এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > তেঁতুল সম্পর্কে কিছু কথা

তেঁতুল সম্পর্কে কিছু কথা

আমরা তেঁতুল খাই ঠিকই কিন্তু এর গুণাগুণ কী তা একপ্রকার না জেনেই খাই। কিন্তু একবার যদি জানতে পারি খাবারটি স্বাস্থ্যে জন্যে উপকারী তাহলে খাওয়ার সময়ে তৃপ্তি যেন কয়েক গুণ বেড়ে যায়। সম্প্রতি একটি গবেষণার সূত্রে জানা যাচ্ছে মেদ কমাতে তেঁতুলের কোনো তুলনা নেই। একই সাথে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতাও রয়েছে তেঁতুলের। একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে এই তেঁতুলে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন সি, ই এবং বি রয়েছে ৷ এছাড়াও রয়েছে ক্যালসিয়াম, আয়রন, ফসফরাস, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ এবং ডায়াটারি ফাইবার যা স্বাস্থ্যের পক্ষে ভীষণই উপকারী। অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের আকর তেঁতুল । এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হলো শরীরের জন্যে অত্যন্ত উপকারী একটি শক্তি ভাণ্ডার। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক তেঁতুলের নানাবিধ উপযোগীতা- তেঁতুল একটি ফ্যাট ফ্রি খাবার ৷

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এতে আছে উচ্চ মাত্রায় ফাইবার। ডায়বেটিক রোগীদের অত্যন্ত উপকারী হলো তেঁতুলের বীজ। hydroxycitric acid সমৃদ্ধ তেঁতুল সহজে খিদে হ্রাস করে । আর ফলস্বরূপ সহজেই মানব দেহের ওজন কমে যায়। পেট ব্যথা বা কোষ্ঠকাঠিন্যর মতো সমস্যা সমাধানে তেঁতুলের জুরী মেলা ভার। তেঁতুলের মধ্যেকার টারটারিক অ্যাসিড, ম্যালিক অ্যাসিড এবং পটাশিয়ামের উৎস যা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। আবার আয়ুর্বেদ শাস্ত্র মতে তেঁতুল পাতা ডায়েরিয়ার সমস্যায় ভীষণ কার্যকরী ভূমিকা নেয়। এছাড়া তেঁতুল গাছের ছাল এবং শিকড় পেট ব্যথা নিরাময়ের ক্ষেত্রে অবর্থ্য। ব্লাড প্রেসার, রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা ও নিয়ন্ত্রন করে তেঁতুল। একটি গবেষণায় জানা যাচ্ছে কিডনি ফেলিওর এবং ক্যান্সার রোধেও তেঁতুলের ভূমিকা আছে ৷ তেঁতুল গাছের পাতা এবং ছালের অ্যান্টি সেপটিক এবং অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়ালের গুণের জন্য ক্ষত সারাতে কাজে লাগানো হয় ৷ তেঁতুল অতিবেগুনী রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে ৷ রক্তাল্পতাতেও উপযোগী তেঁতুল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!