এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বেতন না বাড়ায় অসন্তোষ বাড়ছে এই শিক্ষকদের, জেনে নিন

বেতন না বাড়ায় অসন্তোষ বাড়ছে এই শিক্ষকদের, জেনে নিন

বিএড না করা থাকলেও ডিএলএড প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু প্রশিক্ষণ থাকা সত্ত্বেও এবার বেতন বাড়ছে না বলে অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা গেল ডিএলএড শিক্ষক-শিক্ষিকাদের একাংশ। জানা যায়, গত 2012 সালে স্কুল সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়।

পরের বছর সেইখানে কিছু ব্যক্তি চাকরি পেলে নিয়োগের দু’বছরের মধ্যে রাজ্য সরকার তাদের বিয়ের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে বলে নিয়োগের শর্ত দেওয়া ছিল। তবে বিয়ের প্রশিক্ষণের জন্য স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরে 50 শতাংশ নম্বর থাকতে হবে বলে 2016 সালে একটি নিয়ম হয়। যার ফলে প্রায় সাড়ে তিন হাজার শিক্ষক শিক্ষিকা এই প্রশিক্ষণের সুযোগ হারিয়ে ফেলেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে প্রশিক্ষণহীন শিক্ষক শিক্ষিকাদের জন্য কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের উদ্যোগে গত 2017 সালে ডিএলএড ডিপ্লোমার আয়োজন করা হয়। যার প্রশিক্ষণ শুরু হয় 2018 সাল থেকে। আর এখানেই শিক্ষকদের অভিযোগ যে, ডিএলএড প্রশিক্ষণ নিলেও ওই বছরই তাদের বেতন বন্ধ হয়ে গিয়েছে।

এদিন এই প্রসঙ্গে মাধ্যমিক শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতির দক্ষিণ 24 পরগনা জেলা সম্পাদক অনিমেষ হালদার বলেন, “শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে আমরা সমস্যার কথা বলেছি। তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।” কিন্তু শিক্ষামন্ত্রী আশ্বাস দিলেও এখনও পর্যন্ত কাজের কাজ কিছুই হয়নি বলে দাবি শিক্ষক-শিক্ষিকাদের একাংশের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!