এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > জলপাইগুড়িতে বিজেপি ‘ফ্যাক্টর’ নয়, রেকর্ড মার্জিনে জিতবে তৃণমূল – দাবি প্রার্থী ও জেলা সভাপতির

জলপাইগুড়িতে বিজেপি ‘ফ্যাক্টর’ নয়, রেকর্ড মার্জিনে জিতবে তৃণমূল – দাবি প্রার্থী ও জেলা সভাপতির

Priyo Bandhu Media

আসন্ন লোকসভা ভোটে জলপাইগুড়িতে তৃনমূলের জয় নিয়ে ব্যাপক আশাবাদী শাসকদল। এমনটাই ইঙ্গিত পাওয়া গেল জলপাইগুড়ির তৃণমূল কংগ্রেসের মনোনীত প্রার্থী বিজয় চন্দ্র বর্মনের বক্তব্যে। বললেন,গত লোকসভা ভোটে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইটা অনেকটাই কঠিন ছিল। কিন্তু এবারে লোকসভা ভোটে হাওয়া অন্যদিকে বইছে।

রাজ্যের মানুষ তৃণমূলের তরফেই রয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে জলপাইগুড়িতে ইউনিভার্সিটি,মেডিক্যাল কলেজ তৈরি হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনদরদী রূপ মানুষ ভুলে যাবে না কখনোই। তাছাড়া দ্বিতীয়বার সংসদ সদস্য হলে জলপাইগুড়ির মনোরম পরিবেশে ইউনিটারি ইউনিভার্সিটি গড়ে তোলার আশ্বাস দেন তিনি।

এটা হলে উত্তরবঙ্গে শিল্পকলার বিকাশ গবেষণার সুযোগ তৈরি হবে বলে জানালেন তিনি। এছাড়া যে সর্প উদ্যান গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল তা সম্পূর্ণ করারও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। জলপাইগুড়িতে ফিরে সাংবাদিকদের সম্মুখীন হয়ে এমনটাই বলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী বিজয় চন্দ্র বর্মন।

বিজয় বাবুর বক্তব্য,বিগত পাঁচ বছর মানুষের উন্নয়ন করেছে তৃণমূল সরকার। এটাই তৃণমূলের একমাত্র বীজমন্ত্র। আগামীদিনেও তৃণমূল মানুষের পাশে থেকে মানুষের হয়েই কাজ করবে। এদিন সকালে ট্রেনে কোলকাতা থেকে জলপাইগুড়ি স্টেশানে নামতেই প্রার্থী বিজয় চন্দ্র বর্মনকে ঘিরে কর্মী সমর্থকদের উন্মাদনা ছিল নজরকাড়া।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বিজয় বাবুর নামে জয়োল্লাস করতে করতে স্টেশন থেকে ওল্ড পুলিশ লাইনের বাড়ি পর্যন্ত চলে আসেন সমর্থকরা। বাড়িতে ফিরে ঠাকুরঘরে প্রার্থনা সেরেই দলীশ কার্যালয়ে যান তিনি। দলীয় নেতা সৌরভ চক্রবর্তী বিজয়বাবুকে পাশে বসিয়েই সাংবাদিক বৈঠক করেন এদিন।

সৌরভবাবুর বক্তব্য,গত লোকসভা নির্বাচনের সময় জলপাইগুড়ি জেলার ৮০ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে ৩০ টিই তৃণমূলের দখলে ছিল। বামেদের দখলে থাকা গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূল নিজেদের শক্তি প্রমাণ করে। আর সেজন্যে গতবারের লড়াইটা ছিল বেশ কঠিন।

কিন্তু এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৮০ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে ৬৯ টিই দখলে রয়েছে তৃণমূলের। পরবর্তী পদক্ষেপে আরো ৬ টি গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূলের দখলে এসেছে। বাকিগুলোও শীঘ্রই শাসকদলের দখলে আসবে বলেই মনে করছেন তিনি। সৌরভবাবু আরো জানালেন,জলপাইগুড়িতে ১৮৮৮ টি পোলিং স্টেশনে তৃণমূলের বুথ কমিটি রয়েছে। অন্য কোনো রাজনৈতিক দলের ১০% বুথকমিটিও সেখানে নেই।

ফলত তৃণমূল যে জয়ের রেকর্ড গড়বে তাতে কোনো সন্দেহ নেই জেলা তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতার। তিনি আরো জানান,আগামী ১৭ মার্চ রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস জলপাইগুড়ির আর্ট গ্যালারিতে কর্মিসভা করবেন। এরপর রাজ্যের মন্ত্রী শশী পাঁজা এবং মলয় ঘটকেরও জেলায় আসার কথা রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও বিজয়বাবুর হয়ে প্রচারে বেরোবেন বলেও জানালেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর ভাবমূর্তির সামনে রাজ্যে বিজেপি তেমন লাভ করতে পারবে না বলেই মনে করছেন সৌরভবাবু।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!