এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আন্দোলনকারী শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকেও বিজেপিকে তোপ, মিললো না সমাধানসূত্র

আন্দোলনকারী শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকেও বিজেপিকে তোপ, মিললো না সমাধানসূত্র

আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রাথমিক শিক্ষকদের উদ্দেশে কঠোর বার্তা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁদের ক্লাস বন্ধ রেখে আন্দোলন চালানোর সমালোচনা করেন। একইসঙ্গে শ্লেষ দেগে তিনি বলেন, প্রয়োজনে দিলীপ ঘোষকে আপনারা আর একটু সময় দিন, উনি আপনাদের বেতন বাড়িয়ে দেবেন যা নিয়ে সমালোচনার ঝড় বইছে সব মহলে।

কেন্দ্রীয় সরকারের কাঠামো (পিআরটি স্কেল) মেনে বেতন এবং ১৪ জন শিক্ষকের নিয়ম বহির্ভূত বদলির অভিযোগে গত এক সপ্তাহ ধরেই বিকাশ ভবনের সামনে অনশন করেছেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। তাদের দাবি সরকার মেনে নিলে তারা এই আন্দোলন প্রত্যাহার করে নেবে বলেন ।কিন্তু সরকারের তরফে সেই প্রয়াস চোখে পড়ে নি ।তবে গত নয় দিনের আন্দোলনে বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তি, বিপক্ষ দলের নেতা,মন্ত্রী, গন মাধ্যমের আগমনের ফলে সরকার বাধ্য হয়ে আলোচনায় বসতে রাজি হয়। শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় আজ অনশনকারী শিক্ষকদের ৫ জন প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। প্রায় ঘণ্টা দেড়েক বৈঠকও হয়। কিন্তু, তাতেও সমাধান সূত্র বের হল না।

বৈঠক শেষে শিক্ষকদের তরফে জানানো হয়, বেতন সংক্রান্ত তাদের যে দাবি তা নিয়ে কোনও সদর্থক আশ্বাস শিক্ষামন্ত্রী দিতে পারেননি। শিক্ষামন্ত্রী যে আশ্বাস দিয়েছেন, তাতে তাঁরা সন্তুষ্ট নন।অথচ আন্দোলনকারী প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনায় ফলপ্রসূ হয়েছে বলেই দাবি শিক্ষামন্ত্রীর।

জানা যাচ্ছে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রাথমিক শিক্ষকদের উদ্দেশে কঠোর বার্তা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁদের ক্লাস বন্ধ রেখে আন্দোলন চালানোর সমালোচনা করেন।এই নিয়ে এদিন শিক্ষামন্ত্রী আন্দোলনকারীদের বলেন, “ক্লাস বন্ধ রেখে আন্দোলন চালানো ভাল দেখায় না। পড়ুয়ারা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এই দিকটা মানবিকতার সঙ্গে দেখুন আন্দোলনকারীরা।”

সাথেই বেতন বৃদ্ধি নিয়ে বলেন,’শিক্ষকরা যে উচ্চতায় বেতন বাড়ানোর দাবি করছেন, সেই উচ্চতায় দাবি মানা আর্থিক কারণেই সম্ভব নয়। আমি চেষ্টা করব যাতে দ্রুত একটা সমাধানসূত্র বের করা যায়। শুধু মুখে বললেই তো হবে না, আর্থিক সংগতিও থাকা দরকার। সরকারের অতিরিক্ত সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে শিক্ষকদের বেতনের দাবি মানতে হলে। যা দেওয়া কোনওভাবেই সম্ভব নয়।’

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সাথেই দিলীপ ঘোষের আন্দোলনকারীদের পাশে দাঁড়ানো নিয়েও কটাক্ষ করেন তিনি। তিনি বলেন, ”যে মঞ্চে দিলীপ ঘোষ গিয়েছেন সেখানে আমার যাওয়ার প্রশ্ন ওঠে না। দিলীপবাবু যখন গিয়েছেন, ওনাকে আর একটু সময় দেওয়া হোক। দেখা যাক উনি কোনও অর্ডার আনতে পারেন কিনা। দিলীপ ঘোষ একটা অর্ডার আনুক, যে টাকাটা বাড়বে সেটার পুরোটা দায়িত্ব নেবে কেন্দ্র।”

শিক্ষামন্ত্রী এদিন তোপ দেগেছেন বাম নেতা সুজন চক্রবর্তীর বিরুদ্ধেও। এদিন কার্যত কটাক্ষের সুরেই তিনি বলেন, “আসলে সুজনবাবুদের কোনও কাজ নেই, তাই মাঝে মধ্যে গিয়ে আন্দোলনকারীদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। এতে আমার কোনও সমস্যা নেই।”

বলার অপেক্ষা রাখে না সমাধান সূত্র সেই তিমিরেই। শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে টানা দেড় ঘণ্টা বৈঠকের পরেও কাটল না বেতন জট। শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে যে আন্দোলনকারীরা খুশি নন, বৈঠক সেরে বেরিয়ে এমনটা জানিয়েছেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। কিন্তু তিনি ১৪ জন শিক্ষক বদলির ব্যাপারে সদর্থক কথা বললেও পি আর টি স্কেলে বেতন দেওয়া সম্পর্কে সদর্থককিছু আশ্বাস মেলেনি। তবে তাদের পরবর্তী পদক্ষেপ কি হবে তা তাঁরা নিজেদের মধ্যে বৈঠক করবেন বলে জানা গেছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!