এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "teacher"

ফের শিক্ষক নিয়ে নিয়ে বড়সড় অভিযোগ উঠলো, জেনে নিন

রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় শূন্যপদগুলিতে যথাযোগ্য নিয়োগ না করার অভিযোগ উঠেছে বারবার। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট শূন্যপদে নিয়োগ না হলে কার্য পরিচালনার অসুবিধার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। আর এবার মেদিনীপুরে প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনগুলোর তরফ থেকে এক বছর আগে বেরোনো শূন্যপদে নিয়োগ না করার অভিযোগ উঠতে দেখা গেল। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের তরফ

বালুরঘাট মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষিকার তান্ডবে কার্যত অবরুদ্ধ কলেজ মোর, শিক্ষিকার আচরণে উঠছে প্রশ্ন

  এ যেন অদ্ভুত ঘটনা ঘটল বালুরঘাট মহাবিদ্যালয়ের সামনে। এর আগে আমরা শিক্ষাঙ্গনকে অশান্ত হতে দেখেছি। অশান্ত হতে দেখেছি নানা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণকেও। কিন্তু কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেউ রাস্তায় নেমে পথচলতি মানুষকে আটকে সকলের ঘুম উড়িয়ে দেবেন, এমন ঘটনার নিদর্শন পাওয়া যায়নি। তবে এবার এই ঘটনাই ঘটল উত্তরবঙ্গের প্রেসিডেন্সি হিসেবে পরিচিত দক্ষিণ দিনাজপুর

আদালতের নির্দেশ আসতেই শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বড়সড় পদক্ষেপ কমিশনের

রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীদের জন্য এবার পুজোর মরশুমে এলো খুশির খবর। সাথে আরো একবার রাজ্য সরকারকে বিপাকে ফেলল হাইকোর্ট। হাইকোর্টের নির্দেশে এবার স্কুলগুলিতে শিক্ষক নিয়োগ করতেই হবে। গত 2012 এবং 2015 সালে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের জন্য পরীক্ষা হয়। এরপর 2016 সালের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়। কাউন্সেলিং এর জন্য বহু প্রার্থী গেলেও

পুজোর মুখেই রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে বড়সড় নির্দেশিকা কলকাতা হাইকোর্টের

রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীদের জন্য এবার পুজোর মরশুমে এলো খুশির খবর। হাইকোর্টের নির্দেশে এবার স্কুলগুলিতে শিক্ষক নিয়োগ করতেই হবে। শিক্ষক পদপ্রার্থীদের করা মামলার রায় হিসাবে এদিন হাইকোর্ট এই উল্লেখযোগ্য অর্ডারটি দেয়, যা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই খুশির হাওয়া চাকরিপ্রার্থীদের মনে। শিক্ষক নিয়োগে এবার হাইকোর্টের নির্দেশ - উচ্চমাধ্যমিকের ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণীর মধ্যে শিক্ষক নিয়োগ

শিক্ষকদের বছর -‌ বছর ইনক্রিমেন্ট দেওয়ার জন্য নতুন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ শিক্ষা দপ্তরের

এবার শিক্ষকদের প্রতি বছর ইনক্রিমেন্ট দেওয়ার জন্য নতুন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল শিক্ষা দপ্তর। সূত্রের খবর, বুধবার শিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বলা হয়, উচ্চমাধ্যমিকে পড়াচ্ছেন, এমন যেসব শিক্ষক d.el.ed উত্তীর্ণ হয়েছেন, তারা এবার বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট পাবেন। আর শিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করায় অনেক শিক্ষকই

কাটমানির পর এবার শিক্ষিকাকে আপত্তিকর প্রস্তাব দেওয়া নিয়ে কাঠগড়ায় তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা

প্রথমে কাটমানি খাওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। আর এবার তৃণমূলের বরো চেয়ারম্যান রঞ্জন শীলশর্মার বিরুদ্ধে তার স্কুলের এক শিক্ষিকাকে আপত্তিকর প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ উঠল। যে ঘটনায় এখন তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে শিলিগুড়ি এলাকায়। জানা গেছে, শিলিগুড়ির নেতাজি জিএসএফপি স্কুলের এক শিক্ষিকা মঙ্গলবার ক্লাসে পড়াচ্ছিলেন। তার অভিযোগ, সেই সময়ই স্কুলের অন্য সহকর্মীরা সেই

বেতন না বাড়ায় অসন্তোষ বাড়ছে এই শিক্ষকদের, জেনে নিন

বিএড না করা থাকলেও ডিএলএড প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু প্রশিক্ষণ থাকা সত্ত্বেও এবার বেতন বাড়ছে না বলে অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা গেল ডিএলএড শিক্ষক-শিক্ষিকাদের একাংশ। জানা যায়, গত 2012 সালে স্কুল সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়। পরের বছর সেইখানে কিছু ব্যক্তি চাকরি পেলে নিয়োগের দু'বছরের মধ্যে রাজ্য সরকার

বিতর্কিত মন্তব্য করে সমালোচনার মুখে শিক্ষামন্ত্রী, জোর শোরগোল রাজ্যে

রাজনীতিতে বিতর্কের রেওয়াজ থামছে না কিছুতেই। বিভিন্ন রাজনীতিবিদ থেকে নেতা-মন্ত্রীরা বিভিন্ন সময় তাদের মুখ ফসকে বিতর্কিত শব্দ প্রয়োগ করে ফেলছেন। তবে নেতা বা বিশেষ কোনো দলের পদাধিকারী যদি এই বিতর্কিত শব্দ প্রয়োগ করে, তাহলে তা তর্কের খাতিরে মেনে নেওয়া যায়। কিন্তু যদি কোনো মন্ত্রীর মুখে বিতর্কিত শব্দ শোনা যায়! হ্যাঁ, ঠিক

বড়সড় অস্বস্তিতে মমতা সরকার, সুপ্রিম কোর্ট থেকে নোটিশ পেলো রাজ্য

ফের অস্বস্তির মুখে রাজ্য। এবার দেশের শীর্ষ আদালতের পক্ষ থেকে রাজ্যের কাছে নোটিশ পাঠিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের চাকরি প্রক্রিয়ায় নিয়োগ এত দেরি কেন! তা জানতে চাওয়া হল। জানা গেছে, অতীতে সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে এই বিষয়টি নিয়ে রাজ্যকে নোটিস পাঠানো হলেও সেই ক্ষেত্রে খুব একটা বেশি কাজ এগোয়নি। আর এর ফলেই

প্রাথমিকে শিক্ষকদের অনেকেরই চাকরি পাওয়ার যোগ্যতা নেই – শিক্ষকদের অনশন নিয়ে দাবি তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতার

প্রাথমিক শিক্ষকদের অনশন নিয়ে বর্তমানে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। শাসক দল তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে অনশন মঞ্চে হাজির হয়ে সেই শাসকদলের বিরুদ্ধে বিষোদগার করতে দেখা যাচ্ছে বিরোধী দল বাম, কংগ্রেস ও বিজেপি নেতাদের। যা প্রবল অস্বস্তিতে ফেলছে রাজ্যের ঘাসফুল শিবিরকে। আর এমত অবস্থায় এবার সেই প্রাথমিক শিক্ষকদের অনেকেরই চাকরি পাওয়ার যোগ্যতা নেই

Top
error: Content is protected !!