এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > গো-বলয়ে গেরুয়াকে ফিকে করে “গণতন্ত্র বাঁচানোর লড়াইয়ের” অঙ্গীকারে মহাজোটের মহা শপথ

গো-বলয়ে গেরুয়াকে ফিকে করে “গণতন্ত্র বাঁচানোর লড়াইয়ের” অঙ্গীকারে মহাজোটের মহা শপথ

হিন্দুত্বের পোস্টার বয় বলে পরিচিত কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপি। আর, বিজেপির সম্প্রতি পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলে শোচনীয় পরাজয়ে বাড়তি অক্সিজেন জুগিয়েছে বিরোধী মহাজোটকে। আর এদিন বিরোধী মহাজোটের সেই সমবেত বৈঠকেও এল ঐক্যের সুর।

সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে আরও জানা যাচ্ছে, এদিনের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার, টিডিপি সুপ্রিমো তথা অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আপ প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল, ন্যাশনাল কনফারেন্সের ফারুক আবদুল্লা, ডিএমকে প্রধান এম কে স্টালিন, ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চার বাবুলাল মারাণ্ডি, এলজেপির শরদ যাদব, কংগ্রেসের এ কে অ্যান্টনি, আহমেদ প্যাটেল, অশোক গেহলটের মত কংগ্রেস নেতারা।

উল্লেখ্য, বিরোধী মহাজোটের এই বৈঠকে হেভিওয়েট নেতা নেত্রীরা উপস্থিত থাকলেও সেখানে ব্রাত্যই থেকেই গেলেন উত্তরপ্রদেশের সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজবাদী পার্টি।

বিশেষ সূত্রে খবর, বিরোধী দলের এই বৈঠকে যে মায়াবতী উপস্থিত থাকবেন না সে ব্যাপারে আগেই তৈরি হয়েছিল জল্পনা, এদিন অখিলেশ যাদবের অনুপস্থিতিও জাতীয় রাজনীতিতে বিরোধী মহাজোটের ক্ষেত্রে একটা বড় ধাক্কা বলেই মনে করছেন সমালোচক মহল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তাছাড়া, গো-বলয়ে বিজেপির এই পরাজয়ে যে এখন আসন্ন লোকসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিরোধী মহাজোটকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে, তা এদিনের এই বৈঠক থেকেই বার্তা দেওয়া হয়।

সূত্রের খবর, এদিনের এই বৈঠকের মাঝেই হঠাৎই আরবিআই গভর্নর উর্জিত প্যাটেলের পদত্যাগের খবর আসতেই বিরোধীরা ফের কেন্দ্রের উদ্দেশ্যে সুর চড়াতে শুরু করেন। এদিন এই প্রসঙ্গে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেন, “বিরোধীদের ঐক্যবদ্ধ করাই আমাদের এখন মূল কাজ। আর এখন সেই প্রক্রিয়াই চলছে। আমাদের মূল লড়াই গণতান্ত্রিক সংস্থার ওপর বিজেপি এবং আরএসএসের হামলার বিরুদ্ধে”।

এদিকে সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের দিনগুলিতে ঠিক কিভাবে কেন্দ্র বিরোধী ইস্যুগুলো নিয়ে লড়াই চালাবেন, এই বিরোধী মহাজোট এদিনের বৈঠকে সেই ব্যাপারেও বিস্তারিত আলোচনা করেন। সবমিলিয়ে ‘হিন্দুত্ত্ববাদী’ বিজেপির হাত থেকে ‘গণতন্ত্রকে রক্ষা’ করার অঙ্গীকারকে সামনে রেখে দীর্ঘদিনের বৈরিতা ভুলে এক ছাতার তলায় আসা শুরু বিরধী দলগুলির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!