এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "suvendu adhikari"

শুভেন্দু-গড়েও গেরুয়া ঝড় সুনিশ্চিত করতে বড়সড় সাংগঠনিক পরিবর্তন বিজেপির

  রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বাধিনায়িকা হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শেষ কথা হলেও তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সাংগঠনিক দায়িত্ব সামলান রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম নেতা শুভেন্দু অধিকারী। একাধিক জেলার জেলা পর্যবেক্ষক সহ-সাংগঠনিক বিভিন্ন দায়িত্ব রয়েছে তার কাঁধে। তাই এবার রাজনৈতিকভাবে শুভেন্দু অধিকারীকে চ্যালেঞ্জ জানাতে তার খাস এলাকাকেই বেছে নিয়েছে

বিজেপি বেশি বাড়াবাড়ি করলে কিভাবে টাইট দিয়ে ওষুধ দিতে হয়, জানিয়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী!

  2011 সালের আগে রক্তক্ষয়ী সিঙ্গুর থেকে নন্দীগ্রাম আন্দোলনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্যতম সৈনিক ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তৎকালীন বাম সরকারের ঘুম উড়িয়ে দিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সৈনিকের অবদান ছিল যথেষ্ট। পরবর্তীতে গত 2011 সালে রাজ্যে ক্ষমতায় বসেছে তৃণমূল কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বর্তমানে সেই শুভেন্দু অধিকারী রাজ্যে পরিবহণ দপ্তরের মন্ত্রী। তৃণমূলের হেভিওয়েট

খড়্গপুরে শুভেন্দু অধিকারীকে ধন্যবাদ “বিক্ষুব্ধ” বিজেপি প্রদীপ পট্টনায়কের! সমীকরণ পাল্টাচ্ছে?

  প্রথম থেকেই খড়্গপুরে বিজেপির প্রার্থী নিয়ে দলীয় স্তরে অসন্তোষ ছিল। বিজেপির দিলীপ ঘোষের কেন্দ্র বলে পরিচিত খড়গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী কে হবে, তা নিয়ে প্রথম থেকেই জল্পনা সৃষ্টি হয়েছিল। পরে অবশেষে দিলীপ ঘোষের নির্বাচনী এজেন্ট বলে পরিচিত প্রেমচাঁদ ঝাকেই এই কেন্দ্রে প্রার্থী করা হয়। আর তারপর থেকেই প্রেমচাঁদবাবুর বিরুদ্ধে

বিজয় উৎসবে বিজেপি নেত্রীর কি ‘ডিলে’ তৃণমূলকে সমর্থন ফাঁস করবেন শুভেন্দু অধিকারী!

  জমজমাট হয়ে উঠেছে রাজ্যের হেভিওয়েট কেন্দ্র খড়গপুর বিধানসভার উপনির্বাচন। এতদিন এই কেন্দ্রে বিজেপির বিধায়ক ছিলেন দিলীপ ঘোষ। কিন্তু বর্তমানে তিনি সাংসদ হয়ে যাওয়ায় তার ছেড়ে যাওয়া এই কেন্দ্রে এবার উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আগামী 25 নভেম্বর এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার আগেই ইতিমধ্যেই জোর প্রচার শুরু হয়ে গেছে। বিজেপির তরফে প্রেমচাঁদ ঝাঁকে প্রার্থী

এবার শুভেন্দুকে নিয়ে বিস্ফোরক মুকুল রায়, জোর জল্পনা রাজনৈতিক মহলে

  তৃণমূল ছেড়ে অনেকদিন হল তিনি বিজেপিতে যোগদান করেছেন। আর বিজেপিতে যোগদান করার পর থেকেই তৃণমূলের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বৈরাচারী নীতিকেই বারবার দায়ী করেছেন মুকুল রায়। অনেক ক্ষেত্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো তথা যুব তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও নিজের প্রশ্নবাণে বিদ্ধ করেন বঙ্গ বিজেপির চাণক্য। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করতে থাকেন, দলে অভিষেক

বেলাগাম শুভেন্দু অধিকারী, অস্বস্তিতে শাসকদল

  তিনি দক্ষ সংগঠক। ভালো বক্তাও বটে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুর্দিনের সঙ্গী হিসেবে পরিচিত। কিন্তু এহেন জনপ্রিয় নেতৃত্বের মুখ থেকে যখন বেলাগাম শব্দ প্রয়োগ হতে দেখা যায়, তখন নিঃসন্দেহে অবাক হয়ে যায় রাজনৈতিক মহল। তিনি আর কেউ নন, রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী তথা একাধিক জেলার তৃণমূলের পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী। বর্তমানে ভোট রাজনীতিতে উত্তপ্ত বাংলার মাটি।

এনআরসি নিয়ে ভালো সাড়া, অধীর-গড়ে দাঁড়িয়ে হাওয়া আরও গরম করে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী

  সম্প্রতি তৃণমূলের রাজ্য কমিটির বৈঠকে তৃণমূলের নিযুক্ত রননীতিকার প্রশান্ত কিশোরের নির্দেশ মত এনআরসি ইস্যুতে প্রচারে জোর দিতে বলা হয়েছে তৃনমূল নেতৃত্বদের। জেলায় জেলায় ইতিমধ্যেই সেই নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে তোড়জোড়। আর সেই মোতাবেক এবার এনআরসি ইস্যুতে মুর্শিদাবাদের অধীর চৌধুরীর গড়ে জোরদার প্রচার করতে দেখা গেল জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক তথা মন্ত্রী

যৌথ নেতৃত্ব নিয়ে তৃণমূল নেতাদের বড়সড় নির্দেশ শুভেন্দু অধিকারীর! জানুন বিস্তারিত

  তৃণমূল দলের মাথা থেকে পা পর্যন্ত "একম-অদ্বিতীয়ম" নীতিতে বিশ্বাসী থাকতে দেখা গেছে সকলকে। তবে একার উপরে ভরসা রেখে নয়, এবার থেকে যৌথ নেতৃত্বে বিশ্বাসী হয়েই সকলকে পথ চলতে হবে বলে জানিয়ে দিলেন রাজ্যের হেভিওয়েট নেতা তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। সূত্রের খবর, শনিবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূলের পক্ষ থেকে সুতাহাটায় একটি বিজয়া

এবার মুর্শিদাবাদে শুরু হতে চলেছে অধীর-শুভেন্দু দ্বৈরথ

এখনো পর্যন্ত এ রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলের আসন ছিনিয়ে নিয়েছে কংগ্রেস। ভোট যুদ্ধের দামামা বাজতেই এবার মুর্শিদাবাদে হুংকার ছাড়লো দুই পক্ষ তৃণমূল কংগ্রেস ও কংগ্রেস। এমনিতেই মুর্শিদাবাদে অধীর চৌধুরীর গড় বলেই সুপরিচিত। কোন সময় অধীর চৌধুরীকে তার গড় থেকে সরানো যায়নি। কোন দলই তা পারেনি। সামনে 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। আর

মন্ত্রীর সিদ্ধান্তে রূপনারায়ণের চরে এলাকাবাসীদের বাড়ছে ক্ষোভ, চাপানউতোর রাজ্যে

এবার এক অন্য রকম বিতর্ক তৈরি হয়েছে রাজ‍্যে। রাজ্যের শাসকদলের মন্ত্রীর বক্তব্যে এক অন্য রকম বিতর্ক তৈরি হয়েছে মায়াচরে। রাজনীতির টানাপোড়েন হামেশাই দেখতে পাই আমরা। কিন্তু মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনা নিয়েও যে বিতর্ক তৈরি হতে পারে, সে সম্পর্কে কোন ধারণাই ছিলনা রাজ্যবাসীর। আর এই ঘটনাই ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরে। এই

Top
error: Content is protected !!