এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "uttarbango"

উত্তরবঙ্গ জুড়ে একের পর এক পৌরসভায় পদ্ম ফোটাতে বড়সড় পরিকল্পনা গেরুয়া শিবিরের

  সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ জুড়ে তৃণমূল ধরাশায়ী হয়েছে। কোচবিহার থেকে দক্ষিণ দিনাজপুর পর্যন্ত, আটটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে সাতটি লোকসভাতেই ফুটে গিয়েছে পদ্মফুল। আর উত্তরবঙ্গে বিধানসভা ভিত্তিক ফলাফল যেমন বিজেপির ভালো হয়েছে, ঠিক তেমনই পৌরসভাতেও গেরুয়া শিবির অত্যন্ত সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের। আর এই পরিস্থিতিতে আগামী বছর যখন রাজ্যের একাধিক

উত্তরবঙ্গ জুড়ে একের পর এক পৌরসভায় পদ্ম ফোটাতে বড়সড় পরিকল্পনা গেরুয়া শিবিরের

  সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ জুড়ে তৃণমূল ধরাশায়ী হয়েছে। কোচবিহার থেকে দক্ষিণ দিনাজপুর পর্যন্ত, আটটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে সাতটি লোকসভাতেই ফুটে গিয়েছে পদ্মফুল। আর উত্তরবঙ্গে বিধানসভা ভিত্তিক ফলাফল যেমন বিজেপির ভালো হয়েছে, ঠিক তেমনই পৌরসভাতেও গেরুয়া শিবির অত্যন্ত সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের। আর এই পরিস্থিতিতে আগামী বছর যখন রাজ্যের একাধিক

উত্তরবঙ্গ সফর বাতিল করলেন মুখ্যমন্ত্রী, জেনে নিন কারণ

  প্রকৃতির রুদ্ররুপের কাছে সকলকে মাথানত করতে হয়। ভরা নীল আকাশে সাদা মেঘের ঝলমলে কড়া রোদ্দুর যেমন আমাদের অনেকটা অস্বস্তি বাড়িয়ে দেয়, ঠিক তেমনই কখনও আয়লা, কখনও ফনি, আবার কখনও বা বুলবুল আমাদের আশঙ্কাকে প্রবল পরিমাণে বৃদ্ধি করে। অতীতে অনেক নিম্নচাপ, অনেক দুর্যোগ আমাদের রাজ্যের উপর দিয়ে চলে গেছে। তবে কমবেশি প্রায়

উত্তরবঙ্গে ঘুরে দাঁড়াতে তৃণমূলের অস্ত্র “গোপনে বুথ অভিযান”! চাঙ্গা হচ্ছে নীচুতলা?

  জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে বর্তমানে উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি। লোকসভা নির্বাচনের পরবর্তী সময়ে যেভাবে সারা উত্তরবঙ্গ জুড়ে বিজেপি তাদের বিস্তার ঘটাতে শুরু করেছিল, এবার এনআরসি ইস্যুতে সেই বিজেপি অনেকটাই পিছিয়ে পড়তে শুরু করেছে উত্তরবঙ্গে। বস্তুত, সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের আটটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে সাতটিতেই জয়লাভ করে ভারতীয় জনতা পার্টি। যেখানে ব্যতিক্রম ছিল না

উত্তরবঙ্গে বিজেপিকে রুখে এগিয়ে যেতে কালীপুজোকেও পাখির চোখ করছে শাসকদল

  লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের একটি আসনও দখল করতে পারেনি তৃণমূল কংগ্রেস। দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট তৃণমূলের অত্যন্ত শক্তঘাঁটি হলেও নাট্যকার অর্পিতা ঘোষকে প্রার্থী করে এখানে নিজের কাজ হাসিল করতে পারেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বালুরঘাটে জয়লাভ করেছেন বিজেপির সুকান্ত মজুমদার। তবে নির্বাচনে অর্পিতা ঘোষ পরাজিত হলেও তাকে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী করে দিয়েছেন

এবার বিজেপি কর্মীদের কাটমানি নেওয়া নিয়ে সরব তৃণমূল, শোরগোল উত্তরবঙ্গে

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের পরাস্ত হওয়ার কারণ হিসেবে শাসক দলের অনেক নেতা কর্মীরা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে কাটমানি নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছিল। পরবর্তীতে সমালোচকদের সেই অভিযোগ গ্রহণ করে কেউ যাতে কোনো দুর্নীতির সাথে যুক্ত না থাকে, তার জন্য দলীয় জোটের সকল কাউন্সিলারদের কড়া নির্দেশ দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর

বিজেপির সদস্য হতে উত্তরবঙ্গ জুড়ে তুমুল আগ্রহ, তৃণমূলের অভিযোগ, ভুল বোঝাচ্ছে গেরুয়া শিবির

লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের আটটি লোকসভা আসনের মধ্যে প্রায় সাতটিতেই জয়লাভ করেছে বিজেপি। আর উত্তরবঙ্গে আটটি আসনের মধ্যে খাতায় খুলতে পারেনি রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। আর লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ থেকে বিজেপির এই বিপুল জয়ের পরই সারাদেশের পাশাপাশি এই রাজ্যেও বিজেপির সদস্য সংগ্রহ অভিযান প্রক্রিয়া শুরু হলে সেই উত্তরবঙ্গে ব্যাপক সাফল্য পেতে

সংগঠনে বদল আনতেই ভেঙে তছনছ সব কমিটি! বিদ্রোহীদের মান ভাঙাতে আসরে হেভিওয়েট মন্ত্রী

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় তৃণমূল পর্যুদস্ত হওয়ার পর বিভিন্ন জেলার সংগঠনের পরিবর্তন আনেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে জেলা সভাপতি পদে তৃণমূল নেত্রী বদল আনলে বিভিন্ন জেলার সংগঠনে নতুন মুখদের দেখতে পাওয়া যায়। যার ফলে দলের অন্দরে তৈরি হয় বিভ্রান্তি। সম্প্রতি জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন কিষাণ কুমার কল্যাণী। আর

“আমার ভুল হয়ে থাকলে আমাকে ক্ষমা করবেন” হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার ভুল স্বীকার

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের একটি আসনও দখল করতে পারেনি তৃণমূল। যার পেছনে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বই প্রধান কারণ হিসেবে উঠে এসেছে। যেমন, কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্র। অতীতে এখানে তৃণমূলের তরফে পার্থপ্রতিম রায় জয়লাভ করলেও কোচবিহারের প্রাক্তন জেলা তৃণমূল সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষের সঙ্গে সেই পার্থবাবুর সম্পর্ক ভালো না থাকার কারণে এবার তিনি প্রার্থী

উত্তরবঙ্গের পাঁচ আসনেই কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে স্বচ্ছ ও অবাধ নির্বাচন করতে এখন থেকেই কাজ শুরু কমিশনের

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে যখন শাসক বনাম বিরোধী দলের মধ্যে তীব্র দড়ি টানাটানি চলছে, ঠিক সেই মুহূর্তেই পুলিশের ওপর নজরদারি এবং আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থাকে খতিয়ে দেখতে পুলিশের তিন অবজারভারকে রাজ্যে পাঠানো হল। সূত্রের খবর, বিনোদ কুমার নামে এক পুলিশ অফিসারের দায়িত্বে থাকবে কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারে অশোক কুমার দাস এবং দার্জিলিঙে রাজেশ

Top
error: Content is protected !!