এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়ার পর এবার বাঁকুড়া, খারাপ ফলের শাস্তির খাঁড়া নেমে আসছে দলীয় নেতাদের উপর

পুরুলিয়ার পর এবার বাঁকুড়া, খারাপ ফলের শাস্তির খাঁড়া নেমে আসছে দলীয় নেতাদের উপর

রাজ্যের সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে আশ্চর্যজনকভাবেই দেখা গেলো  রাজ্যের বহু বিতর্কিত নির্বাচন কেন্দ্র পশ্চিম মেদিনীপুরের জঙ্গলমহলে আশানুরূপ ফলাফল এলোনা শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের ঝুলিতে। প্রসঙ্গত রাজ্যের দীর্ঘ বাম শাসনের অবসান ঘটিয়ে ক্ষমতায় আসার পরেই রাজ্যের এই অঞ্চলে উন্নয়ন সহ নানা প্রকল্পের সূচনা সর্বাঙ্গীন বিকাশ সাধনে উদ্যোগী হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এখন সেই অঞ্চলের মানুষই তৃণমূল কংগ্রেসের পরিবর্তে গেরুয়া শিবিরকে বেশি পছন্দ করছে বলে মনে করা হচ্ছে। যার প্রভাব পড়েছে নির্বাচনের ফলাফলে। এদিকে রাজ্যের শাসক দল ঐ অঞ্চলে আশানুরূপ ফল করতে না পারায় সংগঠনে পরিবর্তন নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিলো দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। আঞ্চলিক স্তরে দলীয় সংগঠনে পরিবর্তন আনার জন্যে শুরুতেই  ব্লক সভাপতিদের অপসারন হয়েছে। ভালো ফলাফল করতে করতে না পারা অঞ্চলগুলির মধ্যে পুরুলিয়া জেলার রঘুনাথপুর ১, বলরামপুর, পারা ও সাতুরি ব্লকের সভাপতিকে শুরুতেই অপসারিত করা হয়েছিলো।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার অপসারিত হলো বাঁকুড়া জেলার ইন্দ্রপুর ও সিমলাপাল ব্লকের দুই ব্লক সভাপতি। উল্লেখ্য সম্প্রতি পুরুলিয়া সফরকালে তৃণমূল কংগ্রেসের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে একান্ত বৈঠকের পরে জেলার এই চার ব্লকের সভাপতিদের পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একই সাথে সাংসদ নির্দেশ দিয়েছিলেন ১৫ দিনের মধ্যে জেলা কমিটিকে আশানুরূপ ফল করতে না পারার যথার্থ কারণ উল্লেখ করে রিপোর্ট পেশ করতে হবে। কারণ দলের এই বিষয়ে অবগত হওয়া দরকার যে কেনও শাসল দল ঐ অঞ্চলের মানুষের বিরাগভাজন হলেন। অত্যন্ত দ্রুততার সাথে এই রিপোর্ট প্রস্তুত করতে হবে কারণ দলের পক্ষ থেকে কোনো ভুল ত্রুটি হয়ে থাকলে তা সংশোধনের জন্যে বেশি সময় দলের কাছে নেই জানিয়েছিলেন সাংসদ। প্রসঙ্গত রাজ্যের অন্য কোথাও বিজেপির সাফল্যে তৃণমূল কংগ্রেস দল অত বিচলিত না হলেও জঙ্গলমহলের অংশ বিশেষে গেরুয়া শিবিরের সাফল্যে স্বভাবতই উদ্বেগে দল। এখন এই উদ্বেগের দ্রুত নিষ্পত্তি করতেই তৎপর হয়ে উঠেছে রাজ্যের শাসক দল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!