এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রহস্যজনক বিস্ফোরণ ট্যংড়ার ম্যানহোলে, বিস্তীর্ণ এলাকায় ধ্বস, আতঙ্কে কাঁপছে এলাকাবাসী

রহস্যজনক বিস্ফোরণ ট্যংড়ার ম্যানহোলে, বিস্তীর্ণ এলাকায় ধ্বস, আতঙ্কে কাঁপছে এলাকাবাসী

বিভিন্ন নির্বাচনের সময় গুলি ও বোমাবাজিতে উত্তপ্ত হতে দেখা গেছে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গাকে। যার মধ্যে ব্যতিক্রম ছিল না ট্যাংরা এলাকাও। কিন্তু মানুষ অভ্যাসের দাস। মাঝেমধ্যেই সেই বোমার শব্দ শুনতে শুনতে অভ্যাসে পরিণত হয়ে গিয়েছিল সেখানকার মানুষদের। বৃহস্পতিবার ট্যাংরা এলাকায় পর পর সেই বোমার শব্দে আতঙ্ক ছড়ায়।

এদিকে এই ঘটনার পর বাসিন্দারা ঘর ছেড়ে বেরিয়ে আসতে ট্যাংরা থানা সামনে ডি সি দে রোড এবং গোবিন্দ খটিক রোডে সেই বোমা ফাটতে দেখা যায়। পাশাপাশি ম্যানহোল ধসে সেখান থেকে ধোঁয়া বেরোনোও প্রত্যক্ষ করেন এলাকাবাসীরা। আর এই ঘটনার পরই বিস্ফোরণের উৎসস্থল খুঁজতে এলাকায় পৌছন দমকল, কলকাতা পুলিশের বিপর্যয় বাহিনী, সিইএসসি এবং পুরসভার বিশেষজ্ঞরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

এদিন এই প্রসঙ্গে ঘটনাস্থলে উপস্থিত কলকাতা পৌরসভার বস্তি বিভাগের মেয়র পরিষদ সদস্য স্বপন সমাদ্দার বলেন, “ইঞ্জিনিয়ার এলাকাতে পৌছেই কিভাবে এই ঘটনা ঘটল, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।” এদিকে এই প্রসঙ্গে নিকাশি বিভাগের মেয়র পরিষদ সদস্য তারক সিং বলেন, “ম্যানহোলের ভেতরে বিপদজনক গ্যাস জমা থাকে। জল অনেক সময় না থাকলেও গ্যাস রয়ে যায়। এদিন আমি বিভাগীয় আধিকারিকদের পাঠিয়ে রিপোর্ট নিয়ে দেখেছি, ওই গ্যাস বের হতে পারছিল না। তার জেরেই এই বিস্ফোরণ ঘটে।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ম্যানহোলের গ্যাস যাতে বাইরে বেরিয়ে না যায়, তার জন্য সেখানে নানা ছিদ্র থাকে। কিন্তু রাস্তার পিচের প্রলেপ দেওয়ার সময় ওই ছিদ্রগুলোর উপর দিয়ে ঢেকে যায়। ফলে সেই গ্যাস বাইরে না বের হওয়াতেই এই সংকট তৈরি হয়েছে।

Top
error: Content is protected !!