এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তিন মাস বেতন না পেয়ে অবসাদে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন রাজ্য সরকারি দপ্তরের এই কর্মী!

তিন মাস বেতন না পেয়ে অবসাদে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন রাজ্য সরকারি দপ্তরের এই কর্মী!

সরকারি কর্মচারীরা দীর্ঘদিন ধরে ডিএ না পেয়ে যখন সরকারি বিরুদ্ধেই তীব্র বিষোদগার করতে শুরু করেছেন, ঠিক তখনই তিন মাস ধরে বেতন না পাওয়ায় এবং সংসার না চালাতে পারার জন্য অবশেষে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হলেন বনদপ্তরের কর্মী 45 বছর বয়সের সুবোধ সাহা।

সূত্রের খবর, খড়দহ থানার আগরপাড়ার মহাজাতিনগরের বাসিন্দা সুবোধ সাহা রাজ্য বনদপ্তরের অফিসে ঠিকাদারি নিযুক্ত চুক্তিভিত্তিক কর্মী হিসেবে কাজ করতেন। কিন্তু গত 3 মাস ধরে কোনোরূপ বেতন না পাওয়ায় কিভাবে সংসার চালাবেন তা বুঝতে পারছিলেন না তিনি।

জানা যায়, পরিবারে বৃদ্ধ মা, স্ত্রী এবং দুই ছেলেকে নিয়ে খুব কষ্টের মধ্যে সংসার চালাতেন সুবোধ বাবু। বড় ছেলে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী এবং ছোট ছেলে তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ে। আর ছেলেদের পড়াশোনার খরচ সহ গোটা সংসার চালানো বিগত তিন মাস ধরে বেতন না পেয়ে কার্যত অসাধ্য হয়ে উঠছিল সুবোধ সাহার। আর তাই বৃহস্পতিবার গোটা বাড়ি ফাকা পেয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হন তিনি। তাহলে কি তিন মাস ধরে বেতন না পাওয়ার কারণেই কি সুবোধ বাবুর এই আত্মঘাতী হওয়া?

আমাদের খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে, নীচের যে কোন একটি করুন –

১. যোগ দিন আমাদের WhatsApp Group – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
২. যোগ দিন আমাদের Telegram Group – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
৩. যোগ দিন আমাদের Facebook Group – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
৪. যোগ দিন আমাদের Twitter Handle – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
৫. যোগ দিন আমাদের Google+ Group – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
৬. যোগ দিন আমাদের LinkedIn Group – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
৭. যোগ দিন আমাদের Tumblr গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
৮. বুকমার্ক করে রাখুন আমাদের Official Home Page – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
৯. যোগ দিন আমাদের YouTube Chanel – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
১০. যোগ দিন আমাদের Facebook Page – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন এই প্রসঙ্গে সেই সুবোধ সাহারই এক সহকর্মী বলেন, “বেতন না পাওয়ার জন্য সংসার চালানোর সমস্যার কথা ও মাঝেমধ্যেই বলত। কিন্তু এই ভাবে চলে যাবে তা ভাবতে পারিনি। বিষয়টি ইউনিয়নের নেতাদের মাধ্যমে বনমন্ত্রীকে জানানো হয়েছে।” কিন্তু কেন তিন মাস ধরে বন্ধ এই বেতন?

জানা গেছে, টেন্ডার সম্পন্ন করে নতুন এজেন্সি দায়িত্ব না নেওয়াতেই এই সমস্যা চলছে। এদিকে দাদা চলে যাওয়াতে শোকাহত সেই মৃত সুবোধ সাহার বোন নিয়তি পোদ্দার। তিনি বলেন, “বেতন না পাওয়ায় ও যেমন ছেলের পড়াশোনার খরচ দিতে পারছিল না, ঠিক তেমনি ঘর ভাড়াও দিতে পারছিল না। এদিন সকালে বৌদি একটু কাজে গিয়েছিল। মা ও বড় ছেলেও বাড়িতে ছিল না। সেই সুযোগে ফাঁকা বাড়িতে গলায় দড়ি দিয়ে ও আত্মহত্যা করেছে।” সব মিলিয়ে এবার তিন মাস ধরে বেতন না পেয়ে আত্মঘাতী হলেন বন দপ্তরের কর্মী।

Top
Close
error: Content is protected !!