এখন পড়ছেন
হোম > Posts tagged "state"

পুরভোট থেকেই রাজ্যের রাজনৈতিক বিন্যাস বদলে দিতে শুরু হতে চলেছে প্রক্রিয়া? বাড়ছে জল্পনা

খাতায়-কলমে কংগ্রেস রাজ্যে বিরোধী দল হলেও সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে দুটি আসন ছাড়া বাংলা থেকে তাদের ভাগ্যে আর কিছু জোটেনি। আর এই লোকসভা নির্বাচনেই কার্যত স্পষ্ট হয়ে গেছে যে, বাংলায় খাতায়-কলমে কংগ্রেস বিরোধী দল হলেও বর্তমানে বিরোধী দল বিজেপি। কিন্তু এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে তো দিনকে দিন কংগ্রেসের অস্তিত্ব বিপন্ন হবে! আর

ফের বাড়ল রাজ্য- রাজ্যপালের বিরোধ, রাজ্যপাল দিলেন মন্ত্রীদের কড়া বার্তা, সংবিধান অবমাননা দাবি শাসকদলের

জাগদীপ ধনকার রাজ্যের রাজ্যপাল হওয়ার পর থেকেই নবান্ন বনাম রাজভবনের দূরত্ব বেড়েই চলেছে। অপ্রত্যাশিতভাবে ঘটে চলা রাজ্যের একের পর এক ঘটনায় যখন রাজ্যপাল রাজ্য সরকারের সমালোচনা করছেন, ঠিক তখনই সেই রাজ্যপালকে পক্ষপাতদুষ্ট বলে আক্রমণ করতে দেখা যাচ্ছে শাসকদলের নেতাদের। শুরুটা হয়েছিল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় দিয়ে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়কে

রাজ্যে বাম – কংগ্রেস জোট কি আবারও বিশ বাঁও জলে? সিপিএমের পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা!

গত 2016 সালের রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের সময় জোট বদ্ধ হয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমেছিল কংগ্রেস-বামফ্রন্ট। তবে একদিকে যেমন নীতির প্রশ্নে এই সোনার পাথরবাটি জোটকে প্রশ্নের মুখে ফেলেছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা, অন্যদিকে তেমনই জনতার রায়ে মুখ থুবরে পড়তে হয় এই কংগ্রেস-বামফ্রন্ট জোটকে। সেবারের বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস-বামফ্রন্ট জোট শুধু যে তৃণমূলের কাছে

সেতু উদ্বোধনে রেলমন্ত্রীর আসা চূড়ান্ত হতেই যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আগে উদ্বোধনে ঝাঁপাল রাজ্য!

সেতু তুমি কার! এই নিয়েই যেন এবার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে রাজ্য রাজনীতিতে। যে কোনো প্রকল্পের উদ্বোধন যে দলের নেতা বা মন্ত্রী করেন, তারাই সেই কাজের পেছনে মূল উদ্যোক্তা ছিলেন বলে মনে করেন সকলে। কিন্তু কেন্দ্র এবং রাজ্যের যৌথ উদ্যোগে যদি কোনো প্রকল্প হয়, তাহলে তা রাজ্য এবং কেন্দ্রের মন্ত্রী

রাজ্যে নিয়োগে বড়সড় দুর্নীতি সামনে আসতেই নড়েচড়ে বসছে সব মহল! বদলাচ্ছে নিয়ম

দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যের বিভিন্ন নিয়োগ প্রক্রিয়ায় বড়সড় দুর্নীতি চলছে বলে সরকারকে অস্বস্তিতে ফেলে দাবি করতে দেখা যাচ্ছিল বিরোধী দলগুলিকে। কিন্তু যাতে আর কেউ এই ধরনের অভিযোগ তুলতে না পারে, তার জন্য এবার রাজ্য বিদ্যুৎ বণ্টন কোম্পানির নিয়োগ পরীক্ষায় নিয়োগ-নীতি বদল করা হচ্ছে। সূত্রের খবর, গত জুন মাসে ‘অফিস এগজিকিউটিভ’ এবং ‘জুনিয়র

রাজ্যের পর্যটনকে বিশ্বের দরবারে পৌঁছে দিতে অভিনব পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের, জানুন বিস্তারিত

ক্ষমতায় আসার পরই রাজ্যের পর্যটনকে অন্য মাত্রায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। যার জন্য বিভিন্ন পর্যটন সম্ভাবনাময় স্থানগুলিকে চিহ্নিত করে তার উন্নয়ন করারও চেষ্টা করেছে রাজ্যের পর্যটন দফতর। আর এবার বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপূজাকে কাজে লাগিয়ে সেই পর্যটন মানচিত্রকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছে রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর, এবার পুজোয়

ভয়মুক্ত ভোট রাজ্যবাসীকে উপহার দিতে এখন থেকেই কাজে লেগে পড়লেন নতুন রাজ্যপাল

বাংলার সাথে ভোটে সন্ত্রাস, এই শব্দ দুটি যেন এতদিন সমার্থক হয়ে দাঁড়িয়েছিল। গত 2018 সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে গোটা বঙ্গবাসী প্রত্যক্ষ করেছে ভোটে রিগিং থেকে হানাহানির ঘটনা। ভুতুড়ে ভোটারদের বাড়বাড়ন্তে নির্বাচন কমিশনের কাছে বিরোধীরা সমবেত হয়ে অভিযোগ জানালেও লাভের লাভ কিছুই হয়নি। পরবর্তীতে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে সারাদেশে তা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হলেও বাংলার

শারদোৎসব নিয়ে মাঠে নেমে পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী, পুজো মণ্ডপগুলিকে বিজেপির হাত থেকে বাঁচাতেই কি এত তৎপরতা! জোর গুঞ্জন

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পরই বাংলায় গেরুয়া শিবিরের উত্থান ঘটেছে। রাজনীতির পাশাপাশি সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রেও প্রবেশ করতে শুরু করেছে বিজেপি। খেলার মাঠ, টলিপাড়া থেকে শুরু করে আসন্ন শারদোৎসবে কিভাবে নিজেদের বিস্তার লাভ করা যায়, তার জন্য ছক কষছে তারা। খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দুর্গাপুজোর উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে দলীয় সাংসদ এবং নেতাদের জনসংযোগে

ফের বড়সড় সাফল্য পেল রাজ্য, রাজ্যবাসীকে ধন্যবাদ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

ক্ষমতায় আসার পরই বিভিন্ন প্রকল্পে সারা দেশের মধ্যে তারা সেরার সেরা খেতাব অর্জন করেছে বলে দাবি করতে দেখা গেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। কন্যাশ্রী থেকে 100 দিনের কাজ - বিভিন্ন প্রকল্পে কেন্দ্রের ভূয়সী প্রশংসা কুড়োতেও দেখা গেছে রাজ্যকে। আর এবার নির্মল বাংলা প্রকল্পে ব্যাপক সাফল্য পেল রাজ্য। সূত্রের খবর, রাজ্যের প্রায় প্রতিটি

ফের কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মমতা বন্দোপাধ্যায়ের, জেনে নিন

প্রায় বিভিন্ন ইস্যুতেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হন তিনি। আর এবার ক্যাফে কফি ডের প্রতিষ্ঠাতা ভি জি সিদ্ধার্থের মৃত্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে দেখা গেল তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। প্রসঙ্গত, দেশের বৃহত্তম কফি চেন হিসেবে পরিচিত "ক্যাফে কফি ডে" প্রতিষ্ঠা করে নিজের ব্যবসায়িক জগতে বিপ্লব ঘটিয়েছিলেন ভি জি

Top
error: Content is protected !!