এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "suvendu adhikari"

কাটমানি ও অবৈধ বালি খাদান নিয়ে এ কি বললেন শুভেন্দু অধিকারী! জেনে নিন

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল রাজ্যের 42 টি লোকসভা আসন এর মধ্যে 22 টি আসন পাওয়ার পরই কিভাবে ঘুরে দাঁড়ানো যাবে, তা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছিল তৃনমূল। তবে দুর্নীতি যে দলের অনেকাংশেই বাসা বেধেছে, তা আঁচ করতে পেরে কোনো দুর্নীতির সঙ্গে দলের নেতাকর্মীদের যুক্ত থাকা যাবে না বলে জানিয়ে গিয়েছিলেন

নানুর দিবসে মন্ত্রী থাকলেও অনুপস্থিত দলের সিংহভাগ কাউন্সিলর, জোর জল্পনা

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যে দলবদলের হিড়িক শুরু হয়েছে। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতে দেখা যাচ্ছে অনেক জনপ্রতিনিধিদেরকে। যাতে প্রবল চিন্তায় পড়েছে ঘাসফুল শিবির। আর এমতাবস্থায় এবার হলদিয়া শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সংখ্যালঘু সেলের উদ্যোগে নানুর শহীদ দিবস অনুষ্ঠানে তৃণমূল কাউন্সিলরদের অনুপস্থিতি প্রবল চিন্তা বাড়াতে শুরু করল। সূত্রের খবর, এদিন

ভাঙ্গন রুখতে তৃণমূল ভবনে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক, আদৌ রফাসূত্র বেরোলো কি! জল্পনা তুঙ্গে

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপির উত্থান ঘটার পরই বিভিন্ন জায়গায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক পড়ে যায়। বিভিন্ন পঞ্চায়েতের প্রধান, উপপ্রধান থেকে শুরু করে বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিরা গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে শুরু করেন। যার জেরে প্রবল অস্বস্তিতে পড়ে রাজ্যের শাসক দল। কিন্তু এবার সেই ভাঙ্গন রুখতে বুধবার বিকেলে রাজ্যের মন্ত্রী জাকির হোসেনের এলাকার

এবার বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে মাঠে নামলেন শুভেন্দু, কর্মীদের দিলেন বড়সড় বার্তা

লোকসভা নির্বাচনে এবার তৃনমূলের ভরাডুবি হয়েছে। দিকে দিকে বিজেপি তাদের শক্তিবৃদ্ধি করতে শুরু করেছে। আর এই পরিস্থিতিতে দলকে ঘুরে দাড়াতে মরিয়া হয়ে উঠেছে তৃনমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। সামনেই তৃণমূলের একুশে জুলাই। আর সেই 21 শে জুলাই এবার ইভিএমের কারচুপির অভিযোগে ইভিএম নয়' ব্যালট চাই স্লোগানকে সামনে রেখে ফের রাজপথে নেমেছে ঘাসফুল

দলের মধ্যেই তীব্র উত্থান দুই “প্রতিদ্বন্দ্বীর”? অস্বস্তি ক্রমশ বাড়ছে তৃণমূলের “যুবরাজের”?

অনুগামীরা তাকে বরাবরই তৃণমূলের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড বলেই অভিহিত করে। তবে সমালোচকদের কাছে তিনি অবশ্য নেত্রীর ভাইপো বলেই দলের শীর্ষস্থানে রয়েছেন বলে শুনতে পাওয়া যায়। হ্যাঁ ঠিকই ধরেছেন, তিনি সর্বভারতীয় যুব তৃনমূলের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। লোকসভা নির্বাচনের আগে দলের প্রায় প্রতিটা সিদ্ধান্ত নেওয়ার পিছনে থাকতেন তিনি। কিন্তু নির্বাচনে পর্যদুস্ত হওয়ার পর ভাইপো অভিষেক

বিধতে গিয়েও সাধারণ জীবনযাপনের প্রসঙ্গ তুলে প্রাক্তন মন্ত্রীকে হিরো বানালেন শুভেন্দু

করতে গিয়েছিলেন কটাক্ষ, আর সত্যি কথা বলে বিরোধী দলের বিধায়ককে রীতিমত হিরো বানিয়ে দিলেন রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। সূত্রের খবর, এদিন রাজ্য বিধানসভার অধিবেশনে বাম আমলের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বর্তমান বিধায়ক আনিসুর রহমান সরকারি বাস পরিষেবা নিয়ে প্রশ্ন করেন। আর তার জবাব দিতে গিয়েই সেই আনিসুর রহমানকে কটাক্ষ করার পাশাপাশি

তৃণমূল নেত্রী দলে শুভেন্দুর গুরুত্ব বাড়াতেই কি এবার আসরে অবতীর্ন যুবরাজ? বাড়ছে জল্পনা

দীর্ঘদিন ধরেই তৃণমূলের অন্দরে শুভেন্দু অধিকারী বনাম অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পর্কের চোরাস্রোত বইছে বলে শুনতে পাওয়া যায়। একাংশ অভিযোগ করেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো বলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দলের শীর্ষস্থানে বসিয়ে দিয়ে, শুভেন্দু অধিকারীকে ব্রাত্য করে রাখা হয়েছে। যার জেরে দীর্ঘ বাম আমলে লড়াই আন্দোলন করে আসা শুভেন্দু অধিকারীর হয়ে সওয়াল করতেও দেখা

শাসকদলের অস্বস্তি বাড়িয়ে শুভেন্দু-অভিষেককে ঘিরে দ্বিধাবিভক্ত কর্মীরা? তীব্র হচ্ছে জল্পনা

দীর্ঘদিন ধরেই তৃণমূলের অন্দরে শুভেন্দু অধিকারী বনাম অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পর্কের চোরাস্রোত বইছে বলে শুনতে পাওয়া যায়। একাংশ অভিযোগ করেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো বলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দলের শীর্ষস্থানে বসিয়ে দিয়ে শুভেন্দু অধিকারীকে ব্রাত্য করে রাখা হয়েছে। যার জেরে দীর্ঘ বাম আমলে লড়াই আন্দোলন করে আসা শুভেন্দু অধিকারীর হয়ে সওয়াল করতেও দেখা

শুভেন্দুর জায়গায় অভিষেক, মানতে নারাজ দলের অন্দরমহলই, সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব কর্মীরা

তৃনমূলে বরাবরই দুই যুবনেতা শুভেন্দু অধিকারী ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বন্দ্ব নতুন কিছু নয়। দীর্ঘদিন ধরে লড়াই করা শুভেন্দু অধিকারী তেমন কোনো জায়গায় না থাকলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো হিসেবে পরিচিত অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মূল জায়গায় আসলে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন দলের একাংশ। তবে লোকসভা ভোটে দলের খারাপ ফলাফলের পর সেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় অপেক্ষা

বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ হেভিওয়েট নেতা, কিন্তু আপত্তি বিজেপির অন্দরেই, জোর সোরগোল রাজ্যে

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের তৃণমূলের ভরাডুবি এবং বিজেপির প্রবল উত্থান হওয়ায় পরই তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, জনপ্রতিনিধিরা গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে শুরু করেন। যার জেরে তৃণমূল যেমন অস্বস্তিতে পড়তে থাকে, ঠিক তেমনই বিজেপির অন্দরেও শুরু হয় দ্বন্দ্ব। এক সময় যে তৃণমূলের দাপুটে নেতাদের বিরুদ্ধে লড়াই করে বিজেপির সুদিন এসেছে, সেই নেতারাই যদি

Top
error: Content is protected !!