এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > রাজ্য-রাজনীতিতে এবার নতুন সমীকরণ – তৃণমূলকে আটকাতে জোট বাঁধল বিজেপি-ফরোয়ার্ড ব্লক

রাজ্য-রাজনীতিতে এবার নতুন সমীকরণ – তৃণমূলকে আটকাতে জোট বাঁধল বিজেপি-ফরোয়ার্ড ব্লক

দেশে বিজেপিকে সরাতে সমস্ত বিরোধীদলগুলোকে এক ছাতার তলায় নিয়ে আসার মূল সূত্রধারের ভূমিকা পালন করেছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেই বাংলাতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃনমূল কংগ্রেসকে ঘায়েল করতে জোট বাধল বাম এবং বিজেপি।

সূত্রের খবর, উত্তর দিনাজপুরের চাকুলিয়ার 20 আসনবিশিষ্ট কানকি গ্রাম পঞ্চায়েতে এবার ফব চার, সিপিএম তিন, বিজেপি সাত, নির্দল এক, কংগ্রেস দুই ও তৃনমূল তিনটি আসনে জয়ী হয়। যার ফলে পঞ্চায়েতটি ত্রিশঙ্কু হয়ে পড়ে। এদিকে এই ত্রিশঙ্কু পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন নিয়ে গত কয়েকদিন থেকেই এখানে সরকার ও বিরোধী উভয়পক্ষের মধ্যে দল বদল ও সমর্থন আদায়ের খেলা শুরু হয়।

জানা যায়, কিছুদিন আগেই এই পঞ্চায়েতের ফব এবং নির্দল থেকে একজন করে এবং সিপিএম ও কংগ্রেসের  দু’জন করে সদস্য তৃণমূলে যোগ দেন। আর এরপরেই এই দিন ফব’র তিন, বিজেপি’র সাত ও সিপিএমের একজন মিলে এই পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করায় এক নতুন সমীকরনের ইঙ্গিত পাচ্ছে রাজনৈতিক মহলও। জানা গেছে, এই পঞ্চায়েতে প্রধান হিসাবে ফব প্রতীকে জয়ী আকবর হুসেন এবং বিজেপি’র যমুনা সরকার উপপ্রধান নির্বাচিত হয়েছেন। 

এদিন এই বোর্ড গঠন প্রসঙ্গে ফরওয়ার্ড ব্লকের চাকুলিয়ার বিধায়ক আলি ইমরান রমজ ওরফে ভিক্টর বলেন, “আমাদের দলের তিন সদস্য বিজেপির সমর্থন নিয়ে বোর্ড গঠন করেছেন। আমরা নীতিগতভাবে ওই সাম্প্রদায়িক দলকে সমর্থন করি না। ফলে ওই তিন সদস্যকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রব্লেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিকে এই কানকি পঞ্চায়েতের প্রধান আকবর হুসেন এদিন বলেন, ” নিচু স্তরের কর্মী-সমর্থকদের দাবিতেই বিজেপির সমর্থন নিয়েছি। বহিষ্কারের বিষয়ে কিছু জানি না।” তবে বিজেপিকে সমথর্নের ব্যাপারে ফরওয়ার্ড ব্লক কড়া অবস্থান নিলেও সিপিএম এই ব্যাপারে বিজেপিকে সমর্থন করেছে। সিপিএমের কানকি এরিয়া কমিটির অন্যতম সদস্য আনন্দ সিংহ বলেন, বামফ্রন্ট হিসেবে নির্বচনে লড়াই হয়েছে। তৃণমূলকে ঠেকাতে বিজেপির সমর্থন নেওয়া হয়েছে।” সব মিলিয়ে দেশে বিজেপিকে সরাতে সকলে একজোট হলে সেই ফর্মুলা মেনে রাজ্যে তৃনমূলকে চাপে রাখতে বিভিন্ন পঞ্চায়েতে হাতে হাত রেখে বোর্ড গঠনে মরিয়া বিরোধী দলগুলি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!