলিতে এসেছে মাত্র ৬ টি আসন। আর বাকি ৫ পঞ্চায়েত সমিতিতেও বিরোধীদের কোনো নামগন্ধই নেই। এরকম অবস্থায় বিজেপির বোর্ড গঠনের কোনো সম্ভাবনাই নেই। সেটা বুঝেই বালুরঘাট এবং হিলি পঞ্চায়েতের কমপক্ষে তিনজন করে জয়ী সদস্যকে নিজেদের দলে টেনে বোর্ড গঠনের দৌড়ে এগিয়ে থাকতে চাইছে বিজেপি। কিন্তু এতো আসনের ফারাকে জিতে বোর্ড গঠনের সুযোগ হারাতে চায় না শাসকদল।

তাই বিজেপির রণকৌশল নিয়ে চাপা উদ্বেগও রয়েছে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বদের মধ্যে। দলের কেউ বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে কিনা সে ব্যাপারে কড়া নজরদারী চালানো হচ্ছে। এবং জয়ী প্রার্থীদের বিজেপির নাগালের বাইরে রাখতে আলাদ করে বালুরঘাটের একটা হোটেলও রাখা হয়েছে। এমনটাই জানালেন বালুরঘাট ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি প্রবীর রায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে,এদিনের বোর্ড গঠনের ব্যাপারে প্রচন্ড আত্মবিশ্বাসী তৃণমূলের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র। জানালেন,সবথেকে বেশি আসন পেয়ে বোর্ড গঠনের প্রতিযোগীতায় এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। দক্ষিণ দিনাজপুরের সব কটি বোর্ড নিশ্চিতভাবে তৃণমূলই গঠন করবে। তবে সভাপতি এবং সহ সভাপতি কে হবেন,তা নিয়ে কোনো সিদ্ধান্তের কথা তিনি প্রকাশ করতে চাইলেন না।

ইতিমধ্যেই নাকি তৃণমূলের বেশ কয়েকজন জয়ী সদস্য বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। এমনটাই জানা গেল বিজেপি তরফের সূত্র থেকে।  সভাপতি, সহ সভাপতি নিয়ে তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্বকে কাজ লাগিয়েই বিজেপি কার্যসিদ্ধি করতে চাইছে। এ প্রসঙ্গে,বিজেপির জেলা সম্পাদক মানস সরকার জানিয়েছেন,’আমরা সংখ্যাগরিষ্ঠতায় না থাকলেও বালুরঘাট ও হিলি পঞ্চায়েত সমিতি দখল করার জন্য কিছু কৌশল নিয়েছি। সবটা সময়েই প্রকাশ পাবে।’ এই প্রেক্ষিতে দক্ষিণ দিনাজপুরের বোর্ডগঠনকে কেন্দ্র কেন্দ্র বিজেপি কোন দাবার ঘুঁটির চাল চালে সেদিকে তাকিয়ে রয়েছে গোটা রাজনৈতিকমহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!