এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার তৃণমূল করার ‘অপরাধে’ ১০০ দিনের কাজ মিলল না – শুরু তীব্র চাঞ্চল্য

এবার তৃণমূল করার ‘অপরাধে’ ১০০ দিনের কাজ মিলল না – শুরু তীব্র চাঞ্চল্য

শুধুমাত্র তৃণমূল করার অপরাধে ১০০ দিনের কাজ থেকে বঞ্চিত করার অভিযোগকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়ালো চকশ্যামপুর গ্রামে। সিপিএম পরিচালিত ডেবরা-১ পঞ্চায়েতের এই এলাকায় তৃণমূল করার অপরাধে ১০০ দিনের কাজ দেওয়া হচ্ছে না,এমনটা জানিয়ে বিডিওর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন স্থানীয়রা।

অভিযোগে তাঁরা আরো জানিয়েছেন,গত ৭ ডিসেম্বর যাঁরা কাজ পেয়েছিলেন তাঁদেরও ছাটাই করা হয়েছে। কাজ চাইতে গেলে সরাসরি জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে কোনো কাজ নেই। এতেই মেজাজ বিগড়ে যায় এলাকার বাসিন্দাদের। তাঁরা আর সময় নষ্ট না করে সোজা চলে যান বিডিওর কাছে অভিযোগ জানাতে। বিডিও পিন্টু ঘরামি,স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা রামকৃষ্ণ অধিকারী জানালেন,১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে যথেষ্ট কাজ থাকা সত্ত্বেও শুধুমাত্র তৃণমূল করার জন্যে কাজ দেওয়া হচ্ছে না। যেহেতু এটি পঞ্চায়েত এলাকাটি সিপিএমের দখলে তাই এখানে শুধু বাম সমর্থনকারীদেরই কাজ দেওয়া হচ্ছে। এই অভিযোগ আগেও বিডিওকে জানানো হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট দপ্তরকেও জানানো হয়েছিল। এদিন লিখিতভাবে বাসিন্দারা বিডিওকে অভিযোগ জানিয়ে এসেছে।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

একইসুরে কথা বলেন স্থানীয় বাসিন্দা সুকুমার দিন্দা, জগন্নাথ মণ্ডল, লক্ষ্মী মুর্মুরা। তাঁদের বক্তব্য, এই মুহূর্তে পাঁচ জায়গায় কাজ চলছে অথচ তাঁদের কোনো কাজ দেওয়া হচ্ছে না। সিপিএম কর্মীদের ভাড়া করে এনে বিকল্প হিসাবে কাজ করানো হচ্ছে অথচ তাঁরা গেলেই বলা হচ্ছে কোনো কাজ নেই। তাই এবার আর বসে না থেকে লিখিতভাবে বিডিওকে অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা।

তবে স্থানীয়দের এ অভিযোগ স্বীকার করলেন না উপপ্রধান অশোক পাত্র। তিনি বলেন,১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে বর্তমানে যাঁরা যুক্ত রয়েছেন তাঁদের আগে বকেয়া কাজগুলো শেষ করতে হবে। নতুন করে এখন আর কাউকে নেওয়া হবে না। এপ্রিল মাসে নতুন কাজ এলে আবার লোক নেওয়া হবে। যাঁরা কাজ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন তাঁরাও এপ্রিল মাস থেকে কাজ পেয়ে যাবেন বলে আশ্বাস দেন তিনি।

তবে এ ব্যাপারে অন্য সুরে কথা বলতে দেখা দেখা যায় পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ তথা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সম্পাদক প্রদীপ করকে। তিনি আবার এ ব্যাপারে সিপিএমের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে বলেন,১০০ দিনের কাজ নিয়ে রাজনীতি করছে বামেরা। যেহেতু সংশ্লিষ্ট পঞ্চায়েত এলাকাটি বামেদের অধীনে তাই তৃণমূলের কর্মীদের স্বতপ্রণোদিতভাবে এই প্রকল্পের কাজ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।

এলাকার বাসিন্দারা প্রশাসনকে তাঁদের মতো করে অভিযোগ জানিয়েছেন। প্রয়োজন পড়লে রাজনৈতিক দাবী আদায়ের লক্ষ্যে তৃণমূলও আসরে নামবে বলে আগাম জানিয়ে দিলেন তিনি। ডেবরা-১ পঞ্চায়েতের এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে লোকসভা ভোটের আগে ফের সিপিএম বনাম তৃণমূলের সংঘাতের ক্ষেত্র তৈরি হল। বিডিও অবিলম্বে এই সমস্যার সমাধান না করলে তৃণমূল যে বিক্ষোভের পথে যেতে দুবার ভাববে না তার ইঙ্গিতই দিয়ে দিলেন এদিন পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ প্রদীপ কর।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!