এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তপন শিকদারের পর দলের সবথেকে জনপ্রিয় ব্যক্তির নেতৃত্বেই নির্বাচনে যাবে বিজেপি

তপন শিকদারের পর দলের সবথেকে জনপ্রিয় ব্যক্তির নেতৃত্বেই নির্বাচনে যাবে বিজেপি

তাঁর সুপটু নেতৃত্বেই বিজেপি রাজ্যে দ্বিতীয় শক্তিধর রাজনৈতিক দল হিসাবে উঠে এসেছে। তাঁর সংঘবদ্ধ করার ক্ষমতা বিজেপির সাংগঠনিক শক্তিবৃদ্ধি করেছে। মঞ্চে দাঁড়িয়ে তাঁর শানিত আক্রমণের ভাষায় ভীত কেঁপেছে বিরোধীদের। তবে একাধিকবার মন্তব্য বিতর্কেও জড়িয়েছেন তিনি। কোনোকিছুকে পাত্তা না দিয়ে তিনি চলেছেন তাঁর নিজস্ব ভঙ্গিতেই। তাঁর নেতৃত্বেই বিজেপি উজ্জীবিত হয়ে বাংলার বুকে পদ্ম ফোটানোর অঙ্গিকার নিয়েছে। কথা হচ্ছে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের।

তাকে সামনে রেখেই লোকসভা নির্বাচনে লড়াই করবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি। চলতি বছরের ডিসেম্বরেই তাঁর রাজ্য সভাপতি পদের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেটা হচ্ছে না লোকসভা নির্বাচনের কারণে। লোকসভা নির্বাচনের কারণে বিজেপির সাংগঠনিক নির্বাচন পিছিয়ে যাওয়ায় দিলীপ ঘোষোর সভাপতি পদের মেয়াদও একছর বেড়ে গেল।

সামনেই রয়েছে ছত্তিশগড়,মধ্যপ্রদেশ ও রাজ্যস্থানের বিধানসভা নির্বাচন। লোকসভা ভোটে জেতার পাশাপাশি এসব রাজ্যে থেকেও জয়ের পতাকা ছিনিয়ে নিতে মরিয়া গেরুয়া শিবির। এরকম পরিস্থিতি বিজেপির সাংগঠনিক নির্বাচন পিছিয়ে যাওয়ায় জাতীয় স্তরেও একবছর নেতৃত্বের কোনো রদবদল হবে না বলেই জানা গিয়েছে। ফলত, বিজেপি-সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সভাপতি পদের মেয়াদও একবছর বেড়ে গেল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিজেপির প্রাক্তণ রাজ্য সভাপতি ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তপন শিকদারের পর দলের সবথেকে জনপ্রিয় এবং বলিষ্ঠ ব্যক্তিত্ব নিঃসন্দেহে দিলীপ ঘোষ। এমনটাই মনে করছেন,দিলীপ ঘোষের ঘনিষ্ঠমহল। তাঁর নেতৃত্বেই যে বিজেপি আগামী লোকসভা ভোটে ভালো ফল করবে,এমনটাই আশা করে রয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্বরা। ফলত বিজেপির সাংগঠনিক নির্বাচন পিছিয়ে যাওয়ায় ফলাফল যে বিজেপির পক্ষে ইতিবাচক হবে,এমনটাই বিশ্বাস বিজেপির। এ প্রসঙ্গে  দিলীপ ঘোষ  নিজেকে ‘বিজেপির একজন সৈনিক’ বলে ব্যাখ্যা করেন। এবং এটাও জানান,দলের সিদ্ধান্তই তাঁর কাছে শিরোধার্য। তাই মেয়াদ বাড়া বা কমা তাঁর চিন্তার কারণ হতেই পারে না।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!