এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > তারা মা বড় উপহার দিলেন অনুব্রত মণ্ডলকে ,দাবি হেভিওয়েট নেতার

তারা মা বড় উপহার দিলেন অনুব্রত মণ্ডলকে ,দাবি হেভিওয়েট নেতার

তারা মা বড় উপহার দিলেন অনুব্রত মণ্ডলকে কটাক্ষ হেভিওয়েট কংগ্রেস বিধায়ক মিল্টন রশিদের। “তৃণমূল নেতারা যেদিন মা তারারা কাছে ৪২শে ৪২ চাইলেন তার পরের দিন সকালেই তাঁরা মা তারার আশীর্বাদ পেলেন। মা তাঁদের এত বড় একটা বিস্ফোরণ উপহার দিলেন।” আজ এই ভাষাতেই অনুব্রত মণ্ডল সমেত তৃণমূলকে বিঁধলেন মিল্টনবাবু।

পঞ্চায়েত মিটে গেছে বিরোধী শুন্য না হলেও প্রায় সব কটি আসোনি তৃণমূলের হাতে। আর এবার লক্ষ্য ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচন।৪২ এর ৪২ টি আসোনি চাই তৃণমূলের আর তাই কোমর বেঁধে মাঠে নেমে পড়েছেন সমস্ত তৃণমূলের নেতা- কর্মীরা।

বাদ যাননি দিদির অত্যান্ত অনুগত ভাই কেষ্ট ওরফে অনুব্রত মন্ডল। কৌশিকী অমাবস্যায় তিনি তারাপীঠে মা তারার পুজো দেন ১০৮ টি জবা ফুলের মালা সমেত। সাথেই মায়ের কাছে প্রার্থনা করেন যে, “২০১৯ লোকসভা ভোট। আমি মাকে বললাম, মা তুমি সব পারো। ৪২-এ ৪২ করে দাও। মা বলল, ৪২-এ ৪২ করে দেব।” এমনটাই দাবি তুলেছিলেন অনুব্রতবাবু।

আর তার পরের দিন সোমবার সকালে অনুব্রতবাবুর গড়ে বড়সড় বিস্ফোরণে উড়ে যায় তৃণমূলের পার্টি অফিস। বিস্ফোরণের তীব্রতায় দরজা, জানলা, ছাদের টিন বেশ কয়েক মিটার দূরে পরে নয় সাথে ২০ইঞ্চি পাকা ইটের দেওয়ালও ভেঙে পড়ে। আর এনিয়েই এদিন মিল্টনবাবু অনুব্রত বাবুকে কটাক্ষ করে বলেন যে মা তারা অনুব্রত মণ্ডলের প্রার্থনা শুনেছেন।

সাথেই অবশ্য তিনি জানান যে,ওই ঘটনা খুবই দুঃখজনক। বীরভূম জেলার নাম বিস্ফোরকভূমি হয়ে গিয়েছে। আমি মা তারার কাছে প্রার্থনা করছি বীরভূমকে সন্ত্রাসমুক্ত ও বিস্ফোরকমুক্ত করার। মা নিশ্চয়ই আমার প্রার্থনা শুনবেন।
প্রসঙ্গত ওই পার্টি অফিসে বিস্ফোরণের সমস্ত দায় অনুব্রতবাবু বিজেপির উপর চাপিয়েছিলেন অন্যদিকে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছিল বিজেপি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!